• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • FROM HOSPITAL ODISHA MAN CARRIED WIFES BODY 10 KM WITH DAUGHTER

গাড়ি নেই, স্ত্রীয়ের মৃতদেহ নিয়ে ১০ কিমি হাঁটলেন ওড়িশার মাঝি !

নাম ডানা মাঝি ৷ বয়স ৪২ বছর ৷ সংসার চলে কোনওরকমে ৷ আর গরীব হওয়ার দোষেই হাসপাতাল থেকে মিলল না সাহায্য ৷

নাম ডানা মাঝি ৷ বয়স ৪২ বছর ৷ সংসার চলে কোনওরকমে ৷ আর গরীব হওয়ার দোষেই হাসপাতাল থেকে মিলল না সাহায্য ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #ভুবনেশ্বর: নাম ডানা মাঝি ৷ বয়স ৪২ বছর ৷ সংসার চলে কোনওরকমে ৷ আর গরীব হওয়ার দোষেই হাসপাতাল থেকে মিলল না সাহায্য ৷ কোনও উপায় না দেখে স্ত্রী আমাং দেই-র মৃতদেহ কাঁধে নিয়ে ১০ কিমি দূরে নিজের গ্রামে ফিরে গেলেন মাঝি ! পাশে ছিলেন তাঁর একমাত্র মেয়ে ৷ মাকে হারিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়ে ১২ বছরের মেয়ে ৷ কিন্তু বাবার পাশেই হাঁটতে থাকে অবলীলায় ৷ ঘটনাটি ঘটেছে ওড়িশার কালাহান্দিতে ৷

    সংবাদ মাধ্যমকে ডানা মাঝি জানালেন, ‘আমার স্ত্রী কিছু বছর ধরে টিবিতে আক্রান্ত হয়েছিল ৷ খুব অসুস্থ হয়ে পড়ায় হাসপাতালে ভর্তি করেছিলাম ৷ বুধবার আমার স্ত্রী মারা যায় ৷ আমি খুব গরীব মানুষ ৷ মৃতদেহ বাড়িতে নিয়ে আসার মতো আমার পয়সা নেই ৷ গাড়ি ভাড়া করব কীভাবে ? আমি পুরো ব্যাপারটিই হাসপাতালে জানিয়েছিলাম ৷ কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষরা আমাকে সাহায্য করতে চাইনি ৷ তাই উপায় না দেখে কাপড় দিয়ে পেঁচিয়ে স্ত্রীয়ের মৃতদেহকে কাঁধে নিয়েই হাঁটা দিই ৷’ ডানা মাঝি জানান, হাসপাতাল থেকে তাঁর গ্রামের দূরত্ব ১০ কিলোমিটার ৷

    ফেব্রুয়ারি মাসে গোটা ওড়িশায় চালু হয়েছে ‘মহাপরায়ণা’ স্কিম ৷ এই স্কিমের নিয়ম অনুযায়ী, সরকারি হাসপাতাল থেকে বিনা পয়সায় মৃতদেহ সৎকারের জন্য দেওয়া হয় ৷ কিন্তু শত চেষ্টা করেও, এই সুবিধা পেলেন না মাঝি ৷

    কালাহান্দি জেলা প্রশাসক জানিয়েছেন, ‘খবরটা পেয়েছি ৷ পুরো ব্যাপারটা খতিয়ে দেখছি ৷ আমরা একটা অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করেছি মাঝির জন্য ৷ সরকারের পক্ষ থেকে মাঝির স্ত্রীয়ের সৎকারের জন্য সব দায়িত্ব নেওয়া হয়েছে৷ ’

    First published: