corona virus btn
corona virus btn
Loading

উত্তরপ্রদেশে কসাইখানা বন্ধের প্রতিবাদ জানিয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটে মাংসবিক্রেতারা

উত্তরপ্রদেশে কসাইখানা বন্ধের প্রতিবাদ জানিয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটে মাংসবিক্রেতারা

মুখ্যমন্ত্রীর এই নির্দেশের প্রতিবাদ জানিয়ে সোমবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন গো বলয়ের মাংস বিক্রেতারা।

  • Share this:

#লখনউ: শপথ গ্রহণের দু’দিনের মধ্যেই বিজেপির নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পূরণে উদ্যোগী হয়েছিলেন নয়া মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ৷ অবিলম্বে বেআইনী কসাইখানা ও গরু পাচার বন্ধের জন্য রাজ্য পুলিশকে অ্যাকশন প্ল্যান তৈরির কড়া নির্দেশ দেন যোগী ৷ সরকারের নির্দেশ মেনে বন্ধ করে দেওয়া হয় রাজ্যের একাধিক মাংসের দোকান ৷ মুখ্যমন্ত্রীর এই নির্দেশের প্রতিবাদ জানিয়ে সোমবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন গো বলয়ের মাংস বিক্রেতারা। মৎস্যবিক্রেতারাও এই প্রতিবাদ যোগ দিতে চেলেছে বলে জানা গিয়েছে ৷ বেআইনী কসাইখানা বন্ধ করার জেরে লখনউয়ের বিভিন্ন হোটেলে তৈরি হচ্ছে না টুন্ডে কাবাব৷ কাবাব বিক্রেতারা জানিয়েছেন, ‘টুন্ডে কাবাব লখনউয়ের ঐতিহ্য ৷ আর মাংসই যদি পাওয়া না যায়, তাহলে কীভাবে তৈরি হবে কাবাব ৷ আমরা ব্যবসাও কীভাবে চালাব ৷’ এর জেরে গো মাংসের পরিবর্তে চিকেন ও মাটনের কাবাব বিক্রি হচ্ছে।

নির্বাচনের আগে দুগ্ধ শিল্প ক্ষতির মুখে পড়ছে এই যুক্তিতে গরুপাচার বন্ধ করতে চেয়েছিল বিজেপি ৷ রাজ্যে নির্বাচনী প্রচারের সময় বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ বলেছিলেন, ক্ষমতায় এলে সমস্ত কসাইখানা বন্ধ করে দেওয়া হবে ৷ ফলে ক্ষমতায় আসার পর সেই প্রতিশ্রুতি পূরণে বদ্ধ পরিকর নতুন মুখ্যমন্ত্রী। বিভিন্ন জেলায় এখন অভিযান চালানো হচ্ছে ৷ একের পর এখ কসাইখানা বন্ধ করে দেওয়ায় ব্যবসায় বিপুল পরিমান ক্ষতির মখে পড়তে হয়েছে মাংস ব্যবসায়ীদের ৷ এর প্রতিবাদ জানিয়েই তারা ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন ৷ বিজেপির মুখপাত্র জানিয়েছেন, আইনমেনেই কসাইখানা বন্ধ করা হচ্ছে ৷ এটা ধর্মীয় কারণে নয় বরং রাজ্যের মানুষের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে ৷ অন্যদিকে,  কংগ্রেস নেতা অখিলেশ প্রতাপ সিং জানিয়েছেন, এই অভিযোনে কেবল ক্ষুদ্র মাংস বিক্রেতাদের টার্গেট করা হচ্ছে ৷

First published: March 27, 2017, 9:52 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर