• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বদলাতে কতটা তৈরি ব্যাঙ্কগুলি ?

৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বদলাতে কতটা তৈরি ব্যাঙ্কগুলি ?

 বৃহস্পতিবারই ৫০০ ও ১০০০ টাকা বদলাতে লম্বা লাইন পড়বে ব্যাঙ্কে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় কি আদৌ তৈরি ব্যাঙ্কগুলো?

বৃহস্পতিবারই ৫০০ ও ১০০০ টাকা বদলাতে লম্বা লাইন পড়বে ব্যাঙ্কে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় কি আদৌ তৈরি ব্যাঙ্কগুলো?

বৃহস্পতিবারই ৫০০ ও ১০০০ টাকা বদলাতে লম্বা লাইন পড়বে ব্যাঙ্কে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় কি আদৌ তৈরি ব্যাঙ্কগুলো?

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: বৃহস্পতিবারই ৫০০ ও ১০০০ টাকা বদলাতে লম্বা লাইন পড়বে ব্যাঙ্কে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় কি আদৌ তৈরি ব্যাঙ্কগুলো? বুধবার সমবায় ব্যাঙ্ক সহ বিভিন্ন ব্যাঙ্কে ঘুরে সামনে এল অন্য ছবি। পরিস্থিতি মোকাবিলা দূরে থাক, কেন্দ্রের নির্দেশ নিয়েও চরম ধোঁয়াশায় ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ। নতুন করে নগদ না এলে টাকা বদলে দেওয়া যাবে না। যা নিয়ে প্রবল আশঙ্কায় ব্যাঙ্ককর্মীরা।

    জারি হয়ে গিয়েছে নতুন নিয়ম। অথচ সেই সংক্রান্ত কোনও সার্কুলার আসেনি ব্যাঙ্কে। নতুন করে নোটও আসেনি ব্যাঙ্কের অধিকাংশ শাখায়। এই অবস্থায় ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বদলানো কতটা সম্ভব, তা  নিয়ে ধন্দে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষই।

    আরও পড়ুন

    অতিরিক্ত কাউন্টার খোলার পাশাপাশি অতিরিক্ত সময়ের জন্য খোলা থাকবে ব্যাঙ্ক

    বিভিন্ন জেলায় ছড়িয়ে থাকা শাখাতে পরিস্থিতি আরও খারাপ। টাকা বদলে দিতে না পারলে গ্রাহকদের ক্ষোভের মুখে পড়তে হবে। সেটা আঁচ করেই আশঙ্কায় ব্যাঙ্ককর্মীরা।

    আরও পড়ুন

    নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত ঘোষণার পর রাস্তায় মিলল কয়েক কোটি ছেঁড়া নোট

    কেন্দ্র নির্দেশ পাঠিয়ে খালাস। নিয়ম মানতে আবার নিজের মতো করে প্রস্তুতি নিচ্ছে বেশ কয়েকটি ব্যাঙ্ক।

    কোথায় সমস্যা-- অধিকাংশ ব্যাঙ্কের সদর দফতরেই টাকা আসেনি নতুন নোটের ব্যাপারে অন্ধকারে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ ব্যাঙ্কের টাকা শেষ হলে কি নোট বদল বন্ধ করা ছাড়া উপায় নেই

    বৃহস্পতিবার ব্যাঙ্কে গেলেই যে টাকা বদলানো যাবে, তেমন নিশ্চয়তা দিচ্ছেন না কেউই।  তার ওপর রয়েছে লম্বা ছুটির গেরো।

    দ্বিতীয় শনিবার হওয়ায় ছুটি ১২ নভেম্বর ১৩ তারিখ রবিবার হওয়ায় ছুটি ১৪ নভেম্বর গুরু নানকের জন্মদিনে ব্যাঙ্ক বন্ধ  

    ভিড় সামলাতে তাই বৃহস্পতিবার-শুক্রবার বাড়তি সময় ব্যাঙ্ক রাখার সিদ্ধান্ত নিতে পারে বেশ কয়েকটি ব্যাঙ্ক। তাতেও যে গ্রাহকদের সমস্যা মিটবে, এমন আশা দেখা যাচ্ছে না।

    First published: