জামিনে বাড়ি ফিরে স্ত্রী’কে মেরে নিজেও আত্মহত্যা করলেন সাজাপ্রাপ্ত প্রাক্তন পুলিশ অফিসার!

জামিনে বাড়ি ফিরে স্ত্রী’কে মেরে নিজেও আত্মহত্যা করলেন সাজাপ্রাপ্ত প্রাক্তন পুলিশ অফিসার!

প্রতীকী চিত্র ।

স্ত্রী উমা’কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাঁকে খুন করে পেরুমল । উমা স্থানীয় কর্পোরেশন স্কুলের শিক্ষিকা ছিলেন । ওই দম্পতির দুই পুত্র সন্তান রয়েছে ।

  • Share this:

    #মাদুরাই: ঘুষ নিতে গিয়ে ধরা পড়ে তিন বছরের সাজা হয়েছিল তার । সম্প্রতি জামিনে মুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরেছিল প্রাক্তন পুলিশ অফিসার পেরুমল পন্ডিয়ান । গত বৃহস্পতিবার বাড়িতেই স্ত্রী’কে খুন করে, নিজেও গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হল অভিযুক্ত অফিসার ।

    ডিরেক্টরেট অব ভিজিলেন্স ও অ্যান্টি-কোরাপশন শাখার সঙ্গে যুক্ত ছিল তামিলনাড়ুর মাদুরাই শহরের পেরুমল । একটি মামলায় হাতেনাতে ধরা পড়ে জেল খাটছিল সে । দিন কয়েক আগে জামিনে বাড়ি ফিরেছিল সে । পুলিশের অনুমান, স্ত্রী উমা মিনাক্ষী’র সঙ্গে কোনও বিষয়টি ঝগড়া মাত্রা ছাড়িয়েছিল। তার জেরেই ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাঁকে খুন করে পেরুমল । উমা স্থানীয় কর্পোরেশন স্কুলের শিক্ষিকা ছিলেন । ওই দম্পতির দুই পুত্র সন্তান রয়েছে ।

    গোটা ঘটনাটি জানা যায় যখন পেরুমলের বড় ছেলে সুন্দর কম্পিউটার কোর্স শেষ করে গতকাল দুপুর ১টা নাগাদ বাড়ি ফেরে । ঘরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ থাকায় বহুবার ডাকাডাকি করে সে । কিন্তু কেউ দরজা না খোলায় শেষ পর্যন্ত প্রতিবেশীদের সাহাস্য নিয়ে দরজা ভাঙে সুন্দর । তখনই বাবা-মা’কে মৃত অবস্থায় দেখতে পায় । দম্পতির ছোট ছেলে প্রণব সে সময় বাড়িতে ছিল না ।

    এরপরেই খবর দেওয়া হয় পুলিশে । ঘটনাস্থলে আসে ফরেন্সিক টিম । প্রথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, স্ত্রী’কে হত্যা করে আত্মঘাতী হয়েছে পেরুমল । তবে এই মর্মান্তিক ঘটনার কারণ সম্বন্ধে এখনও স্পষ্ট ধারনা নেই পুলিশের ।

    প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে ডঃ অশোক কুমারের অবৈধ সম্পত্তি মামলার তদন্তভার হাতে নিযেছিল পেরুমল । সে সময় অশোক কুমারের থেকে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা চেয়েছিল সে । এই টাকার বিনিময়ে মামলা তাঁর পক্ষে করিয়ে দেওয়ার কথাও দিয়েছিল পেরুমল । সে সময়ই ফাঁদে ফেলে পেরুমলকে পুলিশের হাতে ধরিয়ে দেন অশোক ।

    Published by:Simli Raha
    First published: