corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনে বড় ধাক্কা, অভূতপূর্ব অর্থনৈতিক মন্দার রাস্তায় হাঁটা শুরু দেশের

লকডাউনে বড় ধাক্কা, অভূতপূর্ব অর্থনৈতিক মন্দার রাস্তায় হাঁটা শুরু দেশের
Photo- File

জুন ত্রৈমাসিকে ভারতের জিডিপি ৪৫ শতাংশ কমবে। ২০২০-২১ অর্থবর্ষে মোট আভ্যন্তরীণ উৎপাদন ৫ শতাংশ কমার সম্ভাবনা।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: লকডাউন এফেক্ট। অভূতপূর্ব আর্থিক সংকটের মুখোমুখি ভারত। মার্কিন বিনিয়োগ বিশেষজ্ঞ সংস্থা গোল্ডম্যান স্যাকসের দাবি, এপ্রিল থেকে জুন ত্রৈমাসিকে ভারতের জিডিপি ৪৫ শতাংশ কমবে। ২০২০-২১ অর্থবর্ষে মোট আভ্যন্তরীণ উৎপাদন ৫ শতাংশ কমার সম্ভাবনা। এটা সত্যি হলে, এত বড় আর্থিক সংকট আর কখনও দেখেনি দেশ।

>কোভিডের পরই আরও বড় বিপর্যয় >নজিরবিহীন আর্থিক বিপর্যয়ের পূর্বাভাস >জিডিপি, বেকারত্ব নিয়ে শঙ্কা লকডাউনের মেয়াদ বাড়ছে। সঙ্গে বাড়ছে অর্থনীতির ক্ষতির বহর। আর নিত্যনতুন সমীক্ষায় চড়ছে আশঙ্কার পারদও। আন্তর্জাতিক পরামর্শদাতা সংস্থা গোল্ডম্যান স্যাকসের দাবি, বৃদ্ধি নিয়ে শঙ্কা -------------------- >এপ্রিল-জুন ত্রৈমাসিকে জিডিপির হার ৪৫ শতাংশ কমবে > ২০২০-২১ অর্থবর্ষে আর্থিক বৃদ্ধির হারও তলানিতে ঠেকবে >তৃতীয় ত্রৈমাসিক থেকে অর্থনীতির চাকা ঘোরা শুরু >তবে বিপর্যয় এড়ানো যাবে না গোল্ডম্যান স্যাকসের দুই অর্থনীতিবিদ প্রাচী মিশ্র ও র‍্যান টিলটন ভারতীয় অর্থনীতি নিয়ে সমীক্ষা চালিয়ে রিপোর্ট তৈরি করেছেন। সমীক্ষাতেই ফুটে উঠেছে করোনার ধাক্কায় ভারতের বেকারত্ব ও দারিদ্রের মাথাচাড়া দেওয়ার ভয়ঙ্কর ছবি। রিপোর্টে বলা হয়েছে অর্থনীতির ধাক্কা

------------------------ >পরিষেবা ও উৎপাদন ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি ধাক্কা আসছে >যার জেরে প্রায় প্রথম দুটি ত্রৈমাসিকে বিপর্যয়ের সম্ভাবনা বিশেষজ্ঞ সংস্থা আর্থার ডি লিটলের রিপোর্টে বলা হয়েছে, অর্থনীতি কার্যত থমকে যাওয়ায় দেশে কাজ হারাতে পারেন প্রায় ১৩ কোটি মানুষ। - আশঙ্কার বছর -------------------------- >চলতি অর্থবর্ষে বেকারত্বের হার ছুঁতে পারে ৩৫% >কোভিড সংক্রমণের আগে যা ছিল ৭.৬% >দারিদ্রের বৃত্তে ঢুকে পড়তে পারেন নতুন ১২ কোটি মানুষ >এঁদের মধ্যে চার কোটি চরম দারিদ্রের মুখে পড়বেন >যাঁদের কাজ আছে, তাঁদের একাংশেরও আয় কমবে >সার্বিক চাহিদা কমতে পারে ১৮ শতাংশ দুটি রিপোর্টেই দাবি, বেকারত্ব ও দারিদ্রের বিরূপ প্রভাব পড়বে পণ্যের চাহিদায়। ধাক্কা খাবে জিডিপি। খুব সহজে এই ধাক্কা কাটিয়ে ওঠা যাবে না। একমত দুই বিশেষজ্ঞ সংস্থাই।

Published by: Debalina Datta
First published: May 19, 2020, 6:29 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर