জাতীয়তাবিরোধী কার্যকলাপ পর্যবেক্ষণ করার জন্য সাইবার যোদ্ধা খুঁজছে ভারত সরকার!

জাতীয়তাবিরোধী কার্যকলাপ পর্যবেক্ষণ করার জন্য সাইবার যোদ্ধা খুঁজছে ভারত সরকার!

এই প্রকল্প ঠিক কতটা সফল হয় বা ভারতীয় নাগরিকদের কাছ থেকে এই বিষয়ে ঠিক কতটা সাড়া পাওয়া যায় সেটা দেখার জন্য আপাতত ত্রিপুরা ও জম্মু-কাশ্মীর এই দু'টি রাজ্যে এই প্রকল্প চালু হয়েছে।

এই প্রকল্প ঠিক কতটা সফল হয় বা ভারতীয় নাগরিকদের কাছ থেকে এই বিষয়ে ঠিক কতটা সাড়া পাওয়া যায় সেটা দেখার জন্য আপাতত ত্রিপুরা ও জম্মু-কাশ্মীর এই দু'টি রাজ্যে এই প্রকল্প চালু হয়েছে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি:  যদিও বিষয়টি বিতর্কিত, কিন্তু এই মুহূর্তের সব চেয়ে আলোচিত ও চর্চিত খবর। ভারতের গৃহমন্ত্রক এখন এমন কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবক খুঁজছেন যাঁরা সরকারকে বিভিন্ন জাতীয়তাবিরোধী পোস্ট সম্পর্কে সচেতন করবে। অর্থাৎ সোশ্যাল মিডিয়ায় যদি এমন কোনও পোস্ট কেউ করেন যা দেশের ঐক্য ও সংস্কৃতির বিরোধী, সেটা তাৎক্ষণিক সরকারের কাছে রিপোর্ট করবেন এই সাইবার যোদ্ধারা। আর এই কাজে সমগ্র দেশবাসীর কাছেই আহ্বান জানিয়েছেন ভারত সরকার। অর্থাৎ যে কোনও ভারতীয় নাগরিক এই কাজে সরকারকে সাহায্য করতে পারবেন।

এই প্রকল্প ঠিক কতটা সফল হয় বা ভারতীয় নাগরিকদের কাছ থেকে এই বিষয়ে ঠিক কতটা সাড়া পাওয়া যায় সেটা দেখার জন্য আপাতত ত্রিপুরা ও জম্মু-কাশ্মীর এই দু'টি রাজ্যে এই প্রকল্প চালু হয়েছে।

এই প্রকল্পের অন্তর্গত গৃহমন্ত্রকের ইন্ডিয়ান সাইবার ক্রাইম কোঅরডিনেশন সেন্টার এখানে পুরো বিষয়টির তত্ত্বাবধান করার জন্য থাকবেন। যাঁরা এই কাজে সরকারকে সহায়তা করার জন্য স্বেচ্ছাসেবক হতে চান, তাঁরা নিজেদের রাজ্যের নাম দিয়ে নথিভুক্ত করবেন। ভারত এক বিশাল ও বিস্তৃত দেশ। তাই কোন অঞ্চল বা রাজ্য থেকে স্বেচ্ছাসেবকরা কাজ করবেন সেটা জানার জন্যই এই নথিভুক্তিকরণ।

কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে যে এই স্বেচ্ছাসেবকরা আদতে ঠিক কী ভাবে কাজ করবেন? এই বিষয়ে বিস্তারে বর্ণনা দিয়ে দিয়েছে ভারতের গৃহমন্ত্রক। এখানে ভারতীয় নাগরিকদের হাতে কিছু বিশেষ ক্ষমতা তুলে দিচ্ছে ভারত সরকার। যদি কোনও স্বেচ্ছাসেবক দেখেন বা তাঁর মনে হয় সোশ্যাল মিডিয়ার কোনও পোস্ট বা ছবি বা যে কোনও কন্টেন্ট ভারতের সার্বভৌমত্বের বিরোধী, তাহলে সেটা তাঁরা সরকারকে জানাতে পারবেন। এমন কোনও লেখা বা ছবি যা ভারতের ঐক্য ও সংস্কৃতিকে কালিমালিপ্ত করে, সেটাও রিপোর্ট করা যাবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে জাতীয় কংগ্রেসের তরফ থেকে রাহুল গান্ধীও (Rahul Gandhi) সম্প্রতি টুইট করেছেন যে তাঁরাও এরকম সাইবার যোদ্ধা খুঁজছেন যাঁরা এই জাতীয় কাজ করতে পারেন। তবে যাঁরা এই সাইবার ক্রাইম যোদ্ধা হিসেবে কাজ করবেন তাঁরা এর বিনিময়ে কোনও অর্থ চাইতে পারবেন না বা নিজেদের নাম ব্যবহার করতে পারবেন না। তবে স্বেচ্ছাসেবকরা যে শুধু জাতীয়তা বিরোধী কার্যকলাপ পর্যবেক্ষণ করবেন তা নয়, মহিলা, শিশু ও বয়স্কদের মধ্যে সাইবার সচেতনতার প্রসারেও সাহায্য করবেন।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: