প্রিয়জন নিখোঁজ, ছোট্ট 'খেলার সঙ্গী'র দেহ খুঁজে দিয়ে নিজেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ল আদরের 'কুভি'

প্রিয়জন নিখোঁজ,  ছোট্ট 'খেলার সঙ্গী'র দেহ খুঁজে দিয়ে নিজেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ল আদরের 'কুভি'
ধসের ঘটনার পর কেটে গিয়েছে সাতদিন। উদ্ধার হয়েছে ৫৬ জনের মৃতদেহ। নিখোঁজ এখনও বেশ কয়েকজন।

ধসের ঘটনার পর কেটে গিয়েছে সাতদিন। উদ্ধার হয়েছে ৫৬ জনের মৃতদেহ। নিখোঁজ এখনও বেশ কয়েকজন।

  • Share this:

    #মুন্নার: ইদুক্কির ধস নামার পর থেকে নিখোঁজ মালকিন। খুঁজে খুঁজে হয়রান হয়ে গিয়েছে আদরের পোষ্য। কিন্তু সন্ধান মেলেনি। কিন্তু তারপরেও সে হাল ছাড়েনি। অবশেষে তারই চেষ্টাতে খোঁজ মেলে দু-বছরের ধনুশকার। কিন্তু তখন আর তার দেহে প্রাণ নেই।

    ধসের ঘটনার পর কেটে গিয়েছে সাতদিন। উদ্ধার হয়েছে ৫৬ জনের মৃতদেহ। নিখোঁজ এখনও বেশ কয়েকজন। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, কুভি ছিল ধনুশকা আর তার বোনের খেলার সঙ্গী। গত সপ্তাহের বৃহস্পতিবার রাতের ধসে তলিয়ে যায় প্রদীপ কুমারের বাড়ি। তলিয়ে যান বাড়ির সকলে। উদ্ধারকারী দল একমাত্র ধনুশকার ঠাকুমাকে উদ্ধার করতে সক্ষম হন। এরপর তল্লাশি অভিযানে দিন দু-য়েক আগে পরিবারের কর্তা প্রদীপ কুমারের দেহ উদ্ধার হয়। এরপর শুক্রবার উদ্ধার হয়েছে ধনুশকার দেহ। এখনও নিখোঁজ তার মা এবং বোন। তবে খেলার সঙ্গীর এ হেন পরিণতি সহ্য হয়নি তার। বন্ধুর দেহ উদ্ধারের পরে, তার পাশে শুয়ে মারা যায় 'কুভি'।


    স্থানীয়রা জানিয়েছেন, প্রতিদিনই এলাকায় ঘুরে ঘুরে ধনুশকাকে খুঁজতো তার খেলার সঙ্গী 'কুভি'। ঠিক একইভাবে শুক্রবারও সকালে সে এদিক-ওদিকে ধনুশকা এবং পরিবারের বাকিদের খোঁজে ঘুরছিল। কিন্তু কিছুক্ষণ পরই সে এলাকা ছেড়ে চলে যায়।উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা জানিয়েছেন, কুকুরটি ঘটনার পরের দিন থেকেই এলাকায় খোঁজাখুঁজি করত। ফলে চেনা হয়ে গিয়েছিল।

    এ দিন ঘটনাস্থল থেকে প্রায় চার কিলোমিটার দূরে নদীর কাছে চলে যায় কুভি। তারপর থেকে বহুক্ষণ সেখানেই বসেছিল। দূর থেকে মনে হচ্ছিল কাউকে যেন পাহারা দিচ্ছে। বার বার ডাকছিল মনোযোগ আকর্ষণের জন্য। কিন্তু কিছুতেই জায়গা ছেড়ে নড়ছিল না, পাছে আবার হারিয়ে ফেলে। তার ডাক বুঝতে পারেন উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা। ঠিক করেন, কুকুরটি কেন ডাকছে কাছে গিয়ে দেখবেন। এরপর কাছে যেতেই তাঁরা দেখতে পান নদীর জলের মধ্যে আটকে রয়েছে একটি দেহ। উদ্ধারের পড়ে স্থানীয়রা দেহটি শনাক্ত করেন। আর প্রায় তৎক্ষণাৎ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে ধনুশকার আদরের 'কুভি'।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published:

    লেটেস্ট খবর