corona virus btn
corona virus btn
Loading

নোটবন্দিতে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছিল, অবশেষে স্বীকার করল কেন্দ্র

নোটবন্দিতে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছিল, অবশেষে স্বীকার করল কেন্দ্র
কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি

সংসদে নোটবন্দি নিয়ে প্রশ্নোত্তর পর্বে কেন্দ্র জানিয়েছে, ২০১৬-১৭ সালে নোটবন্দির বছরে প্রিন্টিংয়ের খরচ বেড়ে ৭ হাজার ৯৬৫ কোটি টাকা পর্যন্ত হয়ে গিয়েছিল৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ২০১৬ সালের নভেম্বর মনে রাখবে দেশবাসী৷ রাতারাতি নোটবন্দি৷ এবং তারপর নগদের সেই ব্যাপক ঘাটতি৷ দীর্ঘ লাইন ব্যাঙ্কে, এটিএম কাউন্টারে৷ মোদি সরকারের একটি সিদ্ধান্তে নাভিঃশ্বাস উঠেছিল দেশবাসীর৷ অবশেষে ২ বছর পর কেন্দ্র স্বীকার করল, নোটবন্দির জেরে মৃত্যু হয়েছিল ৪ জনের৷

সংসদে নোটবন্দি নিয়ে প্রশ্নোত্তর পর্বে কেন্দ্র জানিয়েছে, ২০১৬-১৭ সালে নোটবন্দির বছরে প্রিন্টিংয়ের খরচ বেড়ে ৭ হাজার ৯৬৫ কোটি টাকা পর্যন্ত হয়ে গিয়েছিল৷ এরপরেই সরকার স্বীকার করে, নোটবন্দির পর এসবিআই-এর ৩ কর্মী ও দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা এক গ্রাহক সহ মোট ৪ জনের মৃত্যু হয়৷ একই সঙ্গে বাতিল হওয়া ৫০০ ও ১ হাজার টাকার নোট কারও কাছে থাকলেও, সরকার আর ফেরত নেবে না বলেও জানানো হয়েছে৷

রাজ্যসভায় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি লিখিত জবাবে জানিয়েছেন, ওই বছর প্রিন্টিংয়ের খরচ ৭ হাজার ৯৬৫ কোটি টাকা পৌঁছে গিয়েছিল৷ কিন্ত‌ু পরের বছর ২০১৭-১৮ সালে তা কমে ৪ হাজার ৯১২ কোটি টাকা হয়েছে৷ নোটবন্দির আগে ২০১৫-১৬ বছরে সরকারের প্রিন্টিং খরচ ছিল ৩ হাজার ৪২১ কোটি টাকা৷

অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন, নোটবন্দির সময় স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার ৩ কর্মচারি ও এক গ্রাহকের মৃত্যু হয়৷ ব্যাঙ্কের তরফে মৃতদের পরিবারকে মোট ৪৪.০৬ লক্ষ টাকা দেওয়া হয় ক্ষতিপূরণ বাবদ৷ নোটবন্দির সময় ব্যাঙ্কের লাইনে কত জনের মৃত্যু হয়েছিল? সিপিএম-এর এই প্রশ্নের জবাবেই উত্তর দেন অরুণ জেটলি৷

First published: December 19, 2018, 12:45 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर