corona virus btn
corona virus btn
Loading

'বন্দে ভারত মিশন'! সাড়ে ৩০০-র বেশ যাত্রী নিয়ে আমিরশাহী থেকে এল এয়ার ইন্ডিয়ার দুটি বিমান

'বন্দে ভারত মিশন'! সাড়ে ৩০০-র বেশ যাত্রী নিয়ে আমিরশাহী থেকে এল এয়ার ইন্ডিয়ার দুটি বিমান
দুবাই থেকে প্রথম বিমানটি কেরল পৌঁছল

অন্য রাজ্যের বাসিন্দাও বেশ কয়েক জন থাকছেন ওই সব ফ্লাইটে। তাঁদের নিজেদের রাজ্যে পৌঁছে দিতে বিশেষ কানেক্টিং ডোমেস্টিক ফ্লাইট চালানো হবে।

  • Share this:

#কোঝিকোড়: ‘বন্দে ভারত মিশন’! বৃহস্পতিবার থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছে বিদেশে আটকে থাকা ভারতীয়দের ফেরাতে সবচেয়ে বড় এয়ারলিফটের ব্যবস্থা ৷ বৃহস্পতিবার রাতেই আবু ধাবি থেকে কেরলের কোচি বিমানবন্দরে এসে পৌঁছয় এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের IX 452 ফ্লাইট ৷ আমিরশাহী থেকে দুটি বিমানে মোট ৩৬৩ জন যাত্রীদের নিয়ে দেশে ফেরে এয়ার ইন্ডিয়ার দুটি বিমান ৷ সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে আটকে এখনও অসংখ্য ভারতীয় ৷

যাত্রীদের মধ্যে ৯ জন শিশুও ছিল ৷ প্রথম ফ্লাইটে ছিলেন ১৭৭ জন যাত্রী ৷ যা আবু ধাবি থেকে কোচিতে এসে পৌঁছয় রাত ১০ টা ৯ মিনিটে ৷ দ্বিতীয় বিমানটি দুবাই থেকে কোঝিকোড়ে এসে পৌঁছয় রাত ১০টা ৩২ মিনিটে ৷

শুরু হয়ে গেল বিদেশে আটকে পড়া ভারতীয়দের ফেরানোর কর্মকাণ্ড। যার পোশাকি নাম 'বন্দে ভারত মিশন'। প্রথম ধাপে প্রায় ১৪ হাজার ৮০০ ভারতীয়কে বিদেশ থেকে ফেরানোর কাজ একযোগে শুরু করল কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ এবং বিদেশ মন্ত্রক। আজ রাতেই প্রথম বিমান উড়ে যাচ্ছে দিল্লি থেকে সিঙ্গাপুর। তার পরে ধাপে ধাপে 'বন্দে ভারত মিশন' - এর প্রথম পর্যায়ের এই কর্মকাণ্ড চলবে ১৫ মে পর্যন্ত।

প্রথম ধাপে বিশ্বের ১২টি দেশে আটকে থাকা ভারতীয়দের ফেরাবে বিদেশমন্ত্রক। সেই লক্ষে ইতিমধ্যেই সংশ্লিষ্ট দেশগুলির দূতাবাস এবং হাইকমিশন আটকে থাকা এবং দেশে ফিরতে ইচ্ছুক ভারতীয়দের তালিকা তৈরির কাজ প্রায় শেষ করে ফেলেছে। কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক সূত্রে খবর, আমেরিকা, ব্রিটেন ছাড়াও বাংলাদেশ, সিঙ্গাপুর, ফিলিপিনস, মালয়েশিয়া, ইউএই, কাতার, সৌদিআরব, বাহরিন, কুয়েত, ওমানে আটকে পড়া ভারতীয়দের ফেরানো হবে।

প্রথম সাত দিনে যাঁদের ফেরানো হবে, তাঁদের সিংহভাগই কেরল, তামিলনাড়ু এবং দিল্লির বাসিন্দা। এই তিন রাজ্যে মোট ৩৭টি ফ্লাইট ঢুকবে। এ ছাড়া, মহারাষ্ট্র, তেলঙ্গানায় আসবে ৭টি করে ফ্লাইট। গুজরাতে ৫টি, জম্মু ও কাশ্মীরে এবং কর্নাটকে তিনটি করে আর উত্তরপ্রদেশে একটি ফ্লাইট ঢুকবে। সাত দিনে আসবে মোট ৬৪টি ফ্লাইট।

অন্য রাজ্যের বাসিন্দাও বেশ কয়েক জন থাকছেন ওই সব ফ্লাইটে। তাঁদের নিজেদের রাজ্যে পৌঁছে দিতে বিশেষ কানেক্টিং ডোমেস্টিক ফ্লাইট চালানো হবে।

পরিবহণ মন্ত্রকের এক আধিকারিক বলেন, "বিমানে ওঠা প্রত্যেক যাত্রীকে মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজারের পাউচ প্যাক দেওয়া হবে। বিমানে উঠেই স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করে মাস্ক পরে নিতে হবে।" ফ্লাইটে ওঠার আগে সব যাত্রীদের মেডিক্যাল পরীক্ষা করে দেখে নেওয়া হবে কোভিডের কোনও লক্ষণ আছে কি না। ওই অফিসার বলেন, "বিমানে আসতে হবে মেডিক্যাল প্রোটোকল মান্য করেই। তার পরে এ দেশে এসে আবার সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির শারীরিক পরীক্ষা করা হবে। করোনার কোনও লক্ষণ ধরা না পড়লেও ওই যাত্রীকে ১৪ দিনের সরকারি বা বেসরকারি কোয়ারান্টিনে থাকতে হবে। ১৪ দিনের শেষে নিয়ম মেনে কোভিড পরীক্ষা হবে। তাতে নেতিবাচক ফল হলে তবেই ছাড়া পাবেন ওই ব্যক্তি।"

বিমানের শেষ তিনটি আসন খালি রাখা হবে। যদি কেউ অসুস্থ হয়ে পড়েন, তাঁদের জন্যই এই বিশেষ ব্যবস্থা।

First published: May 8, 2020, 12:43 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर