• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • GST RATE CUT ON OVER 200 ITEMS HERES A LIST OF WHAT GOT CHEAPER

একধাক্কায় ১৭৮টি পণ্যের ওপর জিএসটির হার কমালো কেন্দ্র, কোন কোন জিনিস সস্তা হচ্ছে দেখে নিন

Representative image. (Network18 Creatives)

শুক্রবারে এল সুখবর। একধাক্কায় অধিকাংশ পণ্যে জিএসটি কমানোর সিদ্ধান্ত জিএসটি কাউন্সিলের। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ২৮ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১৮ শতাংশ হল জিএসটি।

  • Share this:
    #নয়াদিল্লি: শুক্রবারে এল সুখবর। একধাক্কায় অধিকাংশ পণ্যে জিএসটি কমানোর সিদ্ধান্ত জিএসটি কাউন্সিলের। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ২৮ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১৮ শতাংশ হল জিএসটি। অন্য কয়েকটি পণ্যের ক্ষেত্রেও কমল করের ভার। ঘর সাজানোর জিনিস, আসবাব, শ্যাম্পু, শেভিং ক্রিমের মতো পণ্যের ওপর কর কমছে। সস্তা হচ্ছে নিত্যপ্রয়োজনীয় বহু পণ্যও । রেস্তরাঁয় মাত্র ১৮ থেকে ৫ শতাংশ করেও চমক জিএসটি কাউন্সিলের। ১৫ নভেন্বর থেকে চালু নয়া কর-হার। জিএসটি নিয়ে অব্যবস্থার মুখে পড়ে নরম অবস্থান কেন্দ্রের। একধাক্কায় ১৭৮টি পণ্যে জিএসটির হার কমল। এই পণ্যগুলোতে জিএসটি ২৮ শতাংশ থেকে কমে দাঁড়াল ১৮ শতাংশ। অন্য বেশ কিছু পণ্যেও করের ভার অনেকটাই কমানোর ঘোষণা হল। ১৫ নভেন্বর থেকে চালু নয়া কর-হার। ভার কমল জিএসটির ১৮ থেকে ১২% - জিএসটি কমল ১৩ পণ্যের দাম কমল আসবাব, গৃহস্থালীর সরঞ্জাম, কুকওয়ারের -- ১৮ থেকে ৫% দাম কমল ৬ পণ্যের দাম কমল প্যাকেটজাত খাবার, কচুরি, খোলা মাখন ও চিজ, শ্রীখণ্ড, মোতিবাগের মত মিষ্টির তালিকায় রাস্তা তৈরির সরঞ্জামও --- ১২ থেকে ৫% ৮ টি পণ্যের দাম কমল দাম কমল রান্নার সরঞ্জাম, রুমাল, ঘরোয়া পদ্ধতিতে তৈরি পোষাক , কম দামের সাবান ও শ্যাম্পু --- ৫ থেকে ০‍% ৬টি পণ্যে দাম কমল পুজোর সামগ্রী, ধূপকাঠি, হাতে তৈরি মোমবাতি সবোর্চ্চ করের আওতায় থাকা ৬২ টি পণ্যের করহার কমানোর সুপারিশ করেছিল জিএসটি কাউন্সিলের বিশেষ ক্ষমতাসম্পন্ন মন্ত্রিগোষ্ঠী। কেন্দ্রের সিদ্ধান্তে কর কমছে দুশোরও বেশি পণ্যে। সস্তা হচ্ছে -শেভিং ক্রিম ও আফটার শেভ -মহিলাদের প্রসাধন -ডিওডোরান্ট -গ্রানাইট ও মার্বেল -ঘর সাজানোর জিনিস -যে কোনও ধরণের আসবাব - সব ধরণের চকোলেট ও চুইং গাম একমাত্র বিলাসবহুল হোটেল, স্পা, সিগারেট, এয়ার কন্ডিশনার ও ওয়াশিং মেশিনেই মতো পণ্যেই চালু থাকছে ২৮ শতাংশ জিএসটি। ১ জুলাই জিএসটি চালুর পর এনিয়ে ৪ বার করের হারে পরিবর্তন হল। গত কয়েক মাসে বারবার মুথ থুবড়ে পড়েছে জিএসটি পোর্টাল। রিটার্ন দাখিলে সমস্যায় পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। শুক্রবারের বৈঠকে এব্যাপারে চাপের মুখে কার্যত তা মানতে হয় কেন্দ্রকে। পরিস্থিতি অনুযায়ী যে করের হারে পরিবর্তন হবে, তা প্রথম থেকেই ঠিক ছিল। জিএসটি পোর্টালকে আরও নিখুঁত করার কাজ চলছে। সেজন্য সামান্য কিছু সমস্যা হতে পারে। তবে এটা সাময়িক। গুজরাত ভোটের দিকে তাকিয়েই কি ছাড়? এর জেরে ২০ হাজার কোটির রাজস্ব হারাবে কেন্দ্র। কিভাবে সেই ক্ষতিপূরণ হবে? অর্থমন্ত্রীর ঘোষণায় তার উল্লেখ নেই।
    First published: