Home /News /national /

করোনা আবহে বিহারে প্রথম দফা বিধানসভা নির্বাচন, সন্ধে ৬টা পর্যন্ত ভোট পড়ল ৫৩.২৩ %

করোনা আবহে বিহারে প্রথম দফা বিধানসভা নির্বাচন, সন্ধে ৬টা পর্যন্ত ভোট পড়ল ৫৩.২৩ %

সম্প্রতি হওয়া পঞ্চায়েত ভোটের ফল পুরো উল্টে গেল পুরভোটে ৷ এই রেজাল্ট কিছুটা হলেও কংগ্রেসের ক্ষয়িষ্ণু জাহাজকে খানিক দৃঢ়তা দেবে ৷ একইসঙ্গে পঞ্চায়েতে কংগ্রেসের খারাপ ফল যেভাবে গেহলট সরকারের নীতি নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছিল, তা এখন অনেকটা লাঘব হবে পুরভোটের ভাল ফলে ৷

সম্প্রতি হওয়া পঞ্চায়েত ভোটের ফল পুরো উল্টে গেল পুরভোটে ৷ এই রেজাল্ট কিছুটা হলেও কংগ্রেসের ক্ষয়িষ্ণু জাহাজকে খানিক দৃঢ়তা দেবে ৷ একইসঙ্গে পঞ্চায়েতে কংগ্রেসের খারাপ ফল যেভাবে গেহলট সরকারের নীতি নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছিল, তা এখন অনেকটা লাঘব হবে পুরভোটের ভাল ফলে ৷

নিউ নর্মালে এই প্রথম এতবড় ভোটপরীক্ষা। দিনের শেষে রিপোর্ট কী দেখে নিন

  • Share this:

    #পটনা: পটনা এবার কার? রায় দেওয়া শুরু করল বিহার। ২৪৩ বিধানসভা আসনের মধ্যে ৭১টিতে মতদান সম্পূর্ণ বুধবারই ৷ নির্বাচন কমিশন থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী সন্ধে ৬টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ৫৩.২৩ শতাংশ ৷ যদিও বেশ কয়েকটি বুথে ভোটগ্রহণ ব্যাহত হওয়ায় সেখানে ভোটগ্রহণের সময়সীমা বাড়িয়ে সন্ধে সাতটা করা হয় ৷

    নিউ নর্মালে এই প্রথম এতবড় ভোটপরীক্ষা। গোটা বিষয়টা সামাল দেওয়া নির্বাচন কমিশনের কাছেও ছিল পরীক্ষা। কোভিড সতর্কতায় ৭ লক্ষ স্যানিটাইজারের বোতল, ৪৬ লক্ষ মাস্ক, ২৩ লাখ জোড়া গ্লাভস, ৬ লক্ষ পিপিই কিট ও ৬ লক্ষ ৭০ হাজার ফেস শিল্ডের ব্যবস্থা রেখেছে কমিশন ৷ এদিন প্রায় নির্বিঘ্নেই কেটেছে প্রথম দফার ভোট ৷ নিরাপত্তার জন্য মোতায়েন করা হয়েছিল ১২০০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী ৷

    এদিন প্রায় ১০০০-এরও বেশি প্রার্থী ভাগ্য ছিল প্রায় ২.১৫ কোটি বিহারবাসীর হাতে ৷ কমিশনের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী এর মধ্যে রয়েছেন ১.১২ কোচি পুরুষ, ১.০১ কোটি মহিলা এবং ৫৯৯ জন তৃতীয় লিঙ্গের অন্তর্ভুক্ত ভোটার ৷

    এদিন সকাল ৭টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে শেষ হয় সন্ধে ৬টায় ৷ পরিসংখ্যান বলছে ২০১৫ সালে বিধানসভা নির্বাচনের প্রথম দফায় ভোট পড়েছিল ৫৪.৯৪ শতাংশ ৷ ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে প্রথম দফায় মতদানের শেষে ভোটের হার ছিল ৫৩.৫৪ শতাংশ ৷

    প্রথম দফায় ছিল নীতীশের আট মন্ত্রীর অগ্নিপরীক্ষা ৷ হেভিওয়েটদের মধ্যে ছিলেন কৃষি মন্ত্রী ও বিজেপি নেতা ডাক্তার প্রেম কুমার, জেডিইউ নেতা ও বিহারের শিক্ষা মন্ত্রী কৃষ্ণ নন্দন বর্মা, বিজেপি নেতা এবং শ্রম মন্ত্রী বিজয় কুমার সিনহা, বিহার সরকারের অনুসূচিত জাতি জনজাতি কল্যাণ মন্ত্রী বৃজকিশোর, বিহার সরকারের পরিবহন মন্ত্রী এবং জেডিইউ নেতা সন্তোষ কুমার নিরালা, গ্রামীণ কার্য মন্ত্রী ও জেডিইউ নেতা শৈলেশ কুমার, বিহার সরকারের বিজ্ঞান ও কারিগরি মন্ত্রী জয় কুমার সিং এবং রাজস্ব মন্ত্রী রাম নারায়ণ মন্ডল ৷ ইমামগঞ্জ কেন্দ্র থেকে এনডিএ-র হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন বিহারে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা হিন্দুস্তানি আওয়াম মোর্চার প্রধান জিতনরাম মাঁঝি। মাঁঝিকে টক্কর দিতে তেজস্বী যাদবের তরফে মাঠে নামেন বিধানসভার প্রাক্তন অধ্যক্ষ তথা বর্ষীয়ান দলিত নেতা উদয়নারায়ণ চৌধুরী।

    স্লগ ওভারে তেজস্বীর মাস্টার স্ট্রোক নাকি নীতীশের এতদিনের টেস্ট ইনিংস, ভোট খেলার মোড় ঘোরাবে কে? মসনদের দাড়িপাল্লায় কার উত্থান কারই বা পতন? উত্তর জানার যাবে আরও দুদফায় বিহারবাসীর মতদানের পর ৷

    Published by:Elina Datta
    First published:

    Tags: Bihar Election 2020

    পরবর্তী খবর