Deaths after Gulping Sanitizer: বন্ধ মদের দোকান, স্যানিটাইজারেই নেশা করার জেদ! অকালে চলে গেল ৭ প্রাণ

Deaths after Gulping Sanitizer: বন্ধ মদের দোকান, স্যানিটাইজারেই নেশা করার জেদ! অকালে চলে গেল ৭ প্রাণ

নেশাতেই সব শেষ...

মদ নেই যখন, তখন স্যানিটাইজারেই নেশা নিবারনের পথ বেছে নিয়েছিলেন কয়েকজন। আর তাতেই প্রাণ গেল সাত জনের। ঘটনাটি ঘটেছে মহারাষ্ট্রের ইয়াভাতমল জেলার ওয়ানিতে।

  • Share this:

    #মহারাষ্ট্র: গোটা দেশে আছড়ে পড়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ (Corona Second Wave)। আর এই ঢেউয়ে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত মহারাষ্ট্র। করোনার বেলাগাম বৃদ্ধি সামাল দিতে কড়া লকডাউন (Lockdown in Maharashtra) চলছে মহারাষ্ট্রে। স্বাভাবিক কারণেই বন্ধ রয়েছে মদের দোকান। কিন্তু, সুরাপ্রেমীদের কি সেই অপেক্ষা করার সময় বা ধৈর্য আছে? তাই মদ নেই যখন, তখন স্যানিটাইজারেই নেশা নিবারনের পথ বেছে নিয়েছিলেন কয়েকজন। আর তাতেই প্রাণ গেল সাত জনের। ঘটনাটি ঘটেছে মহারাষ্ট্রের ইয়াভাতমল জেলার ওয়ানিতে।

    স্যানিটাইজার দিয়ে নেশা করার এই হুজুগ অবশ্য নতুন নয়। গত বছর লকডাউনের সময়ও দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে স্যানিটাইজার খেয়ে মৃত্যুর খবর সামনে এসেছিল। প্রশাসনের তরফে বারবার সতর্ক করেও কোনও লাভ হয়নি। এবারও তার অন্যথা হল না।

    জানা গিয়েছে, ওয়ানির ওই গ্রামে গত কয়েকদিন ধরেই বেশ করেকজন স্যানিটাইজার খেয়ে নেশা করার চেষ্টা করছিলেন। এরপরই কয়েকজনের শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়। বাড়িতেই মৃত্যু হয় কয়েকজনের। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর মৃত্যু হয় আরও কয়েকজনের। গোটা গ্রামে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

    পুলিশ সুপার দিলীপ ভুজবলের কথায়, 'গ্রামের কয়েকজন শ্রমিক মদের বদলে গত কয়েকদিন ধরে স্যানিটাইজার খাচ্ছিলেন। তাঁদের মধ্যে তিনজন অসুস্থ হয়ে পড়ায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। তিনজন বাড়িতেই মারা যান। বাকি চারজনের মৃত্যু হয়েছে হাসপাতালে।' মৃতদের নাম, সুনীল ধেংলে (৩২), দত্ত লঞ্জওয়ার (৫৭), ভরত রুইকর (৩৮), গণেশ শেলার (৪৫), সন্তোষ মেহরে (৩৫) ও রাহুল পার্থতকর।

    পরিসংখ্যান বলছে করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বমুখী গ্রাফ হঠাৎই কিছুটা হলেও নীচের দিকে নামছে মহারাষ্ট্রে। গত ক'য়েক মাসে প্রতিদিন নির্দিষ্ট হারে বৃদ্ধি পাওয়ার ধারা বদলে গত দু'সপ্তাহে ৬০ হাজারের আশপাশেই ঘোরা ফেরা করছে মহারাষ্ট্রের দৈনিক করোনা সংক্রমণ। আর তাতেই দেখা দিয়েছে নতুন আশার আলো। গত ২৪ ঘণ্টায় মহারাষ্ট্রে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৭ হাজার ১৬০ জন। যা গোটা দেশের সংক্রমণ বৃদ্ধির হারের নিরিখে তুলনামূলক ভাবে কিছুটা হলেও কম।

    Published by:Suman Biswas
    First published:
    0

    লেটেস্ট খবর