Euro 2020: ৬০ বছরে প্রথম ১১ দেশে ম্যাচ আয়োজন, ইউরোপ জয়ের লড়াইয়ে ২৪ দল

২০২১ সালে খেলা হলেও ইউরো ২০২০ বলা হচ্ছে। কেন জানেন?

২০২১ সালে খেলা হলেও ইউরো ২০২০ বলা হচ্ছে। কেন জানেন?

  • Share this:
    ১৯৬০ সালে শুরু হওয়া টুর্নামেন্ট। সেই সময় নাম ছিল ইউরোপিয়ান নেশনস কাপ। ১৯৬৮ সালে এই টুর্নামেন্টের নাম বদলে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ বা ইউরো কাপ রাখা হয়। ৬০ বছরের ইতিহাসে এর আগে কখনও ১১টি দেশে ইউরো কাপের ম্যাচ আয়োজন হয়নি। ১১ জুন থেকে শুরু হবে ইউরোর লড়াই। ২০২০ সালে করোনার জন্য এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে পারেনি UEFA. জনপ্রিয়তায় বিশ্বকাপকেও টক্কর দেয় ইউরো। অনেকে তাই বলে, মিনি ওয়ার্ল্ড কাপ। ১৯৬০ সালে শুরু হওয়া টুর্নামেন্ট। সেই সময় নাম ছিল ইউরোপিয়ান নেশনস কাপ। ১৯৬৮ সালে এই টুর্নামেন্টের নাম বদলে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ বা ইউরো কাপ রাখা হয়। ৬০ বছরের ইতিহাসে এর আগে কখনও ১১টি দেশে ইউরো কাপের ম্যাচ আয়োজন হয়নি। ১১ জুন থেকে শুরু হবে ইউরোর লড়াই। ২০২০ সালে করোনার জন্য এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে পারেনি UEFA. জনপ্রিয়তায় বিশ্বকাপকেও টক্কর দেয় ইউরো। অনেকে তাই বলে, মিনি ওয়ার্ল্ড কাপ। এখনও পর্যন্ত সব থেকে বেশি দুটি দেশ আয়োজন করেছে। কিন্তু এবার ম্যাচ হবে আজারবাইজান, ডেনমার্ক, ইংল্যান্ড, জার্মানি, হাঙ্গেরি, ইতালি, নেদারল্য়ান্ডস, রোমানিয়া, রাশিয়া, স্কটল্যান্ড স্পেনে। এখনও পর্যন্ত সব থেকে বেশি দুটি দেশ আয়োজন করেছে। কিন্তু এবার ম্যাচ হবে আজারবাইজান, ডেনমার্ক, ইংল্যান্ড, জার্মানি, হাঙ্গেরি, ইতালি, নেদারল্য়ান্ডস, রোমানিয়া, রাশিয়া, স্কটল্যান্ড স্পেনে। ১১ জুলাই ইউরো কাপ ফাইনাল। ২০১৬ ইউরোতে ফ্রান্সকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর পর্তুগাল। ফাইনালে অবশ্য রোনাল্ডো চোট পেয়ে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন। তবে সাইডলাইনের বাইরে থেকে তিনি সতীর্থদের সমর্থন জানিয়েছিলেন। ১১ জুলাই ইউরো কাপ ফাইনাল। ২০১৬ ইউরোতে ফ্রান্সকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর পর্তুগাল। ফাইনালে অবশ্য রোনাল্ডো চোট পেয়ে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন। তবে সাইডলাইনের বাইরে থেকে তিনি সতীর্থদের সমর্থন জানিয়েছিলেন। ২০২১ সালে খেলা হলেও ইউরো ২০২০ বলা হচ্ছে। উয়েফার কার্যকরী কমিটি গত বছর একটি মিটিংয়ের পর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, ২০২১ সালে আয়োজিত হলেও ইউরো ২০২০ বলা হবে। উয়েফা জানিয়েছিল, ইউরো ২০২০ নামটা উচ্চারিত হলেই বহু মানুষের মনে পড়বে, কীভাবে গোটা বিশ্বের ফুটবল পরিবার একজোট হয়ে ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করেছিল! ২০২১ সালে খেলা হলেও ইউরো ২০২০ বলা হচ্ছে। উয়েফার কার্যকরী কমিটি গত বছর একটি মিটিংয়ের পর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, ২০২১ সালে আয়োজিত হলেও ইউরো ২০২০ বলা হবে। উয়েফা জানিয়েছিল, ইউরো ২০২০ নামটা উচ্চারিত হলেই বহু মানুষের মনে পড়বে, কীভাবে গোটা বিশ্বের ফুটবল পরিবার একজোট হয়ে ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করেছিল! ২০২০ সালে ইউরো কাপের ৬০ বছর পূর্তি ছিল। ফলে জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা করেছিল উয়েফা। কিন্তু করোনার জন্য টুর্নামেন্ট পিছিয়ে যায়। অনুষ্ঠানও কিছুই হবে না। ইউরো কাপে সব থেকে বেশি গোল করার রেকর্ড রয়েছে মিশেল প্লাতিনি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। দুজনেই ৯টি করে গোল করেছেন। এবার প্লাতিনিকে ছাপিয়ে যাওয়ার সুযোগ রোনাল্ডোর সামনে। ২০২০ সালে ইউরো কাপের ৬০ বছর পূর্তি ছিল। ফলে জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা করেছিল উয়েফা। কিন্তু করোনার জন্য টুর্নামেন্ট পিছিয়ে যায়। অনুষ্ঠানও কিছুই হবে না। ইউরো কাপে সব থেকে বেশি গোল করার রেকর্ড রয়েছে মিশেল প্লাতিনি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। দুজনেই ৯টি করে গোল করেছেন। এবার প্লাতিনিকে ছাপিয়ে যাওয়ার সুযোগ রোনাল্ডোর সামনে।
    Published by:Suman Majumder
    First published: