‘ধর্ম ভেদাভেদ শেখায় না’,অসহিষ্ণুতা প্রসঙ্গে মুখ খুললেন নুসরত

এ বার তাঁদের সেই বক্তব্যকেই সমর্থন জানালেন বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদ নুসরত জাহান।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Jul 25, 2019 05:56 PM IST
‘ধর্ম ভেদাভেদ শেখায় না’,অসহিষ্ণুতা প্রসঙ্গে মুখ খুললেন নুসরত
Nusrat Jahan
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Jul 25, 2019 05:56 PM IST

#কলকাতা: দেশে ‘‌ক্রমবর্ধমান অসহিষ্ণুতা’‌নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে খোলা চিঠি দিয়েছেন দেশের ৪৯ জন বিশিষ্ট ব্যক্তি। ‘জয় শ্রীরাম যুদ্ধের স্লোগানে পরিণত হয়েছে’ বলে দাবি করে তাঁরা সোচ্চার হয়েছেন তাঁরা ৷ এর পাশাপাশি উল্লেখ করেছেন গণপিটুনি নিয়েও। এ বার তাঁদের সেই বক্তব্যকেই সমর্থন জানালেন বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদ নুসরত জাহান।

ইকবালের লেখা এক কবিতাকে উদ্ধৃত করে নুসরত নিজের টুইটার পোস্টে লেখেন, ধর্ম শেখাতে পারে না বিভেদ'। পাশাপাশি 'জয় শ্রী রাম' ধ্বনি তুলে মানুষকে হত্যা করার যে ঘটনা সামনে উঠে আসছে তারও প্রতিবাদ করেন নুসরত। 'সারে জাহাঁ সে আচ্ছা'র ডাক দিয়ে এক সংঘবদ্ধ ভারতের বার্তা দেন নুসরত।

তিনি লিখেছেন, ‘‘‌গোমাংস খাওয়া অথবা গরু পাচারের গুজব ছড়িয়ে দেশের সাধারণ নাগরিকদের উপর তথাকথিত গোরক্ষকদের আক্রমণের প্রচুর ঘটনা ঘটছে। নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে সরকারের নীরবতা ও কোনও ব্যবস্থা না নেওয়াটা আমাদের কাছে কষ্টদায়ক। ২০১৪ থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে মুসলিম, দলিত এবং সংখ্যালঘু সম্প্রদায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে। কেবলমাত্র ২০১৯ সালেই ১১টি এরকম হিংসার ঘটনা ঘটেছে। চারজন মারা গিয়েছে। আর প্রত্যেক ক্ষেত্রেই আক্রান্তরা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের।’‌’ তিনি আরও লেখেন, ‘‌‘ভারতবর্ষ ধর্মনিরপেক্ষ দেশ। আর নয়া প্রজন্মের একজন তরুণ সাংসদ হিসেবে আমি সরকার ও সব আইনপ্রণেতাদের কাছে অনুরোধ করছি, এই গণপিটুনি দেওয়া ব্যক্তিরা গণতন্ত্রের উপর যে আঘাত হানছে, তা বন্ধ করতে অবিলম্বে কড়া আইন আনা হোক।’’‌ এরপর ইকবালের কবিতা ‘‌সারে জাহাঁ সে আচ্ছা’‌র একটি অংশ তুলে ধরে নুসরত শেষে লেখেন, ‘‌‘শুধুমাত্র মানবতার জন্য গরুর নাম করে, ভগবানের নাম করে, কারও দাড়ি আছে বলে, কারও টুপি আছে বলে খুনখারাপি বন্ধ হোক।’‌‌‌’

First published: 05:56:12 PM Jul 25, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर