corona virus btn
corona virus btn
Loading

চরবৃত্তির মিথ্যে অভিযোগ, ২৬ বছর পর ক্ষতিপূরণ পেলেন ইসরোর প্রাক্তন বিজ্ঞানী

চরবৃত্তির মিথ্যে অভিযোগ, ২৬ বছর পর ক্ষতিপূরণ পেলেন ইসরোর প্রাক্তন বিজ্ঞানী
নাম্বি নারায়ণন৷ PHOTO- PTI

১৯৯৪ সালে প্রথমবার নাম্বি নারায়ণনের বিরুদ্ধে চরবৃত্তির অভিযোগ আনে কেরল পুলিশ৷ অভিযোগ করা হয়, ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংক্রান্ত গোপন তথ্য বিদেশে পাচার করা হচ্ছিল৷

  • Share this:

#তিরুঅনন্তপুরম: সময় লাগল দীর্ঘ ২৬ বছর৷ অবশেষে বিচার পেলেন ইসরোর প্রাক্তন বিজ্ঞানী নাম্বি নারায়ণন৷ তাঁর বিরুদ্ধে কেরল পুলিশের আনা গুপ্তচর বৃত্তির মিথ্যে অভিযোগের মামলায় ক্ষতিপূরণ পেলেন এই বিজ্ঞানী৷ আদালতের নির্দেশ মতো মঙ্গলবার কেরল সরকারের তরফে তাঁকে ১ কোটি ৩০ লক্ষ টাকার ক্ষতিপূরণ তুলে দেওয়া হয়েছে৷ এর সঙ্গে সঙ্গেই বহু পুরনো এই মামলাতেও দাঁড়ি পড়ল৷

মিথ্যে অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁকে গ্রেফতার এবং হয়রানির অভিযোগ তুলে ২০১৮ সালে কেরল সরকারের বিরুদ্ধে তিরুবন্তরুমের একটি নিম্ন আদালতে অতিরিক্ত ক্ষতিপূরণ চেয়ে মামলা করেছিলেন ৭৯ বছরের নাম্বি নারায়ণন৷ তার আগেই অবশ্য সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ওই প্রাক্তন বিজ্ঞানীকে ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিয়েছিল কেরল সরকার৷ পাশাপাশি জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের নির্দেশ মেনে আরও ১০ লক্ষ টাকার ক্ষতিপূরণ দিয়েছিল কেরল সরকার৷

যদিও নির্দেশিকায় সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছিল, ওই প্রাক্তন বিজ্ঞানীর আরও বেশি ক্ষতিপূরণ প্রাপ্য৷ তাই আইনজীবীর সাহায্য নিয়ে অতিরিক্ত ক্ষতিপূরণের জন্য তিনি নিম্ন আদালতে আবেদন করতে পারেন৷ সুপ্রিম কোর্টের রায়ের তিন সপ্তাহ পরে নাম্বি নারায়ণনকে ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয় কেরল সরকার৷ নির্দেশিকায় সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছিল, 'অন্যায় ভাবে নাম্বি নারায়ণনকে গ্রেফতার করে হেনস্থা করা হয়েছে৷ পাশাপাশি, তাঁর মানসিক নির্যাতনও হয়েছে৷'

১৯৯৪ সালে প্রথমবার নাম্বি নারায়ণনের বিরুদ্ধে চরবৃত্তির অভিযোগ আনে কেরল পুলিশ৷ অভিযোগ করা হয়, ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংক্রান্ত গোপন তথ্য বিদেশে পাচার করা হচ্ছিল৷ এই ঘটনায় দুই বিজ্ঞানী ছাড়াও চার জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়৷ তাদের মধ্যে মলদ্বীপের দুই মহিলাও ছিলেন৷

কেরল পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়ে প্রায় দু' মাস জেলে থাকতে হয়েছিল নাম্বি নারায়ণনকে৷ যদিও পরে সিবিআই এই মামলার তদন্তে নেমে নারায়ণনকে যাবতীয় অভিযোগ থেকে মুক্তি দেয়৷

অন্যায় গ্রেফতারির প্রতিবাদে এর পর কেরল হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন নারায়ণন৷ যদিও হাইকোর্ট জানিয়ে দেয় তাঁকে গ্রেফতারির জন্য কেরলের তৎকালীন ডিজিপি সিবি ম্যাথিউজ এবং দুই এসপি-র বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করার প্রয়োজন নেই৷ কেরল হাইকোর্টের এই রায়ের বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন নাম্বি নারায়ণন৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: August 12, 2020, 6:01 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर