• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • দেশের একাধিক রাজ্য বন্যায় বিপর্যস্ত, দুই জেলায় জারি রেড অ্যালার্ট

দেশের একাধিক রাজ্য বন্যায় বিপর্যস্ত, দুই জেলায় জারি রেড অ্যালার্ট

দেবীপটনম সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৷ এখানে ৩৬টি গ্রাম পুরো ডুবে গিয়েছে ৷

দেবীপটনম সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৷ এখানে ৩৬টি গ্রাম পুরো ডুবে গিয়েছে ৷

দেবীপটনম সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৷ এখানে ৩৬টি গ্রাম পুরো ডুবে গিয়েছে ৷

  • Share this:

    #অমরাবতী: অন্ধ্রপ্রদেশের পূর্ব ও পশ্চিম গোদাবরী জেলায় বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে ৷ একাধিক গ্রাম এখনও জলমগ্ন রয়েছে ৷ উদ্ধারকাজের জন্য SDRF তিনটি দলকে মোতায়েন করা হয়েছে ৷ দুটি টিম পশ্চিম গোদাবরী জেলায় ও একটি টিম পূর্ব গোদাবরী জেলায় পাঠানো হয়েছে ৷

    পূর্ব গোদাবরী জেলায় প্রশাসন ইতিমধ্যেই প্রায় ২০০০ মানুষকে ত্রাণ শিবিরে পাঠিয়েছে ৷ এখনও পর্যন্ত বন্যায় কারোর মৃত্যু হয়নি ৷ বাড়ি ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি বলেই জানা গিয়েছে ৷ তবে ফসলের কতটা ক্ষতি হয়েছে তা দেখা হচ্ছে ৷ দেবীপটনম সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৷ এখানে ৩৬টি গ্রাম পুরো ডুবে গিয়েছে ৷ প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, প্রভাবিত এলাকায় উদ্ধার কাজের জন্য ৩২টি বিশেষ টিম গঠন করা হয়েছে ৷

    অসমের বন্যা পরিস্থিতি এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে ৷ প্রভাবিতর সংখ্যা কমেছে ৷ রবিবার বন্যায় মোট ১১৮১২ প্রভাবিত হয়েছেন ৷ শনিবার অবশ্য এই সংখ্যা ছিল ১৩৩০০ ৷ অসমের ৩১টি গ্রাম ও ১৬৩০ হেক্টর জমি জলমগ্ন ৷

    ছত্তিসগড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় লাগাতার বৃষ্টি হওয়ার কারণে জনজীবন প্রভাবিত হয়েছে ৷ রাজ্যের দক্ষিণ দিকে বস্তর এলাকায় একাধিক গ্রামে সড়ক যোগযোগ ভেঙে গিয়েছে ৷ লাগাতার বৃষ্টির জেরে রাজ্যের সমস্ত জেলা আধিকারিক ও পুলিশ কর্তাদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে ৷

    মহারাষ্ট্রের দুটি জেলায় রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে ৷ মৌসম বিভাগের তরফে মহারাষ্ট্রের পুণে ও সতরা জেলায় সোমবার অতিভারী বৃষ্টি সম্ভাবনা রয়েছে বলে রেড অ্যালার্ট জারি করেছে ৷ মুম্বই, রায়গড় ও পালঘরে সোমবার থেকে অতিভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন মৌসম বিভাগের এক আধিকারিক ৷ মঙ্গলবার থেকে অবশ্য বৃষ্টি কমবে ৷ ২৪ ঘণ্টায় ন্যূনতম ২০৪.৫ মিমি বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ৷ খুব প্রয়োজন ছাড়া সকলকে বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে ৷ এছাড়াও একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে ৷

    Published by:Dolon Chattopadhyay
    First published: