• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • HIMANT BISWA SARMA FEELS HINDU MAN CHEATING HINDU WOMAN FOR MARRIAGE IS ALSO JIHAD DMG

Himant Biswa Sarma: লভ জিহাদে বিশ্বাসী নন হিমন্ত বিশ্বশর্মা, হিন্দু মুসলিম নির্বিশেষে অসমে আসছে কড়া আইন

অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা৷

অসমের মুখ্যমন্ত্রী (Himant Biswa Sarma) মনে করেন, ধর্ম বা অন্য কোনও তথ্য গোপন করে বিয়ের নামে প্রতারণার প্রবণতা বন্ধ হওয়া উচিত৷

  • Share this:

    #গুয়াহাটি: 'লাভ জিহাদ' আটকাতে একাধিক বিজেপি শাসিত আইন এনেছে৷ কিন্তু প্রায় সবক্ষেত্রেই সেই আইনের উদ্দেশ্য ছিল যাতে ধর্মান্তকরণের উদ্দেশ্যে একজন মুসলিম পুরুষ কোনও হিন্দু নারীকে বিয়ে না করতে পারে৷ কিন্তু সেই লাভ জিহাদের সংজ্ঞাই কার্যত বদলে দিলেন বিজেপি শাসিত অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা৷ শনিবার তিনি দাবি করেছেন, হিন্দু হোন বা মুসলিম, কোনও পুরুষই যাতে ছলনার আশ্রয় নিয়ে বা তথ্য গোপন করে বিয়ে নামে কোনও নারীকে প্রতারণা না করতে পারে, তা নিশ্চিত করতে কড়া আইন আনবে অসম সরকার৷ হিমন্ত বিশ্বশর্মার মতে, 'একজন হিন্দু পুরুষও যদি প্রতারণ করে কোনও নারীকে বিয়ে করে, আমার মতে সেটাও জিহাদ৷' বিজেপি শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর এ হেন মন্তব্যে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে৷

    অসমের মুখ্যমন্ত্রী মনে করেন, ধর্ম বা অন্য কোনও তথ্য গোপন করে বিয়ের নামে প্রতারণার প্রবণতা বন্ধ হওয়া উচিত৷ তিনি বলেন, কোনও হিন্দু পুরুষরেও কোনও হিন্দু মহিলাকে বিয়ের নামে ঠকানো উচিত নয়৷ এই কারণেই তিনি নির্দিষ্ট ভাবে লাভ জিহাদ জাতীয় কোনও শব্দবন্ধেও বিশ্বাস করেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী৷ তবে হিমন্ত বিশ্বশর্মা এ কথা বললেও বিজেপি-র নির্বাচনী ইস্তেহারে বলা হয়েছিল, ক্ষমতায় ফিরলে অসমে লাভ জিহাদের উপদ্রব বন্ধে যথাযথ আইন িনয়ে আসা হবে৷

    এ দিন গুয়াহাটিতে সংবাদমাধ্যমকে হিমন্ত বিশ্বশর্মা জানান, 'আমরা নির্দিষ্ট ভাবে লাভ জিহাদ বলে কোনও বিশেষ শব্দবন্ধকে ব্যবহার করার পক্ষপাতী নই৷ কারণ আমরা মনে করি একজন হিন্দুরও আর একজন হিন্দুকে ঠকানোর অধিকার নেই৷ একজন মুসলিম পুরুষ একজন হিন্দু মহিলাকে ঠকিয়ে বিয়ে করলেই সেটা লাভ জিহাদ নয়৷ আমার মতে কোনও হিন্দু পুরুষও যদি তথ্য গোপন করে বা কোনও ছলনার আশ্রয় নিয়ে কোনও হিন্দু মহিলাকে বিয়ে করে, তাহলে সেটাও জিহাদ৷ এই কারণেই এই জিহাদ শব্দটিতে আমি বিশ্বাস করি না৷ বিয়ের নামে যে কোনও ধরনের প্রতারণা যাতে বন্ধ হয়, তা নিশ্চিত করতেই কড়া আইন আনা হবে৷'

    তবে অসমের মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন, প্রথমে রাজ্যে গো রক্ষা আইন প্রণয়নের উদ্যোগ নেওয়া হবে৷ এর পর সর্বাধিক দুই সন্তান সংক্রান্ত বিধি বলবৎ করা হবে এবং তার পরই বিয়ের নামে প্রতারণা আটকাতে আইন আনতে উদ্যোগী হবে সরকার৷ অসমের মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, নতুন এই আইন হিন্দু, মুসলিম সবার উপরেই সমান ভাবে প্রযোজ্য হবে৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: