দেশ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

'মিডিয়া চলে যাবে, আমরাই থাকব', হাতরসের নির্যাতিতার পরিবারকে 'হুমকি' জেলাশাসকের

'মিডিয়া চলে যাবে, আমরাই থাকব', হাতরসের নির্যাতিতার পরিবারকে 'হুমকি' জেলাশাসকের
নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে কথা বলছেন হাতরসের জেলাশাসক৷ Photo- Twitter/Randeep Singh Surjewala

নির্যাতিতার পরিবারের অভিযোগ, হাতরস জেলা প্রশাসনের তরফে তাঁদের হুঁশিয়ারি দিয়ে প্রশ্ন করা হচ্ছে, কেন তাঁরা বার বার বয়ান বদল করছে?

  • Share this:

#হাতরস: হাতরস গণধর্ষণকাণ্ডে প্রথম থেকেই পুলিশের ভূমিকা নিয়ে একাধিক প্রশ্ন উঠছিল৷ এ দিনই উত্তর প্রদেশ পুলিশের এডিজি দাবি করেছেন, নির্যাতিতাকে ধর্ষণই করা হয়নি৷ এবার খোদ হাতরসের জেলাশাসকের বিরুদ্ধেই নির্যাতিতার পরিবারকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠল৷ ইতিমধ্যেই সেই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে৷ জেলাশাসকের বিরুদ্ধে হুমকির অভিযোগ তুলে সেই ভিডিও ট্যুইট করেছেন কংগ্রেস নেতা রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা৷

নির্যাতিতার পরিবারের অভিযোগ, হাতরস জেলা প্রশাসনের তরফে তাঁদের হুঁশিয়ারি দিয়ে প্রশ্ন করা হচ্ছে, কেন তাঁরা বার বার বয়ান বদল করছে? পাশাপাশি সরকারি আধিরিকদের বিরুদ্ধে তাঁকে চাপ দেওয়ার অভিযোগও তুলেছেন নির্যাতিতার বাবা৷ এই অভিযোগ তুলে ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছেন তিনি৷

যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে, হাতরসের দলিত ওই নির্যাতিতার পরিবারের সদস্যদের উদ্দেশে জেলাশাসক প্রবীণ লস্করকে বলতে শোনা যাচ্ছে, 'অর্ধেক সংবাদমাধ্যম আজকে ফিরে গিয়েছে৷ বাকিরা কালকের মধ্যে চলে যাবে৷ একমাত্র আমরাই আপনাদের সঙ্গে থাকব৷ এবার আপনারাই ঠিক করুন আপনারা বার বার বয়ান বদলাবেন না বদলাবেন না, হতে পারে এর পরে আমরাই বদলে গেলাম৷' এই ভিডিও শেয়ার করে কংগ্রেস নেতা রণদীপ সুরজেওয়ালা প্রশ্ন তুলেছেন, 'এটা কি হুমকি নয়?'

যদিও তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগই অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত জেলাশাসক৷ সংবাদসংস্থা এএনআই-কে তিনি জানিয়েছেন, অভিযুক্তদের যাতে ফাঁসির সাজা হয়, সেটাই নিশ্চিত করার চেষ্টা চলছে৷ নির্যাতিতার পরিবারের ভয় দূর করতেই তাঁদের তিনি আশ্বস্ত করার চেষ্টা করেছেন বলেও দাবি করেছেন জেলাশাসক প্রবীণ লস্কর৷

এরই মধ্যে কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধি ট্যুইটারে একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন৷ সেখানে নির্যাতিতার বাবা অভিযোগ করেছেন, থানায় নিয়ে গিয়ে চাপ দিয়ে তাঁদেরকে একটি বয়ানে সই করিয়ে নিয়েছে পুলিশ এবং জেলা প্রশাসন৷ যদিও এতে তাঁরা সন্তুষ্ট নন৷ মেয়ের উপরে নৃশংস নির্যাতনের সঠিক বিচারের জন্য সুপ্রিম কোর্টের কোনও বিচারপতির নজরদারিতে সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছেন নির্যাতিতার বাবা৷ তাঁর আরও অভিযোগ, তাঁদেরকে বাড়িতেই আটকে রাখা হয়েছে, সংবাদমাধ্যমের সঙ্গেও দেখা করতে দেওয়া হচ্ছে না৷

গত ১৪ সেপ্টেম্বর হাতরসে নিজের মায়ের সঙ্গে মাঠে কাজ করার সময় ওই তরুণীর উপর হামলা চালায় চার অভিযুক্ত৷ গণধর্ষণের সময় নৃশংস অত্যাচারে তাঁর শরীরের একাধিক জায়গা ভেঙে যায়, পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয়ে পড়েন ওই নির্যাতিতা৷ এমন কি তাঁর জিভের একাংশও ছিঁড়ে নেওয়া হয় বলে অভিযোগ৷ মঙ্গলবার দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে মৃত্যু হয় ওই তরুণীর৷ এর পর পরিবারের হাতে দেহ না দিয়ে এবং তাঁদের আপত্তি অগ্রাহ্য করেই বুধবার ভোররাতে তড়িঘড়ি নির্যাতিতার দেহ সৎকার করে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে উত্তর প্রদেশ পুলিশের বিরুদ্ধে৷

ওই গ্রামেরই বাসিন্দা উচ্চবর্ণের চার অভিযুক্তকেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ গণধর্ষণের সঙ্গে তাঁদের বিরুদ্ধে এবার খুনের ধারাও যুক্ত করা হয়েছে৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: October 2, 2020, 12:45 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर