প্রথম বিবাহবার্ষিকীতেই মুছল সিঁথির সিঁদুর, স্ত্রীর সামনে এল স্বামীর মৃতদেহ

প্রথম বিবাহবার্ষিকীতেই মুছল সিঁথির সিঁদুর, স্ত্রীর সামনে এল স্বামীর মৃতদেহ

নিহত ব্যক্তির নাম রলিন্দর কুমার ওরফে রিকি৷

নিহত ব্যক্তির নাম রলিন্দর কুমার ওরফে রিকি৷

  • Share this:

    #চণ্ডীগড়: বিয়ের প্রথম বার্ষিকীর একদিন আগে যুবকের খুন! স্বামীর আসার অপেক্ষায় ছিলেন স্ত্রী, কিন্তু স্বামীর মৃতদেহ এল বাড়িতে। কয়েক মুহুর্তে, ভেঙে গেল সুখের ঘর। সোমবার রাতে সকাল ৯ টায় রাতের খাবারের সময় সামান্য বিরোধের জেরে খুন হন যুবক।

    নিহত ব্যক্তির নাম রলিন্দর কুমার ওরফে রিকি৷ পঞ্জাবের কাপুরতলা জেলায় লাল্লারায়ণ মহল্লা সুলতানপুর লোধি বাসিন্দা তিনি। যুবকের মঙ্গলবার তার প্রথম বিবাহবার্ষিকী ছিল এবং সেই উপলক্ষ্যে বাড়িতে প্রস্তুতি চলছিল। থানার সুলতানপুর লোধির আইও এসআই হরজিৎ সিংহ জানান, সোমবার রাত ৯ টার দিকে রবীন্দ্র কুমার ওরফে রিকি এক ধাবাতে তাঁর বন্ধু হরকিরাত সিংহের সঙ্গে খেতে গিয়েছিলেন। সেখানে হরপ্রীত সিং ওরফে হ্যাপি এবং তার ভাই জসপাল সিং পান্ডোরি তাদের শ্যালক ওমকার সিংহ সাইফলাবাদের সঙ্গে রাতের খাবার খাচ্ছিলেন। একটি ছোটখাট বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ শুরু হয়।

    এসআই এর মতে, জসপাল সিং এবং তার ভাইয়ের সঙ্গে রিকির পুরনো শত্রুতা ছিল। এ কারণে সেখানে একটি বিতর্ক শুরু হয়। হরপ্রীত এবং তার সঙ্গী রবীন্দ্রকে গালি দিতে শুরু করেন, যার পর রবীন্দ্র তার বন্ধুকে নিয়ে ধাবা থেকে বেরিয়ে আসেন। বিরোধ এতটা বেড়ে যায় যে মত্ত হরপ্রীত নিজেকে সামলাতে পারেন না৷ নেশায় চড়ে রবীন্দ্র ও তার বন্ধুকে গাড়ির ধাক্কা দেন, যার ফলে তার মৃত্যু হয় রিকির এবং তার বন্ধু হারকিরাত আহত হন।

    এর পরে অভিযুক্ত হরপ্রীত সেখান থেকে পালিয়ে যায়। নিহত রবীন্দ্রের ভাই আমনদীপ কুমার জানান যে ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে৷ অভিযুক্ত দুই ভাইকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের খোঁজ চলছে। ঘটনায় ব্যবহৃত গাড়িটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশ বর্তমানে মামলাটি তদন্ত করছে।

    Published by:Pooja Basu
    First published: