আরবিআইয়ের ভাঁড়ারে ভাগ কেন্দ্রের, বিরোধীদের নিশানায় মোদি সরকার

দেশ জুড়ে যখন এরকম নানা প্রশ্ন

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 28, 2019 03:06 PM IST
আরবিআইয়ের ভাঁড়ারে ভাগ কেন্দ্রের, বিরোধীদের নিশানায় মোদি সরকার
Photo- Video Grab
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 28, 2019 03:06 PM IST

#নয়াদিল্লি: বিরোধীদের হাতে নয়া অস্ত্র তুলে দিলেন মোদি সরকারের অর্থমন্ত্রী। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের থেকে পাওয়া এক লক্ষ ছিয়াত্তর হাজার কোটি টাকা কীভাবে কাজে লাগানো হবে, তার উত্তর নেই খোদ কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর কাছেই। এই ইস্যুতে তোপ দেগেছেন রাহুল গান্ধি। ট্যুইটারে তাঁর কটাক্ষ, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক থেকে চুরি করে লাভ হবে না। রাহুলকে জবাব দিতে অবশ্য দেরি করেননি সীতারমন।

 গত বছর হাজারো বিতর্ক, টানাপোড়েন, সংঘাত। এ বছর শেষমেশ রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ভাঁড়ারে ভাগ পাচ্ছে কেন্দ্র। দেশের অর্থনীতি যেখানে গতি হারাচ্ছে, সেখানে এই বিপুল অর্থ কি মোদি সরকারকে বাড়তি অক্সিজেন যোগাবে?

বাজেটে ঘোষিত বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ কি এই টাকা দিয়েই করা হবে?

শিল্পমহলকে আর্থিক ত্রাণ দিতে কি এই টাকা কাজে লাগাবে কেন্দ্রীয় সরকার? তার জেরে কি কর্মসংস্থানের সুযোগ বাড়বে? বিভিন্ন ক্ষেত্রে ছাঁটাই বন্ধ হবে?

দেশ জুড়ে যখন এরকম নানা প্রশ্ন, তখন সরকারের হয়ে মঙ্গলবার ময়দানে নামলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন।রিজার্ভ ব্যাঙ্ক থেকে টাকা নেওয়া নিয়ে এ দিন সকাল থেকেই আক্রমণে নামে কংগ্রেস। রাহুল গান্ধির নিশানায় ফের মোদি সরকার। আবার তাঁর মুখে চুরির অভিযোগ। টুইটারে রাহুল লিখেছেন,প্রধানমন্ত্রী এবং অর্থমন্ত্রীই দেশে আর্থিক বিপর্যয় তৈরি করেছেন। তাঁরা জানেন না কীভাবে সমস্যার সমাধান করা যাবে। বিজার্ভ ব্যাঙ্ক থেকে চুরি করে লাভ হবে না। এটা খানিকটা ডাক্তারখানা থেকে ব্যান্ড-এইড চুরি করে গুলির ক্ষত চাপা দেওয়ার মতো  ৷ ’

Loading...

আরবিআইয়ের থেকে পাওয়া টাকার কী হবে সেটা বলতে না পারলেও, রাহুলকে জবাব দিতে দেরি করেননি মোদি সরকারের অর্থমন্ত্রী।বিরোধীরা অবশ্য আক্রমণের সুর সপ্তমে নিয়ে গেছে।

মোদি সরকারকে নিশানা করে সুর চড়িয়েছে সিপিএমও। সীতারাম ইয়েচুরির ট্যুইট,প্রথম সারির সরকারি নবরত্ন সংস্থাগুলি স্বাস্থ্যের হাল খারাপ। কারণ, চাহিদা পড়ে গেছে এবং আর্থিক বোঝা চাপিয়েছে সরকার। লাভের বিপুল টাকা সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। কৃষক, কর্মচারী, তরুণ প্রজন্ম ও মহিলা কর্মী - সকলেই ক্ষতিগ্রস্ত।

আপাতত কেন্দ্রীয় সরকারকে ১ লক্ষ ৭৬ হাজার ৫১ কোটি টাকা দেওয়া হবে। এর মধ্যে ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষের জন্য ১ লক্ষ ২৩ হাজার ৪১৪ কোটি টাকা যাবে ব্যাঙ্কের উদ্বৃত্ত থেকে। ঝুঁকি সামলাতে যে টাকা তুলে রাখা

কিন্তু গাড়ি শিল্পসহ দেশের বিভিন্ন সেক্টর যখন সঙ্কটে, তখন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ভাঁড়ার উজাড় করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞদের অনেকে। এরই মাঝে নির্মলা সীতারমনের এ দিনের মন্তব্য বিরোধীদের হাতে তুলে দিল নয়া অস্ত্র।হয়েছিল, তার মধ্যে থেকে দেওয়া হবে বাকি ৫২ হাজার ৬৩৭ কোটি টাকা।

First published: 03:06:51 PM Aug 28, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर