অভিশপ্ত 'বুরারি কাণ্ড'র ছায়া এবার বিহারে, একই পরিবারের পাঁচজনের করুণ পরিণতি

অভিশপ্ত 'বুরারি কাণ্ড'র ছায়া এবার বিহারে, একই পরিবারের পাঁচজনের করুণ পরিণতি

অভিশপ্ত 'বুরারি কাণ্ড'র ছায়া এবার বিহারে, একই পরিবারের পাঁচজনের করুণ পরিণতি

অভিশপ্ত 'বুরারি কাণ্ড'র ছায়া এবার বিহারে, একই পরিবারের পাঁচজনের করুণ পরিণতি

  • Share this:
    #সুপৌল: একই পরিবারের ১১ সদস্যের আত্মহত্যা। সেই অভিশপ্ত বুরারি কাণ্ড দেশবাসীকে স্তম্ভিত করেছিল। এবার বুরারি কাণ্ডের ছায়া বিহারের সুপৌলে। একই পরিবারের পাঁচজন বেছে নিলেন আত্মহত্যার পথ। কারণ কী? প্রাথমিক তদন্তে পুলিসের অনুমান, আর্থিক দুরাবস্থাই ওই পরিবারের এমন করুণ পরিণতির কারণ হতে পারে। তবে এমন হাড়হিম করা ঘটনায় গোটা এলাকা যেন কার্যত স্তব্ধ। মিশুখে পড়শিদের এমন পরিণতি মেনে নিতে পারছেন না কেউই। ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের দাবি তুলেছেন সুপৌলের স্থানীয় বাসিন্দারা। রাধোপুর থানা এলাকার গদ্দি গ্রামের ঘটনা। সব থেকে মর্মান্তিক ব্যাপার, মৃত পাঁচজনের মধ্যে তিনজন শিশু। পড়শিরা জানিয়েছেন, মৃত মিশ্রীলাল সাহ ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের গত শনিবার শেষ দেখা গিয়েছিল। তার পর থেকে তাঁরা সবাই ঘরবন্দি। শনিবার পরিবারের পাঁচজনের ঝুলন্ত দেহ বাড়ির ভিতর থেকে উদ্ধার করে পুলিস। পরিবারের কর্তা মিশ্রীলালের বয়স ৫০ বছর। তাঁর স্ত্রীর বয়স ৪৪। দুই মেয়ে ও ৯ বছরের ছেলেকে নিয়ে তিনি আচমকা কেন গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলে পড়লেন তাঁর কারণ এখনও স্পষ্ট নয়। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা। পেশায় কয়লার ব্যবসায়ী মিশ্রীলাল আর্থিক অননে জেরবার ছিলেন। ব্যবসায় মন্দার জেরে সংসারে অভাব লেগেই থাকত। তবে কয়েক বছর আগে পৈতৃক জমি বিক্রি করেন মিশ্রীলাল। সেই টাকাতেই দিন গুজরান হচ্ছিল। কিন্তু হালে সেই টাকাও শেষ হয়। ফলে সংসার টানতে হিমশিম খাচ্ছিলেন তিনি। পুলিস ও পড়শিরা আন্দাজ করছেন, আর্থিক অনটনের জেরেই মানসিকভাবে অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়েছিলেন তিনি। যার জেরে এমন সিদ্ধান্ত! উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে দিল্লির বুরারিতে একই পরিবারের ১১ জন সদস্য আত্মহত্যা করেছিলেন। বাড়ির আলাদা ঘর থেকে তাঁদের মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছিল। বিহারের এই ঘটনা যেন সেই অভিশপ্ত বুরারি কাণ্ড মনে করিয়ে গেল।
    Published by:Suman Majumder
    First published: