দেশ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘ও তো ওর বাচ্চাদের জন্য খাবার আনতে গিয়েছিল’, কান্নায় ভেঙে পড়লেন দিল্লির হিংসায় মৃতের ভাই

‘ও তো ওর বাচ্চাদের জন্য খাবার আনতে গিয়েছিল’, কান্নায় ভেঙে পড়লেন দিল্লির হিংসায় মৃতের ভাই

দিল্লিতে অশান্তি চলছেই৷ সোমবার সন্ধ্যের পর থেকে তীব্র আকার ধারণ করা দিল্লির অশান্তি নিয়ে দেশজুড়ে তোলপাড় পড়ে গিয়েছে৷

  • Share this:

#নয়া দিল্লি: দিল্লিতে অশান্তি চলছেই৷ সোমবার সন্ধ্যের পর থেকে তীব্র আকার ধারণ করা দিল্লির অশান্তি নিয়ে দেশজুড়ে তোলপাড় পড়ে গিয়েছে৷ তার মাঝেই উঠে আসছে একের পর এক মর্মান্তিক ছবি৷

সোমবারের ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে মহম্মদ ফারুখ নামে এক ব্যাক্তির৷ তাঁকে চিহ্নিত করার পর তাঁর দাদা জানিয়েছেন, ‘আমি প্রথমে বিশ্বাসই করতে পারিনি এমন ঘটনা ঘটেছে৷ কয়েক ঘণ্টা আগেও আমি ওর সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলাম৷ ও বাড়িতেই ছিল৷ তারপর আমি অফিসে চলে আসি৷ অফিসে বসেই কিছুক্ষণ বাদে একটার পর একটা ফোন পাচ্ছিলাম৷ সকলেই বলে, ভাইয়ের পায়ে গুলি লেগেছে৷ তারপর আমি ভাইকে ফোন করি৷ ও ফোন ধরে না৷ আমার তখন ভয় করছিল৷ তারপর আরও কয়েকজন আমাকে ফোন করে বলেন যে ভাইকে সত্যি জিটিবি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ আমি তারপরেই বেরিয়ে যাই৷ হাসপাতালে গিয়ে দেখি ওর অবস্থা খুব খারাপ৷ আমি ডাক্তারদের বলি, ওকে আমি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাব, যেভাবে হোক বাঁচাবো৷ ডাক্তাররা বলেন, সম্ভব না৷ ও বাঁচবে না৷ বিশ্বাস করুন, ও এসবের কিচ্ছু জানে না৷ বাড়িতে দুটো ছোট্ট বাচ্চা রয়েছে ওর৷ খাবার দাবার ছিল না বলে বাচ্চাদের জন্য খাবার আনতে গিয়েছিল ও৷ ওর সন্তানেরা যে খাবারের জন্য অপেক্ষা করে বসে আছে৷’

দিল্লিতে গতকাল থেকে সিএএ ও এনআরসি বিরোধী যে আন্দোলন শুরু হয়েছে আর সেই আন্দোলনকে ঘিরে যে প্রবল অশান্তি ছড়িয়েছে তা যেন থামতেই চাইছে না৷ এখনও পর্যন্ত আন্দোলনের জেরে সাতজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে৷ মঙ্গলবার সকাল থেকে ফের কয়েক জায়গায় পাথর ছুড়ে একদল বিক্ষোভকারী বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছে বলে খবর পাওয়া গিয়েছে৷ মঙ্গলবারও ঘটনার কেন্দ্রস্থল মৌজপুর ও ব্রহ্মপুরী৷ এছাড়া মঙ্গলবার রাতেই গোকুলপুরীতে সোমবার রাতে একটি বাজারে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে খবর মিলেছে৷

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: February 25, 2020, 12:21 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर