• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • বেশ কিছু এলাকায় বৃষ্টির সম্ভাবনা, তাহলে কি এবার ঠান্ডা পড়বে ?

বেশ কিছু এলাকায় বৃষ্টির সম্ভাবনা, তাহলে কি এবার ঠান্ডা পড়বে ?

ত্রিপুরা, অসম, নাগাল্যান্ড, তামিলনাড়ু, কেরল, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের বেশ কিছু এলাকায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে ৷ এর পাশাপাশি দক্ষিণ কর্ণাটকেও বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে ৷

ত্রিপুরা, অসম, নাগাল্যান্ড, তামিলনাড়ু, কেরল, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের বেশ কিছু এলাকায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে ৷ এর পাশাপাশি দক্ষিণ কর্ণাটকেও বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে ৷

ত্রিপুরা, অসম, নাগাল্যান্ড, তামিলনাড়ু, কেরল, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের বেশ কিছু এলাকায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে ৷ এর পাশাপাশি দক্ষিণ কর্ণাটকেও বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে ৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: দেশের বেশ কিছু এলাকায় মঙ্গলবার বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে ৷ স্কাইমেটের রিপোর্ট অনুযায়ী, ত্রিপুরা, অসম, নাগাল্যান্ড, তামিলনাড়ু, কেরল, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের বেশ কিছু এলাকায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে ৷ এর পাশাপাশি দক্ষিণ কর্ণাটকেও বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে ৷

    অন্যদিকে দিল্লির তাপমাত্রা এখন অনেকটাই কমে গিয়েছে ৷ আবহাওয়া দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, এই মুহূর্তে দিল্লির আকাশ একেবারেই পরিষ্কার৷ মেঘের কোনও আচ্ছাদন নেই৷ যার ফলে তাপমাত্রা এতখানি কমে গিয়েছে৷ মেঘের চাদরে ধাক্কা খেয়ে পৃথিবী থেকে নিঃস্বরিত ইনফ্রারেড রশ্মি অনেক সময় ফিরে আসে৷ যার ফলে ভূপৃষ্ঠের তাপমাত্রা কিছুটা বৃদ্ধি পায়৷ কিন্তু মেঘ না থাকায় এই মুহূর্তে তা হচ্ছে না৷ পাশাপাশি, বেশি জোরে বাতাস না বওয়ায় কুয়াশাও তৈরি হচ্ছে৷ ১৯৩৭ সালের ৩১ অক্টোবর দিল্লির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে গিয়েছিল, যা সর্বকালীন রেকর্ড৷

    এছাড়া রাজধানী দিল্লিতে হাওয়ার গতি বেশি থাকায় হাওয়ায় দূষণের মাত্রা বেশ অনেকটা কম ছিল ৷ ০ ও ৫০ মধ্যে AQR থাকলে সেটাকে ভাল বলা হয়, ৫১ ও ১০০-র মধ্যে থাকলে সেটা সন্তোষজনক মনে করা হয়, ১০০ ও ২০০-র মধ্যে থাকলে সেটা মাঝামাঝি মনে করা হয়, ২০১ থেকে ৩০০ খারাপ হিসেবে ধরা হয়, ৩০১ ও ৪০০-র মধ্যে থাকলে সেটা অত্যন্ত খারাপ মনে করা হয়, ৪০১ থেকে ৫০০-র মধ্যে AQR থাকলে সেটি চিন্তাজনক এবং সঙ্কটজনক হিসেবে ধরা হয় ৷ রবিবার পঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যেপ্রদেশে আগুন লাগার ঘটনা সামনে এসেছে ৷ এর প্রভাব দিল্লি-এনসিআর ও উত্তরপশ্চিম ভারতের বায়ু দূষণের উপর পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে ৷

    শুক্রবার দিল্লিতে বায়ু দূষণের মাত্রা বেশ খারাপ ছিল ৷ সকাল সাড়ে ৯টায় দিল্লির দিল্লির এয়ার কোয়ালিটি ইন্ডেক্স ছিল (একিউআই) ৩৮০ ৷ বৃহস্পতিবার ২৪ ঘণ্টা একিউআই ছিল ৩৯৫ ৷

    পরিবেশবিদদের কাছে এখন চিন্তার অন্যতম কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে দিল্লির বায়ু দূষণ। দিল্লি যেন ক্রমেই বিষাক্ত গ্যাস চেম্বারে পরিণত হচ্ছে। প্রতিদিন প্রতিনিয়ত সেখানে দূষণের মাত্রা বেড়েই চলেছে। সামনেই দীপাবলি, সেই সময় বায়ু দূষণ অত্যন্ত বিপজ্জনক পর্যায়ে চলে যায় ৷ শীত পড়ার আগেই বায়ু দূষণের জেরে হাঁসফাঁস অবস্থা হয় রাজধানী দিল্লির। তাই আগে থেকে পদক্ষেপ না নিলে দিল্লির মাত্রাতিরিক্ত বায়ু দূষণ চিন্তার কারণ হয়ে উঠতে পারে ৷

    গত বছর দূষণের মাত্রা এতটাই বেড়ে গিয়েছিল যে একাধিক মানুষকে শ্বাসকষ্টে ভুগতে দেথা গিয়েছিল ৷ পরিস্থিতি দেখে সেই সময় স্কুল ও কলেজও বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল ৷

    Published by:Dolon Chattopadhyay
    First published: