• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • অভিন্ন করব্যস্থা চালুর পথ প্রশস্ত, ভোটাভুটির পর পাশ GST বিল

অভিন্ন করব্যস্থা চালুর পথ প্রশস্ত, ভোটাভুটির পর পাশ GST বিল

রাজ্যসভায় পাশ হল জিএসটি বিল। কংগ্রেস ছাড়া অন্যান্য আঞ্চলিক দলগুলির সমর্থনে বহু প্রতীক্ষিত এই বিল পাশ হল বুধবার।

রাজ্যসভায় পাশ হল জিএসটি বিল। কংগ্রেস ছাড়া অন্যান্য আঞ্চলিক দলগুলির সমর্থনে বহু প্রতীক্ষিত এই বিল পাশ হল বুধবার।

রাজ্যসভায় পাশ হল জিএসটি বিল। কংগ্রেস ছাড়া অন্যান্য আঞ্চলিক দলগুলির সমর্থনে বহু প্রতীক্ষিত এই বিল পাশ হল বুধবার।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: রাজ্যসভায় পাশ হল জিএসটি বিল। কংগ্রেস ছাড়া অন্যান্য আঞ্চলিক দলগুলির সমর্থনে বহু প্রতীক্ষিত এই বিল পাশ হল বুধবার। শুধু এআইডিএমকে সাংসদরা ওয়াকআউট করেন। এই বিল পাশের মাধ্যমে দেশজুড়ে অভিন্ন করব্যবস্থা চালুর পথ প্রশস্ত হল। কংগ্রেসের আপত্তি দূর করে তাদের পাশে এনেছিল কেন্দ্র। তামিলনাড়ু ছাড়া সব রাজ্য সমর্থনের কথা ঘোষণা করেছিল। তাই বুধবার রাজ্যসভায় জিএসটি বিল পাশ হওয়া ছিল সময়ের অপেক্ষা। প্রত্যাশা মতো ১২২ তম সংবিধান সংশোধন বিল পাশ হল। দেশজুড়ে অভিন্ন করব্যবস্থা চালুর পথ প্রশস্ত হল এই বিল পাশের মাধ্যমে। আলাদা আলাদা একগুচ্ছ কর নয়, সব পণ্য কিনতে ও পরিষেবা পেতে দিতে হবে একটাই কর। কংগ্রেসের আপত্তি বিল পাশে সবচেয়ে বড় বাধা ছিল এনডিএ সরকারের। তাদের তিনটি দাবির দুটি মেনে নেয় কেন্দ্র। তবে বিলে করের সর্বোচ্চ হার বেধে দিতে রাজি হননি জেটলি। এদিন বিল পেশ করার সময়ই সব দলের সাংসদরা কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীকে স্বাগত জানান। কংগ্রেসের হয়ে বিতর্কে অংশ নেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম। এদিন রাজ্যসভায় ব্যতিক্রম শুধু এআইডিএমকে। তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী জিএসটি নিয়ে আপত্তি তুলেছিলেন, তাই এদিন ওয়াকআউট করেন এআইডিএমকে সাংসদরা। ভোটদানকারী ২০৩ সদস্যের প্রত্যেকের সমর্থন ছিল জিএসটি বিলে। প্রায় সর্বাত্মক ঐকমত্যের ভিত্তিতে বিল পাশ হওয়ায় সব দলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তৃণমূল কংগ্রেস অনেক আগেই বিলে সমর্থনের কথা ঘোষণা করেছিল। যদিও ডান-বাম সবপক্ষেই কিছুটা সংশয়ের সুর। রাজ্যগুলিকে বিক্রয়কর বাবদ প্রাপ্য মিটিয়ে দেবে কেন্দ্র যাতে তারা আর্থিক ক্ষতির মুখে না পড়ে। তবে বিল পাশ মানে পরের দিন থেকেই অভিন্ন করব্যবস্থা কার্যকর হবে, তা নয়। অর্থবছরের গোড়ায় চালু হতে পারে পণ্য পরিষেবা। অথবা তা কার্যকর করা যেতে পারে যে কোনও মাস থেকেই। এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রক।

    First published: