• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • FORMER IPS OFFICER AMITABH THAKUR WILL CONTEST YOGI ADITYANATH IN UTTAR PRADESH ELECTIONS DMG

Amitabh Thakur: মেয়াদ শেষের আগেই চাকরিতে কোপ, যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে ভোটে লড়বেন প্রাক্তন আইপিএস

বিধানসভা নির্বাচনে যোগী আদিত্যনাথকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে চান অমিতাভ ঠাকুর৷

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের একটি নির্দেশিকার পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৩ মার্চ কম্পালসরি রিটায়ারমেন্টের 'শাস্তি' দেওয়া হয় অমিতাভ ঠাকুরকে (Amitabh Thakur)৷

  • Share this:

    #লখনউ: চাকরির মেয়াদ পূর্ণ করার আগেই তাঁকে কম্পালসরি রিটায়ারমেন্ট দিয়েছিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক৷ সেই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদেই এবার উত্তর প্রদেশ ক্যাডারের প্রাক্তন আইপিএস অফিসার অমিতাভ ঠাকুর যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে নির্বাচনে লড়ার সিদ্ধান্ত নিলেন৷ এ দিন অমিতাভ ঠাকুরের নিজেই এই ঘোষণা করেছেন৷

    কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের একটি নির্দেশিকার পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৩ মার্চ কম্পালসরি রিটায়ারমেন্টের 'শাস্তি' দেওয়া হয় অমিতাভ ঠাকুরকে৷ যদিও ২০২৮ সাল পর্যন্ত তাঁর চাকরির মেয়াদ ছিল৷ জনস্বার্থেই এই নির্দেশ কার্যকর করা হচ্ছে বলেও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নির্দেশিকায় উল্লেখ করা হয়ে৷ সেখানে লেখা হয়, অমিতাভ ঠাকুর 'তাঁর চাকরির মেয়াদ পূর্ণ করার জন্য উপযুক্ত নন৷'

    অমিতাভ ঠাকুর বলেছেন, 'সবদিক গুরুত্ব সহকারে খতিয়ে আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি,আগামী বছরের নির্বাচনে যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে আমি লড়াই করব৷'

    এ দিন লখনউতে অমিতাভ ঠাকুরের স্ত্রী নূতনও একটি বিবৃতি জারি করে জানান, আগামী বছরের বিধানসভা নির্বাচনে উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ যে কেন্দ্র থেকেই লড়ুন না কেন, তাঁর বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন অমিতাভ ঠাকুর৷ ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, 'মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে যোগী আদিত্যনাথ একের পর এক অগণতান্ত্রিক, অন্যায্য, দমনমূলক, হেনস্থা এবং ভেদাভেদের উদ্দেশ্যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷ তাই তিনি যে আসন থেকেই নির্বাচনে লড়ুন না কেন, অমিতাভ ঠাকুর তাঁর বিরুদ্ধে ভোটে দাঁড়াবেন৷' অমিতাভ ঠাকুরের স্ত্রী বিবৃতিতে আরও জানান, 'এটা তাঁর জন্য নীতির লড়াই৷ অন্যায়, ভুল সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এ ভাবেই নিজের প্রতিবাদ তুলে ধরবেন তিনি৷'

    ২০১৭ সালে উত্তর প্রদেশের বদলে তাঁকে অন্য রাজ্যের ক্যাডারের আইপিএস হিসেবে গণ্য করার জন্য কেন্দ্রকে আর্জি জানিয়েছিলেন অমিতাভ ঠাকুর৷ ২০১৫ সালের ১৩ জুলাই সমাজবাদী পার্টির প্রধান মুলায়ম সিং যাদবের বিরুদ্ধে তাঁকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ করেছিলেন অমিতাভ ঠাকুর৷ তাঁর বিরুদ্ধে ভিজিলেন্স কমিশন গঠন করে তদন্ত করা হয়৷ যদিও সেন্ট্রাল অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুনালের লখনউ বেঞ্চ ২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে অমিতাভ ঠাকুরের সাসপেনশনের নির্দেশের উপরে স্থগিতাদেশ জারি করে৷ ২০১৫ সালের ১১ অক্টোবর মাস থেকে তাঁর বকেয়া বেতন মিটিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি অমিতাভ ঠাকুরকে স্বপদে ফিরিয়ে দেওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়৷

    অমিতাভ ঠাকুরের বিরুদ্ধে হিসেব বহির্ভূত সম্পত্তি রাখার অভিযোগও ওঠে৷ যদিও নিজের সম্পদের বছর ভিত্তিক হিসেব সরকারের কাছে জমা দিয়েছিলেন তিনি৷ হিন্দুস্তান সংবাদপত্রে প্রকাশিত একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, অমিতাভ ঠাকুর তাঁর স্ত্রী এবং সন্তানদের নামে প্রচুর স্থাবর, অস্থাবর সম্পত্তিতে অর্থ বিনিয়োগ করেছেন, পিপিএফ-এও টাকা রেখেছিলেন৷ গোপনে বিভিন্ন উপহার নেওয়ার অভিযোগও উঠেছে তাঁর বিরুদ্ধে৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: