#Viral : জিলিপি খাওয়া ছেড়ে দেব... রেগে আগুন গম্ভীর, দেখুন ভিডিও

#Viral :  জিলিপি খাওয়া ছেড়ে দেব... রেগে আগুন গম্ভীর, দেখুন ভিডিও
Photo Courtesy- ANI/ Twitter Video Grab

গরম চর্চা দিল্লিতে

  • Share this:

#নয়াদিল্লি : গৌতম গম্ভীর ভীষণ রেগে ৷ সংবাদমাধ্যমকে ঝাঁঝের সঙ্গে উত্তর দিচ্ছেন ৷ গম্ভীর সাধারণত স্বল্পবাক, ক্রিকেটার হিসেবে এটাই এতদিন দেখে এসেছেন ৷ তবে সাংসদ হওয়ার পর বদল আসতেও পারে ৷ তবে এবার দেখা গেল রাগী গম্ভীরকে ৷

আসলে এই রেগে যাওয়ার কারণ শুরু দিন কয়েক আগে ৷ অরবিন্দ কেজরিওয়ালের নেতৃত্বে থাকা আম আদমি পার্টি শুক্রবার রেগে আগুন ছিল ৷ দিল্লির মাত্রাতিরিক্ত দূষণ নিয়ে আলোচনার শেষ নেই ৷ সুপ্রিম কোর্ট অবধি এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করছে, সেখানে কিনা দূষণ নিয়ে ডাকা সর্বদলীয় বৈঠকে দেখা নেই গৌতম গম্ভীরের ৷ সেই মু্হূর্তে ভারত বনাম বাংলাদেশে টেস্ট সিরিজ চলছিল ৷ সেইজন্যে ব্যস্ত ছিলেন প্রাক্তন ক্রিকেটার গম্ভীর ৷

সব মিলিয়ে ট্যুইটার এখন সরগরম এই দিল্লি দূষণ ঘিরে৷ এবার সোমবার গৌতম গম্ভীর জানাচ্ছেন তাঁর জিলিপি খাওয়া প্রশ্ন উঠেছে ৷ তিনি দাবির সঙ্গে জানিয়েছেন তাঁর জিলিপি খাওয়ায় যদি দিল্লির দূষণ বেড়ে গিয়ে থাকে তাহলে সারা জীবনের জন্য জিলিপি খাওয়া ছেড়ে দেবেন তিনি ৷ এর পাশাপাশি তিনি আরও বলেছেন তিনি সাংসদ হওয়ার পর দূষণ রোধে যেভাবে কাজ করেছেন তা সকলে দেখেছেন ৷ পাশাপাশি তিনি এও প্রশ্ন তুলেছেন AAP  পাঁচ বছরে কী কাজ করেছে দূষণ রোধে ৷

শুক্রবার ব্রেকফাস্টের সময় হাসিখুশি গম্ভীর -লক্ষ্মণ এরকম একটা ছবি পোস্ট করেছিলেন ভিভিএস লক্ষ্মণ ৷

আরও পড়ুন - রেলে কর্মী নিয়োগ, দশম শ্রেণীর পাসেরা করতে পারবেন আবেদন, দিতে হবে না পরীক্ষাও

আর এরপরেই শুরু গণ্ডগোল ৷ আপের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে কী করে দিল্লিতে দূষণ নিয়ে বৈঠকে না খেকে মজার ট্রিপ করতে পারেন ৷

 

আপের অভিযোগকে উড়িয়ে দিয়ে গৌতম গম্ভীর জানিয়েছেন আপ প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়ালের উচিত ঘরে বসে বৈঠক না করে রাস্তায় নেমে দেখা যে কী পরিমাণ আন্ডার কনস্ট্রাকশন বিল্ডিং রয়েছে যেগুলি থেকে কী পরিমাণ দূষণ ছড়াচ্ছে ৷ এইসব গণ্ডগোল শুরু হয় যখন লক্ষ্মণ তাঁর গোতির ব্রেকফাস্টের সময়ের এক দারুণ ছবি পোস্ট করেন ৷

এরপরেই আপের পক্ষ থেকে গৌতম গম্ভীরের সাংসদ হওয়ার দায়িত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয় ৷ বলা হয় আগে থেকে জানানো এরকম গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক থেকে কী করে নিজেকে সরিয়ে নিতে পারেন ৷

 

আরও দেখুন

First published: 03:53:02 PM Nov 18, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर