corona virus btn
corona virus btn
Loading

Nirbhaya Case: নির্ভয়া গণধর্ষণের দিনই ফাঁসি দোষীদের? তিহারে পৌঁছলেন ফাঁসুড়ে

Nirbhaya Case: নির্ভয়া গণধর্ষণের দিনই ফাঁসি দোষীদের? তিহারে পৌঁছলেন ফাঁসুড়ে
ফাঁসির দড়ি

যদিও তিহার জেলের তরফে আনুষ্ঠানিক ভাবে কিছু জানানো হয়নি এ ব্যাপারে৷ তবে সূত্রের খবর, ১৬ ডিসেম্বর ফাঁসি হতে পারে নির্ভয়া কাণ্ডের দোষীদের৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: তিহার জেলে ফাঁসুড়ে নেই৷ এ দিকে নির্ভয়া গণধর্ষণ ও খুনে দোষীদের ফাঁসির তোড়জোড় শুরু হয়ে গিয়েছে৷ সূত্রের খবর, মিরাট থেকে ফাঁসুড়ে যাবে তিহারে৷ তিহার জেল কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে উত্তরপ্রদেশ ডিজি (কারা)-কে চিঠি পাঠিয়েছে ফাঁসুড়ে চেয়ে৷ মঞ্জুরি এসে গিয়েছে৷ মিরাট থেকেই ফাঁসুড়ে যাচ্ছে তিহার জেলে৷ ফাঁসি হবে নির্ভয়া গণধর্ষণ কাণ্ডে দোষীদের৷ ফাঁসুড়ের নাম পবন৷ অর্থাত্‍ ফাঁসুড়ে পবন ফাঁসি দেবেন নির্ভয়া কাণ্ডের দোষীদের৷

নির্ভয়া কাণ্ডের দোষীরা নির্ভয়া কাণ্ডের দোষীরা

যদিও তিহার জেলের তরফে আনুষ্ঠানিক ভাবে কিছু জানানো হয়নি এ ব্যাপারে৷ তবে সূত্রের খবর, ১৬ ডিসেম্বর ফাঁসি হতে পারে নির্ভয়া কাণ্ডের দোষীদের৷ ২০১২ সালে ওই দিনই দিল্লির রাস্তায় গণধর্ষণ করে নৃশংস অত্যাচার করা হয় নির্ভয়াকে৷ ডিজি (কারা) আনন্দ কুমার জানিয়েছেন, জেল প্রশাসনের তরফে ফাঁসুড়ে চাওয়া হয়েছিল৷ উত্তরপ্রদেশ থেকে জবাব আসে, ৫ ঘণ্টার মধ্যে ফাঁসুড়ে পৌঁছে যাবেন তিহার জেলে৷ বক্সার জেল থেকে এসে গিয়েছে ফাঁসির দড়ি। মহড়াও সারা। এখন শুধু আইনি জটিলতা কাটিয়ে নির্দেশের অপেক্ষা।

ফাঁসুড়ে পবন কে?

মিরাটের বাসিন্দা পবন৷ তাঁকে ফাঁসুড়ে হিসেবে শহরে কেউই চেনেন না৷ ফাঁসুড়ের কাজের পাশাপাশি সাইকেলে লোকের বাড়ি গিয়ে কাপড়-জামা পৌঁছে দেওয়ার কাজ করেন পবন৷ বছর তিনেক আগে নিঠারি হত্যাকাণ্ডের দোষী সুরেন্দ্র কোলিকে ফাঁসি দেওয়ার জন্য ডাক পড়েছিল পবনের৷ তবে পরে ফাঁসি বাতিল হয়ে যায়৷ পবনের বয়স ৫৬ বছর৷

২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর রাতে দিল্লিতে মুনিরকা এলাকায় চলন্ত বাসের ভিতরে ২৩ বছর বয়সি প্যারামেডিক্যাল ছাত্রীকে গণধর্ষণ করে ছয় দুষ্কৃতী। মারা যান ওই ছাত্রী। বিচারে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পরে অভিযুক্তদের মধ্যে পাঁচ জনের ফাঁসির আদেশ দেয় আদালত। এক দুষ্কৃতী নাবালক হওয়ার কারণে জুভেনাইল হোমে বন্দি থাকার পরে মুক্তি পায়। বাকি পাঁচ জনের মধ্যে প্রধান অভিযুক্ত রাম সিং জেলের ভিতরে আত্মহত্যা করে।

Published by: Arindam Gupta
First published: December 12, 2019, 9:48 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर