পাকিস্তানি পায়রার পায়ে বাঁধা 'রহস্য'! সাদা কাগজ নিয়ে সীমান্ত পেরোতেই FIR

পাকিস্তানি পায়রার পায়ে বাঁধা 'রহস্য'! সাদা কাগজ নিয়ে সীমান্ত পেরোতেই FIR

পাকিস্তানি পায়রার পায়ে বাঁধা 'রহস্য'! সাদা কাগজ নিয়ে সীমান্ত পেরোতেই FIR

গত ১৭ এপ্রিল সাদা-কালো রঙের ওই পায়রাটিকে ধরা হয়। কনস্টেবল নীরজ কুমারের কাঁধে এসে বসেছিল পাখিটি। ওই সময় ক্যাম্পে দায়িত্বে ছিলেন নীরজ কুমার। পাকিস্তান সীমান্তের থেকে এই এলাকা মাত্র ৫০০ মিটার দূরে।

  • Share this:

    #পঞ্জাব: সন্দেহভাজন পায়রার বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হল। পঞ্জাবের কাছে ভারত-পাক আন্তর্জাতিক সীমান্তের কাছে ওই সন্দেহভাজন পায়রাকে একটি সাদা কাগজ নিয়ে উড়তে দেখা যায়। পাখিটি রোরানওয়ালার কাছে বিওপিতে এক কনস্টেবলের কাছে উড়ে এসেছিল। পাখিটির পায়ে একটি সাদা কাগজ লাগানো ছিল। এবং তার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে।

    গত ১৭ এপ্রিল সাদা-কালো রঙের ওই পায়রাটিকে ধরা হয়। কনস্টেবল নীরজ কুমারের কাঁধে এসে বসেছিল পাখিটি। ওই সময় ক্যাম্পে দায়িত্বে ছিলেন নীরজ কুমার। পাকিস্তান সীমান্তের থেকে এই এলাকা মাত্র ৫০০ মিটার দূরে। অভিযোগ অনুযায়ী, কনস্টেবল নীরজ কুমার সঙ্গে সঙ্গেই পায়রাটিকে ধরে ফেলেন। সেখান থেকেই পোস্ট কমান্ডার ওমপাল সিংকে খবর দেন নীরজ কুমার। তিনি এসে পায়রাটিকে স্ক্যান করে পরীক্ষা করেন।

    লিউকোপ্লাস্টের মতো আঠা দিয়ে পায়রার পায়ে একটি সাদা কাগজ আটকানো ছিল। তাতে কিছু সংখ্যা লেখা ছিল। অমৃতসররের কাহাগড় পুলিশ স্টেশনে ওই পায়রার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে।

    কয়েকদিন আগেই এ ধরনের আরেকটি ঘটনা ঘটেছিল জম্মু-কাশ্মীরের কাঠুয়া জেলায়। গত বছরের মে মাসে ওই এলাকায় একটি সন্দেহভাজন পাকিস্তানের পায়রাকে পাওয়া গিয়েছিল। আধিকারিকেরা সেই সময় জানিয়েছিলেন, পায়রার পায়ে সন্দেহভাজন কাগজ লাগানো ছিল এবং তাতে কোডে কিছু লেখা ছিল। হীরানগর সেক্টরের মন্যরি গ্রামের এক বাসিন্দা ওই পায়রাটিকে ধরতে পেরেছিলেন। পাকিস্তানের সীমান্তের ওপার থেকেই সেটি উড়ে এসেছিল।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published:

    লেটেস্ট খবর