‘‌সবাই ভিড় করে সুপার মার্কেট থেকে জিনিস কিনছে, আতঙ্ক করোনা’‌ কেরল থেকে অভিজ্ঞতা শেয়ার করলেন অর্ক

‘‌সবাই ভিড় করে সুপার মার্কেট থেকে জিনিস কিনছে, আতঙ্ক করোনা’‌ কেরল থেকে অভিজ্ঞতা শেয়ার করলেন অর্ক

বেশিরভাগ কোম্পানি বাড়ি থেকে কাজ করার নির্দেশ দেওয়ায় এলাকা ফাঁকা হয়ে গিয়েছে

  • Share this:

#‌কোচি:‌ কেরল সবার আগে আক্রান্ত হয়েছিল করোনা ভাইরাসে। তারপর একের পর এক আক্রান্তের ঘটনায় চমকে গিয়েছেন অনেকেই। আর সেই কেরলের কোচিতেই থাকেন বাঙালি তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী অর্ক দত্ত। আপাতত তিনি আছেন বাড়িতেই। বাড়ি থেকেই কাজ করার নির্দেশ দিয়েছে বেসরকারী তথ্য প্রযুক্তি সংস্থা। গৃহবন্দী জীবন থেকেই তিনি শেয়ার করলেন কেরলের অন্যতম ব্যস্ত শহর কোচির জীবনযাপনের প্রসঙ্গ। অর্ক বললেন, ‘‌কেরলে পরিস্থিতি হাতের বাইরে বেরিয়ে যাওয়ার আগেই একেবারে লকডাউন করে দেওয়া হয়েছে। তাই আপাতভাবে মন হচ্ছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। কিন্তু মানুষের মধ্যে কি আতঙ্ক নেই?‌ আছে। আমি গতকালই লক্ষ্য করলাম, বাড়ির সামনের সুপার মার্কেটে লোকে লাইন দিয়ে জিনিস কিনছেন। বুঝতে পারলাম, সবাই নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস কিনে জমা করতে শুরু করেছে। পরিস্থিতি খারাপ হলে যাতে খাবারটুকু জুটে যায়।

কোচির চেহারা একেবারে পাল্টে গিয়েছে। আমি যেখানে থাকি, সেই কোচির ইনফো পার্ক এলাকা ভিড়ে ঠাসা থাকে। বেশিরভাগ কোম্পানি বাড়ি থেকে কাজ করার নির্দেশ দেওয়ায় এলাকা ফাঁকা হয়ে গিয়েছে। এলাকা শুনশান। লোক নেই বললেই চলে। কোচির এই আইটি হাব এমন ফাঁকা বোধহয় রবিবারেও থাকে না। তবে একটা কথা বলব, এখানে সবাই যুক্তিনির্ভর জীবনযাপন করছে। অকারণে কেউ ভয় পাচ্ছে না। কেউ অকারণে প্যানিক করছে না। বরং সকলেই নিয়ম মেনে রোগ থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করছে। কারণ, সবাই জানে, কয়েকটা সাধারণ নিয়ম মানলেই আর রোগে ধরার তেমন কোনও ভয় থাকবে না। আমিও তাই কয়েকটা নিয়ম মেনে চলছি। বাড়ি থেকে অফিস হওয়ার কারণে আমিও আর বাইরে যাচ্ছি না। হাত ধোয়ার নিয়মগুলোও মেনে চলছি। তবে আরেকটা কাজ করছি, হোম ডেলিভারি বা ফুড ডেলিভারি অ্যাপের থেকে খাওয়ার আনা একেবারে বন্ধ করে দিয়েছি। এখানে অনেকেই এই ফুড ডেলিভারি অ্যাপের সাহায্য নেওয়া বন্ধ করেছেন। কিন্তু তাতেও কী, বাড়ির লোকেরা তাও টেনশন করছেন। তাঁদেরও দোষ দিতে পারি না। যা পরিস্থিতি, তাতে বাড়ির বাইরে আত্মীয়, বন্ধু কেউ থাকলে তাঁকে নিয়ে চিন্তা হওয়াটা স্বাভাবিক। আর সেই কারণেই ওঁদেরও চিন্তা হচ্ছে।

আমি জানি, আমার মতো আরও অনেকেই এমন বাইরে পড়ে আছেন। তাঁদের বলব, অকারণে টেনশন করবেন না। সুস্বাস্থ্যের কয়েকটি নিয়ম আপনারা মেনে চলুন। শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর চেষ্টা করুন। আমি যেমন প্রচুর পরিমাণে ফল খাচ্ছি, ভিটামিন সি বাড়িয়ে শরীর সুস্থ রাখার চেষ্টা করছি। আপনারাও করুন। আশা করছি দ্রুত পরিস্থিতি পাল্টে যাবে।

First published: March 17, 2020, 3:51 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर