ট্রেন ও প্ল্যাটফর্মের মধ্যে মানুষ, আরপিএফ কর্মীর ঝাঁপ, দেখুন শিহরণ জাগানো ভিডিও!

ট্রেন ও প্ল্যাটফর্মের মধ্যে মানুষ, আরপিএফ কর্মীর ঝাঁপ, দেখুন শিহরণ জাগানো ভিডিও!

ট্রেন ও প্ল্যাটফর্মের মাঝে মানুষ, আরপিএফ কর্মীর ঝাঁপ, দেখুন শিহরণ জাগানো ভিডিও!

সিসিটিভি-তে রেকর্ড হওয়া ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছে রেল মন্ত্রক (Ministry of Railway)।

  • Share this:

#পানাজি: সব নায়কের মাথায় মুকুট থাকে না, কেবল গায়ে থাকে উর্দি। আর তাতেই যে অসাধ্য সাধন করা যায়, সেটাই প্রমাণ করলেন গোয়ার এক রেলওয়ে পুলিশ ফোর্স (Railway Police Force) বা আরপিএফ (RPF) কর্মী। এক সহ-নাগরিকের জীবন তিনি যে ভাবে বাঁচালেন যে রাতারাতি ইন্টারনেটে নায়ক বনে গেলেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে সেই শিহরণ জাগানো ভিডিও।

গোয়ার ভাস্কো স্টেশনে ঘটেছে রক্তচাপ বাড়িয়ে দেওয়া ওই ঘটনা। চলন্ত ট্রেনে উঠতে গিয়ে এক যাত্রীর পা ফস্কে যায়। ট্রেন ও প্ল্যাটফর্মের মাঝে আটকে যায় তাঁর দেহ। সেই অবস্থাতেই খানিকটা এগিয়ে যায় ট্রেন। ঘটনার আকস্মিকতায় তথোমতো খেয়ে যাওয়া প্ল্যাটফর্ম দাঁড়িয়ে থাকা মানুষ এবং ট্রেনের যাত্রীরা চেঁচিয়ে ওঠেন। আর্ত চিৎকার করে ওঠেন ট্রেন ও প্ল্যাটফর্মের মাঝে আটকে পড়া ওই যাত্রীও। শোরগোল কানে যেতেই ঘুরে দাঁড়ান এক আরপিএফ কর্মী। দৌড়ে গিয়ে টেনে তোলেন আটকে পড়া ওই যাত্রীকে। রোমহর্ষক ওই ঘটনার পর বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন ঘটনাস্থলে উপস্থিত প্রত্যেকে।

সিসিটিভি-তে রেকর্ড হওয়া ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছে রেল মন্ত্রক (Ministry of Railway)। তাতে জানানা হয়েছে বিহারগামী ওই এক্সপ্রেস ট্রেনটি ভাস্কো স্টেশন থেকে ছেড়েছিল। ভিডিওটি স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে যে কী ভাবে ওই যাত্রী চলন্ত ট্রেনে উঠতে গিয়ে পা হড়কে নিচে পড়ে যান। কেবল বরাত জোরে ওই যাত্রী বেঁচে যান। কারণ কয়েক সেকেন্ড আগে ওই ট্রেন থেকেই অবতরণ করেন রক্ষাকর্তা ওই আরপিএফ কর্মী। ওই যাত্রী সামান্য আঘাত পেলেও, তিনি আপাত সুস্থ বলে জানানো হয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনা থেকে বাকিদের শিক্ষা নিতে বলেছে রেল মন্ত্রক।

ওই আরপিএফ কর্মীর সাহস এবং ক্ষিপ্রতার প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন নেটিজেনরা। অনেকে আবার ওই যাত্রীর না ঘটা পরিণতির কথা ভেবে আঁতকে উঠেছেন। কারও পরামর্শ, ট্রেন ও প্ল্যাটফর্মের মাঝে শূন্যস্থান কমিয়ে দিক ভারতীয় রেল। কারও মতে মেট্রোর মতো লোকাল এবং এক্সপ্রেস ট্রেনেও অটোমেটেড ডোর রাখা উচিৎ। তাতে এড়ানো সম্ভব দুর্ঘটনা। অনেকের মতে, এসব ঘটনা দেখার পরেও যারা নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলন্ত ট্রেনে ওঠার চেষ্টা করবে, তাদের শাস্তি হওয়া উচিৎ। কেউ বলেছেন যে রক্ষাকর্তা সিআরপিএফ পুলিশ কর্মীকে পুরস্কৃত করা উচিৎ।

গত ২৯ জানুয়ারি প্রায় একই রকম ঘটনা ঘটেছিল মুম্বইয়ের কল্যাণ স্টেশনে। এক যাত্রীকে চলন্ত ট্রেন ও প্ল্যাটফর্মের মাঝে পড়ে যাওয়া থেকে বাঁচিয়েছিলেন দুই আরপিএফ কর্মী। সেই তথ্যও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা হয়েছিল। এবং তা মুহুর্তে ভাইরাল হয়েছিল।

Published by:Debalina Datta
First published: