দরিদ্র হিন্দু বৃদ্ধের হঠাৎ মৃত্যু, হিন্দুমতে শেষকৃত্য করলেন মুসলিম সহকর্মীরাই

হিন্দু বৃদ্ধের শ্মশানযাত্রী মুসলমানরাই।

হিন্দু সংস্কার অনুয়ায়ী বল হরি ধ্বনিও উঠল।

  • Share this:

    #ফুলবাড়ি: ভারতের অখণ্ডতার ‌ছবি যারা নষ্ট করতে চায়, যারা বিভাজনের রাজনীতি করে, তাদের জন্য উদাহরণ হয়ে উঠতে পারেশ ফুলবাড়ি অঞ্চলের এই আখ্যান। যেখানে ধর্মপরিচয় নিয়ে বাছবিচারকে দূরে সরিয়ে এক ব্রাহ্মণ বৃদ্ধের সৎকার করলেন হিন্দুরা। হিন্দু সংস্কার অনুয়ায়ী বল হরি ধ্বনিও  উঠল।

    কলকাতার বেহালার বাসিন্দা পীযুষ চট্টোপাধ্যায়। ফুলবাডির জটিয়াকালি এলাকায় একটি চাপাতা কারখানায় কাজ করতেন। সদ্য কিডনিজনিত সমস্যায় ভুগছিলে পঞ্চাশোর্ধ্ব পীযুষবাবু। হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও বাঁচানো যায়নি পীষুষবাবুকে। পীষুষবাবুর বাড়িতে বৃদ্ধা মা ও ছোট মেয়ে রয়েছে। তারা অতদূর ছুটে আসতে না পারলেও তাঁর স্ত্রী রুমকিকে চট্টোপাধ্যায়কে খবর দেওয়া হলে তিনি শিলিগু়ড়ি আসেন। কিন্তু আর্থিক অসুবিধের কারণেই তিনি দেহ নিয়ে যেতে পারছিলেন না। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় স্থানীয়ভাবেই সারা হবে পীষুষবাবুর। এগিয়ে আসেন পীযুষের সহকর্মীরা যারা বেশির ভাগই মুসলিম ধর্মাবলম্বী।

    ব্রাক্ষ্মণ নিয়ে আসা হয় তাদেরই তাগিদে। পীষুষবাবুর দেহ নিয়ে যাওয়া হয় কিরণচন্দ্র শ্মশানঘাটে। কোনও নিয়মই বাদ রাখেননি তাঁরা। তাঁদের অৰ্থসাহায্য সাহায্য করেন এলাকাবাসীও। ধর্মের ফারাক কোনও ভাবেই অন্তরায় হয়নি। ঘটনা সামনে আসার পর অনেকেই বলছেন, এটাই আসল ভারতবর্ষ।

    Published by:Arka Deb
    First published: