স্কুলে ছাদ থেকে পড়ে জল, দেওয়াল স্যাঁতস্যাঁতে ! নিজের টাকা দিয়ে মেরামত করলেন তামিলনাড়ুর শিক্ষিকা

ছাদ থেকে জল পড়া ছিল রোজকার ব্যাপার। স্যাঁতস্যাঁতে দেওয়ালের ঘরে বসে পড়াশোনা করতে অসুবিধা হচ্ছিল ছাত্র-ছাত্রীদের। তাই নিজের টাকা খরচ করে সেই দেওয়াল ও ছাদ সারালেন এক শিক্ষিকা।

ছাদ থেকে জল পড়া ছিল রোজকার ব্যাপার। স্যাঁতস্যাঁতে দেওয়ালের ঘরে বসে পড়াশোনা করতে অসুবিধা হচ্ছিল ছাত্র-ছাত্রীদের। তাই নিজের টাকা খরচ করে সেই দেওয়াল ও ছাদ সারালেন এক শিক্ষিকা।

  • Share this:

#চেন্নাই: ছাদ থেকে জল পড়া ছিল রোজকার ব্যাপার। স্যাঁতস্যাঁতে দেওয়ালের ঘরে বসে পড়াশোনা করতে অসুবিধা হচ্ছিল ছাত্র-ছাত্রীদের। তাই নিজের ৩০ হাজার টাকা খরচ করে সেই দেওয়াল ও ছাদ সারালেন এক শিক্ষিকা।

তামিলনাড়ুর কৃষ্ণগিরির দেনকানিকোট্টাইতে রয়েছে ইউনিয়ন প্রাইমারি স্কুল। যাতে মোট ২০ জন ছাত্র-ছাত্রী পড়াশোনা করে। বেশ কিছু দিন ধরেই এই স্কুলের ছাদ থেকে জল পড়ছিল। দেওয়ালও ভিজে স্যাঁতস্যাঁতে হয়েছিল ড্যাম্পের জন্য। স্কুল মেরামতে তাই উদ্যোগ নেন এই স্কুলের প্রধানশিক্ষিকা এন পোনকোড়ি।

২০০৫ থেকে ২০০৬ সালে তৈরি হয়েছিল এই স্কুল। যত দিন না তিনি পদক্ষেপ করে স্কুল মেরামতের কাজ করেন, তত দিন একটি মেরামতের কাজও হয়নি। সম্প্রতি তিনি শিক্ষামন্ত্রী আর মুরুগানকে স্কুল মেরামতের জন্য টাকা চেয়ে আবেদন জানান। সেখান থেকে মেলে ১ লক্ষ টাকা।

সরকারি সাহায্য পাওয়া গেলে তিনি স্কুল মেরামত শুরু করেন। সরকার থেকে পাওয়া ওই ১ লক্ষ টাকা দিয়ে স্কুলের ছাদ মেরামতের পর, স্কুলের দেওয়াল ঠিক করতে ও তাতে নতুন রঙ করতে পোনকোড়ি নিজের আয়ের ৩০ হাজার টাকা দিয়ে দেন।

দ্য নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, শুধু দেওয়ালে রঙই নয়, দেওয়ালে সুন্দর সুন্দর ডেকোরেশনও করেন তিনি। আর তার পর থেকেই ইংরেজি ও তামিল অক্ষরে, সুন্দর সুন্দর ছবিতে, নামতায় দারুণ আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে স্কুলের দেওয়াল।

এই স্কুলে পোনকোড়ি রোজ প্রায় ৫৫ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে আসেন। রোজ ছাত্র-ছাত্রীদের পড়িয়ে ৫৫ কিলোমিটার পেরিয়ে বাড়ি যান। তিনি জানিয়েছেন, এই টাকা দেওয়ার জন্য একবারও ভাবেননি তিনি। তাঁর মনে হয়েছিল, স্কুল মেরামতের পর ছাত্র-ছাত্রীরা বেশি ভালো ভাবে পড়াশোনা করতে পারবে। জানা গিয়েছে, তিনি ওই প্রাইমারি স্কুলের একমাত্র শিক্ষিকা, যিনি ২০ জন বাচ্চা একসঙ্গে সামলান। এই ৩০ হাজার টাকা ছাদ মেরামত ছাড়াও তিনি ৩৭ হাজার টাকা দিয়ে স্কুলের মেঝেও মেরামত করেছেন।

এমন অনেক স্কুলই রয়েছে দেশের নানা প্রান্তে যার অবস্থা এই রকম- অধিকাংশই সরকারি স্কুলই সে ভাবে মেরামত হয় না।

এমনই এক ঘটনা ঘটে গত বছর সেপ্টেম্বরেও। যেখানে ছত্তিসগড়ের একজন শিক্ষক অশোক লোধি বাইকে করে LED TV বয়ে নিয়ে গিয়ে স্কুলে লাগান। যাতে ছাত্র-ছাত্রীরা সেখান থেকে জ্ঞান অর্জন করতে পারে। বিভিন্ন কার্টুন, গান ও খেলার ছলে তিনি ওই টিভির মাধ্যমে পড়ানো শুরু করেন।

Published by:Piya Banerjee
First published: