• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • FARMERS CONTINUE TO STILL SIT IN PROTEST AGAINST THE FARM LAWS SWD

বিক্ষোভ তুলে, রাস্তা খালি করার নির্দেশ যোগী সরকারের! এখনও আন্দোলনে অবিরত কৃষকরা

বৃহস্পতিবারই গাজিপুর প্রশাসন থেকে এলাকা থেকে কৃষকদের উঠিয়ে দেওয়ার নির্দেশ আসে। কিন্তু কৃষকরা গাজিপুর সীমান্তে এখনও তাঁদের প্রতিবাদ চালিয়ে যাচ্ছেন কেন্দ্রের কৃষিআইন বাতিলের দাবিতে।

বৃহস্পতিবারই গাজিপুর প্রশাসন থেকে এলাকা থেকে কৃষকদের উঠিয়ে দেওয়ার নির্দেশ আসে। কিন্তু কৃষকরা গাজিপুর সীমান্তে এখনও তাঁদের প্রতিবাদ চালিয়ে যাচ্ছেন কেন্দ্রের কৃষিআইন বাতিলের দাবিতে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: রাস্তা খালি করে বিক্ষোভ তোলার নির্দেশে এসেছে উত্তরপ্রদেশ সরকারের তরফ থেকে। বলা হয়েছিল বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যে রাস্তা ফাঁকা করতে হবে। কিন্তু আন্দোলনকারী কৃষকরা এই নির্দেশ মানতে নারাজ। তাই শুক্রবার সকালেও দিল্লির গাজিপুর সীমান্তে তাঁরা স্লোগান তুললেন জয় জওয়ান, জয় কিসান। আবার ইনকিলাব জিন্দাবাদ স্লোগান তুলতেও তাঁদের দেখা যায়।

    বৃহস্পতিবারই গাজিপুর প্রশাসন থেকে এলাকা থেকে কৃষকদের উঠিয়ে দেওয়ার নির্দেশ আসে। কিন্তু কৃষকরা গাজিপুর সীমান্তে এখনও তাঁদের প্রতিবাদ চালিয়ে যাচ্ছেন কেন্দ্রের কৃষিআইন বাতিলের দাবিতে। অন্যদিকে শুধু উত্তরপ্রদেশ সরকার নয়। সিংঘু এলাকার সাধারণ মানুষও বৃহস্পতিবার বিক্ষোভ দেখান। তাঁদের দাবি, গত দুমাস ধরে দিল্লির সীমান্ত অঞ্চলের রাস্তা আটকে আন্দোলন করছেন কৃষকরা। যার জেরে তাঁদের যাতায়াতে অসুবিধা হচ্ছে। তাই কৃষকদের সরিয়ে দেওয়ার দাবিতে সরব হন তাঁরা।

    শুক্রবার সকালে দিল্লি পুলিশ জানায়, সিংঘু, গাজিপুর, মঙ্গেশ ও অউচান্দি সহ অন্য আরও কয়েকটি সীমান্ত অঞ্চল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে চলতি সমস্যার কথা মাথায় রেখে। তার বদলে মানুষের যাতায়াতের জন্য অন্য রুট খুলে দেওয়া হয়েছে।

    ২৬ নভেম্বর থেকে গাজিপুরের রাস্তায় আন্দোলন শুরু করেছিলেন কৃষকরা। সেই সময় থেকেই গাজিপুর সীমান্ত সিল করে দেওয়া হয়। কিন্তু গত সাধারণতন্ত্র দিবসে কৃষক আন্দোলনের ট্রাক্টর মিছিল চরম রূপ নেয়। এদিন ব্যারিকেডে ভেঙে ফেলেন বলে কৃষকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে। ফলে পুলিশ ও কৃষকদের মধ্যে অশান্তিকে ঘিরে এদিন রাজধানীতে হিংসা ছড়ায়। দিল্লি পুলিশ কমিশনার এসএন শ্রীবাস্তব জানান, কৃষক নেতাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করা হবে। কাউকেই ছাড়া হবে না। বুধবার রাতেই বাঘপাত জেলায় আন্দোলনরত কৃষকদের উচ্ছেদ করা হয়। ভেঙে ফেলা হয় তাঁদের তাঁবু।

    পাশাপাশি, বৃহস্পতিবার দিল্লির সীমান্ত অঞ্চল থেকে কৃষকদের সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু গাজিপুর অঞ্চলে আন্দোলন চালিয়ে নিয়ে যাওয়া থেকে কোনও বিরতি নিতে নারাজ কৃষকরা। তাঁরা তাই একই ভাবে কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ চালিয়ে যাবেন বলেই জানা যাচ্ছে।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: