Home /News /national /
GST: জিএসটি কাউন্সিলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে, সুপ্রিম কোর্টের মন্তব্য়ে নতুন দিগন্ত

GST: জিএসটি কাউন্সিলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে, সুপ্রিম কোর্টের মন্তব্য়ে নতুন দিগন্ত

GST: ২০১৭ সালের ১৭ জুলাই জিএসটি চালু করে মোদি সরকার। তার এক বছরের মধ্যেই প্রতি চারটি সামগ্রির একটির ওপর জিএসটির হার কমিয়ে দেয়।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি:  পণ্য ও পরিষেবা কর সংক্রান্ত মামলার শুনানিতে কেন্দ্র-রাজ্য সম্পর্কের কথা তুলে ধরল সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতির ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়-এর বেঞ্চ জানিয়েছে, ভারতে কেন্দ্র এবং রাজ্যের মধ্যে সম্পর্ক সহযোগিতামূলক যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামো। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, জিএসটি কাউন্সিল রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় কারওর কাছে বিশেষভাবে দায়বদ্ধ নয়। বিচারপতি রায়ে জানিয়েছেন, সংসদের পাশাপাশি রাজ্য বিধানসভা ও এ বার থেকে জিএসটি সংক্রান্ত আইন তৈরি করতে পারবে।

আরও পড়ুন -  কলকাতায় হঠাৎই প্রবল ঝড়-বৃষ্টির আশঙ্কা! সপ্তাহ শেষে আমূল পাল্টে যেতে পারে আবহাওয়া

বেঞ্চ মন্তব্য করে, ভারতে যুক্তরাষ্ট্রীয় ব্যবস্থা এমনভাবে তৈরি, যেখানে আলোচনাই মূল পথ। কেন্দ্র ও রাজ্যের মধ্যে আলোচনার মধ্য দিয়ে কাজ হয় ভারতে। বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়ের বেঞ্চ আরও জানিয়ে দিয়েছে, কার্যকরী সমাধানসূত্র বের করতে জিএসটি কাউন্সিলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।সমুদ্রপথে ভারী পণ্য পরিবহনের ক্ষেত্রে জিএসটি ধার্য করার বিরোধিতা করে মামলা দায়ের হয় বিভিন্ন আদালতে। ২০১৭ সালে এই কর ব্যবস্থা চালু হওয়ার পর থেকেই মামলা চলছিল। এর আগে গুজরাট হাইকোর্ট এই কর ব্যবস্থা খারিজ করে দেয়। তারই বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টে বিশেষ অবকাশকালীন বেঞ্চের দ্বারস্থ রাজস্ব দপ্তর। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, জিএসটি কাউন্সিলের বিরুদ্ধে এর আগে একাধিকবার ক্ষোভ উগরে দিয়েছে বিরোধী শাসিত রাজ্য গুলো। কেন্দ্রীয় সরকার জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামো না মেনে রাজ্য গুলোর উপরে তাদের সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সে দিক থেকে এদিনের রায় তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

আরও পড়ুন : ৪ ঘণ্টার জেরা শেষে নিজাম প্যালেস ছাড়লেন অনুব্রত! ফের কেন গেলেন এসএসকেএম? 

২০১৭ সালের ১৭ জুলাই জিএসটি চালু করে মোদি সরকার। তার এক বছরের মধ্যেই প্রতি চারটি সামগ্রির একটির ওপর জিএসটির হার কমিয়ে দেয়। জিএসটির পাঁচটি কাঠামোয় থাকা মোট ১ হাজার ২১১টি সামগ্রির মধ্যে ৩৫০টি সামগ্রির জিএসটির হার কমিয়ে দেয়। এই সিদ্ধান্তের ফলে এক বছরে ৭০ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে কেন্দ্রের তরফে।

ইতিমধ্যেই  ১৪৩টি সামগ্রির ওপর ধার্য করা জিএসটি বাড়ানোর প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে রাজ্যগুলিকে। পরোক্ষ কর সম্পর্কিত গর্ভনিং বডির তরফে এই প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

RAJIB CHAKRABORTY

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: GST

পরবর্তী খবর