corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘‌সামান্য় জ্বর, ভগবানই সারাবেন রোগ।’‌, দিল্লি ফেরতদের খুঁজতে এসে শুনতে হল পুলিশকে

‘‌সামান্য় জ্বর, ভগবানই সারাবেন রোগ।’‌, দিল্লি ফেরতদের খুঁজতে এসে শুনতে হল পুলিশকে

ক'দিন ধরে করোনা সন্দেহভাজনদের খুঁজতে হয়রান হয়েছে পুলিশ

  • Share this:

#‌বেঙ্গালুরু:‌ ‘‌ঈশ্বরই বাঁচাবেন। তাঁর জন্যই এ রোগ হয়েছে, তার জন্যই এ রোগ সেরে যাবে।’‌ এমনই কথা শুনতে হল এক আইপিএস অফিসারকে। দিল্লির নিজামউদ্দিন দরগা থেকে তিনি গিয়েছিলেন এমন কয়েকজনের সন্ধানে বেঙ্গালুরুর এই পুলিশ অফিসার ঘুরছিলেন হন্যে হয়ে। আর সেই কাজেই তাঁকে এককথায় হয়রান হতে হল। কয়েকদিন ধরে এই লোকগুলির খোঁজ পেতে তো সমস্যা ছিলই। কিন্তু খোঁজ পাওয়ার পর, তাঁদের কোয়ারেন্টাইন করা এবং পরীক্ষার জন্য রাজি করানো ছিল আরও কঠিন কাজ। সেই কারণেই শারীরিক ও মানসিকভাবে প্রায় ভেঙে পড়েছিলেন বেঙ্গালুরু পুলিশের এই আইপিএস অফিসার। কয়েক সপ্তাহ ঘুম হয়নি তাঁর। সারাদিন শুধু সন্দেহভাজনদের খুঁজে বার করতে তাঁর সময় কেটে গিয়েছে। সন্ধান করতে গিয়ে একের পর এক আশ্চর্য অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন এই পুলিশ আধিকারিক।

তিনি News18‌‌–কে জানিয়েছেন, কয়েকজন জেনেশুনে শুধুমাত্র ঠান্ডা লেগে জ্বর হয়েছে বলে পুলিশকে এড়িয়ে যেতে চেষ্টা করছিলেন। কয়েকজন আবার বলছিলেন, রোগ দিয়েছেন ঈশ্বর, এই রোগ তিনিই সারাবেন। কেউ কেউ আবার পুলিশের কাছাকাছি আসেননি। তাঁদের ভয় ছিল, তাঁরা বুঝি আইনি কোন জটিলতার মধ্যে পড়ে যাবেন। তিনি জানিয়েছেন, অনেকেই ভাবছিলেন দিল্লি থেকে ফেরার কারণে তাঁদের বিরুদ্ধে পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেবে। সেই ভয়েই অনেকে কথাই বলতে চাননি।

এই হাজার ভুল ধারণার কারণে পুলিশের কাজ কঠিন থেকে কঠিনতর হয়েছে। স্থানীয় এক মসজিদে গিয়ে যখন পুলিশ সামান্য কিছু তথ্যাদি সংগ্রহ করতে চেয়েছে, সেখানেও প্রথমে সাহায্য করা হয়নি। বলা হয়েছে, কেউ এখান থেকে দিল্লি যায়নি। তারপরে পুলিশ যখন প্রমাণ দেখিয়েছে, তখন বলা হয়েছে এদের তো শুধুমাত্র ঠান্ডা লেগে জ্বর হয়েছে। যদিও সবাই তেমন নয়, কেউ কেউ এগিয়ে এসেছেন। সঠিক তথ্য দিয়েছেন এবং পুলিশের সঙ্গে সহযোগিতা করেছেন। আর সেই কারণেই একটা ‌সময়ের পর গিয়ে কাজটা কিছুটা হলেও সহজ হয়েছে পুলিশের জন্য।

লকডাউন ঘোষিত হওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন অংশে অপরাধ প্রবণতা কমে গিয়েছে। কিন্তু তাতে পুলিশের কাজ কমেনি। বরং এখন মাথাব্যথা অনেক বেশি। লোকে এখন ভাবছে, পুলিশ গিয়ে যদি বাইরে থেকে আগত কারোর খোঁজ করে বা তাঁকে কোয়ারেন্টাইন করে। তাহলে বুঝি তাঁর আইনি জটিলতায় পড়তে হবে। কিন্তু ঘটনাটা তেমন নয়, এটা বুঝতেই অনেকটা সময় চলে যাচ্ছে।

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: April 2, 2020, 3:27 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर