Home /News /national /
লাগবে না প্লাস্টিক, সামান্য শসার খোসাতেই কেল্লাফতে, অসাধ্য সাধন করে দেখালেন এই বাংলার বিজ্ঞানীরা

লাগবে না প্লাস্টিক, সামান্য শসার খোসাতেই কেল্লাফতে, অসাধ্য সাধন করে দেখালেন এই বাংলার বিজ্ঞানীরা

৫. শসা ব্যবহার করা যেতে পারে শসা ত্বককে ঠাণ্ডা রাখতে সাহায্য করে। ত্বক স্মুদ করে। শসার রস সরাসরি ক্ষতস্থানে লাগানো যেতে পারে। তা না হলে, শসার রস বরফের সঙ্গে লাগালেও উপশম মিলবে। এ ছাড়াও শসার বিভিন্ন প্যাক বা টোনার লাগালেও উপশম মিলতে পারে।

৫. শসা ব্যবহার করা যেতে পারে শসা ত্বককে ঠাণ্ডা রাখতে সাহায্য করে। ত্বক স্মুদ করে। শসার রস সরাসরি ক্ষতস্থানে লাগানো যেতে পারে। তা না হলে, শসার রস বরফের সঙ্গে লাগালেও উপশম মিলবে। এ ছাড়াও শসার বিভিন্ন প্যাক বা টোনার লাগালেও উপশম মিলতে পারে।

শসার খোসাই হয়ে উঠতে পারে বিকল্প। কী ভাবে!

  • Share this:

    #খড়্গপুর: প্লাস্টিক ব্যবহার করবেন না, নাগরিক দেওয়ালে-হোর্ডিংয়ে গোটা গোটা অক্ষরে লেখা। কিন্তু ব্যবহার কি আটকানো যাচ্ছে? সহজ উত্তর, বিকল্পটা কী? এবার পরিবেশ-বান্ধব এক অভূতপূর্ব এক বিকল্পের সন্ধান দিয়ে দিল খড়্গপুর আইআইটি।

    আইআইটির গবেষকরা বলছেন, শসার খোসাই হয়ে উঠতে পারে এই বিকল্প। কী ভাবে! তাঁরা দেখাচ্ছেন, শসার খোসায় প্রচুর পরিমাণে সেলুলোজ রয়েছে। এই সেলুলোজ ন্যানোক্রিস্টাল ব্যবহার করে একধরনের ফুড প্যাকেজিং মেটেরিয়াল তৈরি করেছেন এই গবেষকরা। তাঁরা জানাচ্ছেন এই নয়া বস্তুটি একই সঙ্গে বায়োডিগ্রেডেবল এবং নিরাপদও।

    আইআইটি খড়্গপুরের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর, এই গবেষণার শরিক জয়িতা মিত্র বলছেন, " অনেকেই একবার ব্যবহার করা যায় এমন প্লাস্টিক ত্যাগ করেছে। কিন্তু ফুড প্যাকেজিংয়ের ক্ষেত্রে এর বিকল্প নেই বললেই চলে। কারণ প্রাকৃতিক বাইপলিমারগুলি বাজার ধরতে পারেনি। তার নানা কারণও রয়েছে, যেমন দৃশ্যমানতা, স্থিতিস্থাপকতা ইত্যাদি।"

    আর এখানেই তাদের উদ্ভাবনটি গুরুত্বপূর্ণ মনে করছেন জয়িতাদেবী। তাঁর কথায়, এখানে শসা খেয়ে বা রান্নায় দিয়ে সর্বত্রই খোসাটা ফেলে দেওয়া হয়। এই জৈব অবশিষ্টটিতে প্রচুর সেলুলোজ রয়েছে। এই সেলুলোজ, হেমিসেলুলোজ, পেক্টিন ব্যবহার করেই আমরা নতুন এক বায়ো মেটেরিয়াল তৈরি করেছি যা ভালো কাজে আগামিদিনে সাহায্য করবে।

    Published by:Arka Deb
    First published:

    Tags: Bio waste, Go Green, IIT, Plastic

    পরবর্তী খবর