corona virus btn
corona virus btn
Loading

আইবিএন ৭-এর পর্দায় অপারেশন ‘যমরাজ’, নকল ওষুধ থেকে সাবধান!

আইবিএন ৭-এর পর্দায় অপারেশন ‘যমরাজ’, নকল ওষুধ থেকে সাবধান!

আইবিএন ৭-এর এই স্টিং অপারেশনের উদ্দেশ্য বিশেষ কোনও ওষুধের সংস্থার বিরোধীতা করা নয় ৷ এই অন্ধকার জগতের সঙ্গে কোনও ওষুধের সংস্থা জড়িয়ে নেই ৷ আজকে আইবিএন ৭ আপনাদের জানাবে কীভাবে ওষুধের নাম করে দেশে আন্ডারওয়াল্ডরা কাজ চালাচ্ছে ৷ আসল ওষুধের নাম করে শিশিতে বিষ ভরে দেওয়া হচ্ছে ৷

  • News18
  • Last Updated: December 2, 2015, 11:59 AM IST
  • Share this:
#নয়াদিল্লি: আইবিএন ৭-এর ‘অপারেশন যমরাজ’ পুরো দেশের সামনে একটা সত্যকে তুলে ধরেছে৷ যা দেখে ঘুম উড়ে যেতে পারে আপনার ৷ কারণ এই সত্যিটা আপনার জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে, আপনার সন্তানের জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে, আপনার প্রিয়জনের জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে ৷
আইবিএন ৭ পর্দাফাঁস করেছে নকল ওষুধ বিক্রির ব্যবসার ৷ যা প্রতিদিন হাজারো মানুষের চোখে ধুলো দিয়ে নিজেদের মারণ ব্যবসাকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ৷ এই নকল ওষুধ এমন কিছু রাসায়নিক দিয়ে তৈরি হচ্ছে, যা কিনা মানুষকে ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে ৷ তবে এই সত্য উদঘাটনের আগে আইবিএন ৭ একটা বিষয় পরিষ্কার করে দিতে চায়, যে এই স্টিং অপারেশনের উদ্দেশ্য বিশেষ কোনও ওষুধের সংস্থার বিরোধীতা করা নয় ৷ এই অন্ধকার জগতের সঙ্গে কোনও ওষুধের সংস্থা জড়িয়ে নেই ৷ আইবিএন ৭ আপনাদের জানাতে চায় কীভাবে ওষুধের নাম করে দেশে আন্ডারওয়ার্ল্ড মাফিয়ারা তাদের কাজ চালাচ্ছে ৷ আসল ওষুধের নাম করে শিশিতে বিষ ভরে দেওয়া হচ্ছে ৷ড্রাগ মাফিয়াদের এই দুষ্কর্মগুলি সবার সামনে তুলে ধরতে উত্তরপ্রদেশের মেরঠ এবং আরও বিভিন্ন শহরে এবার স্টিং অপারেশন  চালাল আইবিএন ৭ ৷
 
আইবিএন ৭-এর পর্দা ফাঁস , অপারেশন যমরাজ
ক্যামেরায় ধরা পড়া ড্রাগ মাফিয়া : আমি বলছি আপনি চিনতেই পারবেন না ৷ একটা আমাদেরটা রেখে দিন এবং একটা আসলটা রাখুন ৷
ক্যামেরায় ধরা পড়া ড্রাগ মাফিয়া : ব্যস এই জিনিসেই পয়সা আছে ৷ বুঝতে পারলেন, যেমন আমাদের ম্যানকাইন্ডের চলছে ৷ ওষুধের যেমন চলছে ম্যানকাইন্ড এবং র‍্যানব্যাক্সি ওয়ালাদের ৷
 
ক্যামেরায় ধরা পড়া ড্রাগ মাফিয়া : আমি তো বলছি দুটো পাশাপাশি রেখে দাও ৷ কোম্পানির মালিকও বলতে পারবে না যে এটা এটা আমার আর ওটা ওদের ৷
ক্যামেরায় ধরা পড়া ড্রাগ মাফিয়া : তোমার দেখতে একরকম হলেই তো হল ? তুমি খালি একটা স্যাম্পল দেখিয়ে দিও ৷ ঠিক তেমনই বানিয়ে দেব আমি ৷
আইবিএন ৭-এর এই স্টিং অপারেশনের উদ্দেশ্য কোনও ওষুধের সংস্থার বদনাম করা নয় ৷ আমরা বরং এই চক্র ফাঁসের মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে সেই সত্যটা তুলে ধরতে চাই, যার জন্য প্রতি বছর হাজার হাজার মানুষের মৃত্যু হচ্ছে৷ এ এমন এক অন্ধকার দুনিয়া, যা আমাদের সকলের জীবনকে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ৷ এ এমন এক দুনিয়া যাকে বিশ্বাস করা যায় না ৷ ভরসা করা যায় না ৷
রিপোর্ট অনুযায়ী এই বিষাক্ত ওষুধগুলি সরকারি হাসপাতালগুলিতেও পাঠানো হয়ে থাকে ৷ নকল ওষুধের পাশাপাশি ড্রাগ মাফিয়ারা কাশির সিরাপের ফাঁকা বোতল এবং ওষুধের নকল র‍্যাপারগুলোও সরবরাহ করে ৷ স্টিং অপারেশন চলাকালীন মাফিয়ারা আইবিএন-৭-এর রিপোর্টারদের আশ্বাস দেয়, যে এই নকল ওষুধগুলি চেনা কারোর পক্ষেই সম্ভব নয় ৷ ড্রাগ মাফিয়ার থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী মাত্র তিন টাকা দিয়ে তৈরি নকল কাশির সিরাপ মার্কেটে বিক্রি হতে পারে কমপক্ষে ২৮ থেকে ৩০ টাকায় ৷ মেরঠের ডিআইজি আশুতোষ কুমার অবশ্য জানিয়েছেন, পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত করছে ৷ সমস্ত তথ্য জোগাড় করেই ড্রাগ মাফিয়াদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে ৷
First published: December 2, 2015, 11:59 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर