• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • গোয়া ঘুরতে যেতে চান, নজর দিন নতুন ট্যুরিজম পলিসিতে

গোয়া ঘুরতে যেতে চান, নজর দিন নতুন ট্যুরিজম পলিসিতে

এই পরিস্থিতিতে আপনি যদি গোয়ার উদ্দেশে পাড়ি দিতে চান, তাহলে একবার চোখ বুলিয়ে নিতে পারেন নতুন ট্যুরিজম পলিসিতে।

এই পরিস্থিতিতে আপনি যদি গোয়ার উদ্দেশে পাড়ি দিতে চান, তাহলে একবার চোখ বুলিয়ে নিতে পারেন নতুন ট্যুরিজম পলিসিতে।

এই পরিস্থিতিতে আপনি যদি গোয়ার উদ্দেশে পাড়ি দিতে চান, তাহলে একবার চোখ বুলিয়ে নিতে পারেন নতুন ট্যুরিজম পলিসিতে।

  • Share this:

    করোনা আর দীর্ঘ লকডাউনে পর্যটন স্থানগুলি প্রায় জনশূন্য ছিল এতদিন। এবার ধীরে ধীরে সবকিছু খুলছে। নিউ-নর্ম্যালে বাঁচতে শুরু করেছে মানুষজন। নানা বিধি-নিষেধ বহাল রেখেই সাধারণের জন্য খুলে যাচ্ছে পর্যটন স্থানগুলির দ্বার। এই পরিস্থিতিতে আপনি যদি গোয়ার উদ্দেশে পাড়ি দিতে চান, তাহলে একবার চোখ বুলিয়ে নিতে পারেন নতুন ট্যুরিজম পলিসিতে। এক্ষেত্রে গোয়ার ইতিহাস, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য সহ সামগ্রিক ক্ষেত্রের স্বাদ পাবেন আপনি। শুধু সমুদ্রের তট নয় গোয়াকে উপভোগ করবেন সম্পূর্ণরূপে। বলা ভালো এক নতুন আঙ্গিকে।

    পর্যটন দপ্তর সূত্রে খবর, গোয়া ট্যুরিজমকে রিব্র্যান্ড ও রিমার্কেট করতেই এই নতুন নিয়ম-নীতির রূপায়ণ। গোয়ার ইতিহাস হোক বা সংস্কৃতি সমস্ত দিক থেকে আকর্ষণীয় ও তাৎপর্যপূর্ণ স্থানগুলিকে তুলে ধরা হয়েছে নতুন এই পলিসিতে। এর পাশাপাশি সস্তা, নির্ভরযোগ্য, দ্রুত ও আরামদায়ক পরিবহন পরিষেবা নিয়েও তথ্য দেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে অতি-পরিচিত সমুদ্র তটগুলি থেকে একটু সরে গিয়ে গোয়ার জঙ্গল, ইকো-ট্যুরিজমের উপর বেশি করে নজর দেওয়া হয়েছে। তুলে ধরা হয়েছে গোয়ার ঐতিহ্যশালী স্থানগুলিকে এবং উপকূলবর্তী বহু অজানা এলাকাকে।

    গোয়া পর্যটন দপ্তরের একাংশ জানাচ্ছে, নতুন এই নীতি রূপায়ণের মূল লক্ষ্য হল, আগামী চার বছর গোয়াকে পর্যটন স্থান হিসেবে জনপ্রিয় করে তোলা এবং অধিকাংশ মানুষ যাতে গোয়ার প্রতি আকর্ষিত হয়, সেই বিষয়টি সুনিশ্চিত করা। বেশ কয়েকটি নতুন পর্যটন স্থানকেও এবার সামনে আনা হচ্ছে। যাতে ভ্রমণ পিপাসুরা গোয়াকে আরও নতুন করে ও বিস্তৃত পরিসরে জানতে পারে। এর পিছনে আরও একটি উদ্দেশ্য হল, কর্মসংস্থান। নতুন পর্যটন স্থান গড়ে তোলার পাশাপাশি প্রচুর মানুষের কর্মসংস্থানের দরজাও খুলে যাবে। এক্ষেত্রে শুধু গোয়াই নয়, আশপাশের রাজ্যের মানুষজনও কাজে যোগ দিতে পারবেন। এতে করোনা পরবর্তী বিধ্বস্ত পর্যটন কিছুটা হলেও ঘুরে দাঁড়াবে।

    প্রসঙ্গত, শিয়রে করোনা থাকলেও গোয়ার উৎসবে বা উদযাপনে তেমন কোনও ত্রুটি রাখা হচ্ছে না। গোয়া পর্যটনের একাংশ জানাচ্ছে, এবার ছোটো করেই বড়দিনের আয়োজন করা হবে গোয়ায়। করোনায় সামাজিক দূরত্ববিধি, প্রাথমিক স্বাস্থ্যবিধি সর্বোপরি স্থানীয় মানুষজনের সামগ্রিক স্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করেই স্থানীয় প্রশাসন ও চার্চগুলির তরফে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে এখনও পর্যটকদের ভ্রমণের ক্ষেত্রে কোনও বিধিনিষেধ বা গাইডলাইন বেঁধে দেওয়া হয়নি।

    Published by:Elina Datta
    First published: