Home /News /national /
East Burdwan || নৃশংস! পোশাক কেনার টাকা না দেওয়ায় দাদুকে খুন নাতির, তদন্ত শুরু

East Burdwan || নৃশংস! পোশাক কেনার টাকা না দেওয়ায় দাদুকে খুন নাতির, তদন্ত শুরু

প্রতীকী ছবি৷

প্রতীকী ছবি৷

East Burdwan || দাবি মতো শেরওয়ানি কিনে দেবার টাকা না পেয়ে দাদুকে প্রাণে মেরে ফেলার অভিযোগ উঠল নাতির বিরুদ্ধে।

  • Share this:

    #বর্ধমান: নাতির হাতে নৃশংসভাবে খুন হতে হল এক বৃদ্ধকে। যা রীতিমতো শিউরে দেওয়ার মতো৷ শেরওয়ানি কিনে দেবার টাকা না পেয়ে দাদুকে প্রাণে মেরে ফেলার অভিযোগ উঠল নাতির বিরুদ্ধে। বর্ধমানের এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। মৃতের নাম শশাঙ্কশেখর দত্ত (৭৩)। বর্ধমান থানার সরাইটিকর আমতলা এলাকার ঘটনা। অভিযুক্ত নাতি অনিরুদ্ধ দত্ত ও তার বাবা ফাল্গুনী দত্তকে পুলিশ আটক করেছে।

    আরও পড়ুন: হরিদেবপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে বালকের অসহায় মৃত্যু, চূড়ান্ত গাফিলতির ইঙ্গিত রিপোর্টে!

     পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শশাঙ্কবাবু কোলিয়ারীর অবসর প্রাপ্ত কর্মী। প্রায়ই ছোটখাটো বিষয় নিয়ে শশাঙ্কশেখর দত্তকে তাঁর ছেলে ফাল্গুনী দত্ত ও নাতি অনিরুদ্ধ দত্ত মারধর করত বলে অভিযোগ। বুধবার রাত ১০টা ৩০ মিনিট নাগাদ বাড়িতে চিৎকারের শব্দ শুনে প্রতিবেশীরা জানালা দিয়ে দেখেন শশাঙ্কশেখর দত্ত রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন।দরজা তখন ভিতর থেকে বন্ধ ছিল। প্রতিবেশীরা দরজা খুলতে বললেও না খোলায় দরজা ভেঙে তারা ভিতরে ঢোকেন। এরপর তাঁরা বর্ধমান থানার পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে শশাঙ্কশেখর দত্তকে বর্ধমান হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করে।পুলিশ সামগ্রিক ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

    জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শশাঙ্কশেখর দত্তের ছেলে ফাল্গুনী দত্ত ও নাতি অনিরুদ্ধ দত্তকে পুলিশ আটক করেছে। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, দেওয়ালে মাথা ঠুকে মারা হয়েছে। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে নাতি দাদুকে মারার কথা স্বীকার করেছে। শেরওয়ানি কেনার টাকা না দেওয়ায় এই খুন বলে পুলিশ জেরায় জানতে পেরেছে। মৃতের ছেলেও এই খুনের সঙ্গে যুক্ত আছে কিনা তা জানার জন্য জিজ্ঞাসাবাদ করছে বর্ধমান থানার পুলিশ।

    Published by:Rachana Majumder
    First published:

    Tags: East Burdwan

    পরবর্তী খবর