Khela Hobe: গোধরা-চাল তৃণমূলের, মোদির রাজ্য গুজরাতে 'খেলা হবে'র নিপুণ নকশা মমতার!

যুযুধান

Khela Hobe: তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় যা জানালেন, তাতে গুজরাতে নিপুণ নকশা করে যে খেলা হবে দিবস পালন করছে তৃণমূল, তা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে।

  • Share this:

#কলকাতা: রাজ্যের গণ্ডি ছাড়িয়ে ভিনরাজ্যেও 'খেলা হবে দিবস' পালন করবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) তৃণমূল। পরিকল্পনা মাফিক ১৬ আগস্ট খেলা হবে দিবস। আর সেই সূত্রে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির রাজ্য গুজরাতেও এই দিনটিতে বিশেষ কর্মসূচি পালন করতে চলেছে তৃণমূল। গুজরাটের তৃণমূল নেতা জিতেন্দ্র খাদয়তা আগেই নিউজ18-কে জানিয়েছিলেন, '২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে খেলা হবে দিবসের ডাক দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আমরা এই দিনটি সাড়ম্বরে পালন করব। সব করা হবে করোনা বিধি মেনেই। ইতিমধ্যেই ফুটবল ম্যাচ আয়োজন করা হয়েছে। আমাদের ট্রফি ইতিমধ্যেই প্রস্তুত। খেলা হবে এখন জাতীয় স্লোগানে পরিণত হয়েছে।' আর স্বাধীনতা দিবসের দিন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় যা জানালেন, তাতে গুজরাতে নিপুণ নকশা করে যে খেলা হবে দিবস পালন করছে তৃণমূল, তা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে।

সুখেন্দু শেখর জানিয়েছেন, 'আমরা দারুণ সাড়া পেয়েছি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকে গুজরাতের যুব সম্প্রদায় এগিয়ে এসে গোধরার কলেজ মাঠে খেলার আয়োজন করেছে। সেখানে দুটি দল খেলবে। একটি দলের নাম হবে সুভাষ চন্দ্র বসুর নামে, অপর দলটি খেলবে ভগৎ সিংয়ের নামে। একটি বর্ণময় অধ্যায় তৈরি হবে। ৫০টি ক্লাবের সদস্যরা এতে অংশগ্রহণ করবেন।' স্থানীয় এক তৃণমূল নেতা জানিয়েছেন, 'সমস্ত পরিকল্পনা সাড়া হয়ে গিয়েছে। আমরা অনুমতিও পেয়েছি। এই কর্মসূচির ফলে সাধারণ যুব সম্প্রদায়ও তৃণমূলের হয়ে কাজ করতে এগিয়ে আসবে।'

বাংলা জয়ের পর তৃণমূল নেত্রী দলের সম্প্রসারণের ডাক দিয়েছেন। বারবার বলছেন, তাঁর লক্ষ্য নরেন্দ্র মোদিকে সরানো। সেই ডাকে সাড়া মিলেছে গোটা দেশ থেকেই। গুজরাত, উত্তরপ্রদেশ, ত্রিপুরা, কেরল, তামিলনাড়ু সর্বত্রই সংগঠন গড়ে তোলার চেষ্টা চালাচ্ছে তৃণমূল। ইতিমধ্যে তৃণমূলের ২১ জুলাইয়ের শহিদ দিবসও পালিত হয়েছে বেশ কয়েকটি রাজ্যে। আপাতত এই খেলা হবে দিবসকে সামনে রেখেই মমতা বন্দোপাধ্যায়ের পদধ্বনি আরও জোরালো করতে চাইছে তৃণমূল।

তৃণমূলের এই তৎপরতাকে অবশ্য আমল দিতে রাজি নয় বিজেপি। তাঁদের দাবি, এটি নিছকই তৃণমূলের প্রদর্শনকামিতা। বাস্তবে তাঁরা কিছুই করতে পারবেনা। ১৬ অগস্ট 'খেলা হবে দিবস' নিয়ে জোরালো বিরোধিতা জানিয়ে ইতিমধ্যেই রাজ্যপালের দ্বারস্থ হয়েছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। কিন্তু এই তৎপরতা দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই সর্বভারতীয় স্তরের পরিকল্পনা রোখা যাবে কিনা তা লাখ টাকার প্রশ্ন।

আসলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চাইছেন তাঁর এই স্লোগান পৌঁছে যাক দিল্লির বিজেপি নেতাদের কানেও। তিনি নিজেই জানিয়েছেন, "১৬ অগস্ট ১ লক্ষ ফুটবল বিতরণ করা হবে। বেশ কয়েকটি রাজ্যে আমরা খেলব।" সেই তালিকায় গুজরাতের নাম শীর্ষে থাকাটা তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Published by:Suman Biswas
First published: