‘ও তো ওর বাচ্চাদের জন্য খাবার আনতে গিয়েছিল’, কান্নায় ভেঙে পড়লেন দিল্লির হিংসায় মৃতের ভাই

‘ও তো ওর বাচ্চাদের জন্য খাবার আনতে গিয়েছিল’, কান্নায় ভেঙে পড়লেন দিল্লির হিংসায় মৃতের ভাই

দিল্লিতে অশান্তি চলছেই৷ সোমবার সন্ধ্যের পর থেকে তীব্র আকার ধারণ করা দিল্লির অশান্তি নিয়ে দেশজুড়ে তোলপাড় পড়ে গিয়েছে৷

  • Share this:

#নয়া দিল্লি: দিল্লিতে অশান্তি চলছেই৷ সোমবার সন্ধ্যের পর থেকে তীব্র আকার ধারণ করা দিল্লির অশান্তি নিয়ে দেশজুড়ে তোলপাড় পড়ে গিয়েছে৷ তার মাঝেই উঠে আসছে একের পর এক মর্মান্তিক ছবি৷

সোমবারের ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে মহম্মদ ফারুখ নামে এক ব্যাক্তির৷ তাঁকে চিহ্নিত করার পর তাঁর দাদা জানিয়েছেন, ‘আমি প্রথমে বিশ্বাসই করতে পারিনি এমন ঘটনা ঘটেছে৷ কয়েক ঘণ্টা আগেও আমি ওর সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলাম৷ ও বাড়িতেই ছিল৷ তারপর আমি অফিসে চলে আসি৷ অফিসে বসেই কিছুক্ষণ বাদে একটার পর একটা ফোন পাচ্ছিলাম৷ সকলেই বলে, ভাইয়ের পায়ে গুলি লেগেছে৷ তারপর আমি ভাইকে ফোন করি৷ ও ফোন ধরে না৷ আমার তখন ভয় করছিল৷ তারপর আরও কয়েকজন আমাকে ফোন করে বলেন যে ভাইকে সত্যি জিটিবি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ আমি তারপরেই বেরিয়ে যাই৷ হাসপাতালে গিয়ে দেখি ওর অবস্থা খুব খারাপ৷ আমি ডাক্তারদের বলি, ওকে আমি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাব, যেভাবে হোক বাঁচাবো৷ ডাক্তাররা বলেন, সম্ভব না৷ ও বাঁচবে না৷ বিশ্বাস করুন, ও এসবের কিচ্ছু জানে না৷ বাড়িতে দুটো ছোট্ট বাচ্চা রয়েছে ওর৷ খাবার দাবার ছিল না বলে বাচ্চাদের জন্য খাবার আনতে গিয়েছিল ও৷ ওর সন্তানেরা যে খাবারের জন্য অপেক্ষা করে বসে আছে৷’

দিল্লিতে গতকাল থেকে সিএএ ও এনআরসি বিরোধী যে আন্দোলন শুরু হয়েছে আর সেই আন্দোলনকে ঘিরে যে প্রবল অশান্তি ছড়িয়েছে তা যেন থামতেই চাইছে না৷ এখনও পর্যন্ত আন্দোলনের জেরে সাতজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে৷ মঙ্গলবার সকাল থেকে ফের কয়েক জায়গায় পাথর ছুড়ে একদল বিক্ষোভকারী বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছে বলে খবর পাওয়া গিয়েছে৷ মঙ্গলবারও ঘটনার কেন্দ্রস্থল মৌজপুর ও ব্রহ্মপুরী৷ এছাড়া মঙ্গলবার রাতেই গোকুলপুরীতে সোমবার রাতে একটি বাজারে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে খবর মিলেছে৷

First published: February 25, 2020, 12:18 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर