দেশ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

'কৃষিব্যবস্থা কর্পোরেটদের হাতে যাচ্ছে,' কেন্দ্রের তিন অর্ডিন্যান্সের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে তীব্র আন্দোলনে নামছেন কৃষকরা

'কৃষিব্যবস্থা কর্পোরেটদের হাতে যাচ্ছে,' কেন্দ্রের তিন অর্ডিন্যান্সের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে তীব্র আন্দোলনে নামছেন কৃষকরা
Image- News18

কৃষকরা জানাচ্ছেন, এই তিন অর্ডিন্যান্স পাস হলেই কৃষিব্যবস্থা কর্পোরেটদের হাতে চলে যাবে৷ লক্ষ লক্ষ কৃষক এবার রাস্তায় নেমে পড়ছেন৷ আন্দোলনে গর্জে উঠতে তৈরি হচ্ছেন তাঁরা৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: পঞ্জাব, হরিয়ানায় শুরু হয়েছিল৷ প্রতিবাদের ঝড় পৌঁছে গিয়েছে উত্তরপ্রদেশেও৷ ধীরে ধীরে দেশজুড়ে ছড়াতে চলেছে৷ গর্জে উঠেছেন কৃষকরা৷ তাঁরা ক্ষুব্ধ কেন্দ্রের অর্ডিন্যান্সে৷ তিনটি অর্ডিন্যান্স খুব শীঘ্রই সংসদে পাস করাতে চলেছে মোদি সরকার৷ কৃষকরা জানাচ্ছেন, এই তিন অর্ডিন্যান্স পাস হলেই কৃষিব্যবস্থা কর্পোরেটদের হাতে চলে যাবে৷ লক্ষ লক্ষ কৃষক এবার রাস্তায় নেমে পড়ছেন৷ আন্দোলনে গর্জে উঠতে তৈরি হচ্ছেন তাঁরা৷

সংসদে বাদল অধিবেশনে কৃষিক্ষেত্রে তিনটি অর্ডিন্যান্স পাশ করতে পারে কেন্দ্র৷ অত্যাবশ্যক পণ্য (সংশোধনী) অর্ডিন্যান্স, ফার্মার্স (এমপাওয়ারমেন্ট অ্যান্ড প্রোটেকশন) এগ্রিমেন্ট অন প্রাইস অ্যাসিওরেন্স অ্যান্ড ফার্ম সার্ভিসেস অর্ডিন্যান্স ও ফার্মার্স প্রডিউস ট্রেড অ্যান্ড কমার্স (প্রমোশন অ্যান্ড ফ্যাসিলিটেশন) অর্ডিন্যান্স ৷

মোদি সরকারের দাবি, এই তিনটি অর্ডিন্যান্স কৃষকদের ফসলের ন্যায্য দাম পেতে সাহায্য করবে৷ জুনের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী দফতর থেকে একটি নোটিসে জানানো হয়, এই তিন অর্ডিন্যান্সের ফলে কৃষকরা তাঁদের ফসলের উত্‍পাদন, বণ্টন ও দাম নির্ধারনে স্বাধীনতা পাবেন৷ বেসরকারি বা বিদেশি পুঁজিপতিদের হেনস্থা থেকে রেহাই মিলবে চাষিদের৷ একই সঙ্গে কোল্ড স্টোরেজে বিনিয়োগ বাড়বে ও ফুড সাপ্লাই চেনে আধুনিকতা আসবে৷

কিন্তু প্রতিবাদে সরব চাষিরা জানাচ্ছেন, এই তিন অর্ডিন্যান্সের ফলে দেশের কৃষিব্যবস্থা কর্পোরেটদের কুক্ষিগত হয়ে যাবে৷ আর্থিক ভাবে বিপর্যয়ের মুখে পড়বে চাষিরা৷ অর্ডিন্যান্স রুখতে দেশজুড়ে একত্রিত হয়ে আন্দোলনে নামছেন একাধিক কৃষক সংগঠন৷ ১৪ সেপ্টেম্বরে সংসদে বাদল অধিবেশনের প্রথম দিন থেকেই দেশজুড়ে আন্দোলনে নামছেন কৃষকরা৷ ইতিমধ্যেই পঞ্জাব, হরিয়ানা ও উত্তরপ্রদেশে আন্দোলন শুরু হয়ে গিয়েছে৷ করোনা ভাইরাস অতিমারির আবহে তাঁরা ঠিক করেছেন, ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে আন্দোলন করবেন৷

অল ইন্ডিয়া কিষান সংঘর্ষ কো-অর্ডিনেশন কমিটির জাতীয় আহ্বায়ক ভিএম সিংয়ের কথায়, 'আমরা দেশজুড়ে সব কৃষককে আন্দোলনে যোগ দেওয়ার ডাক দিয়েছি৷ ১৪ সেপ্টেম্বর বড় আন্দোলন হবে৷ সরকার দাবি করছে, এই অর্ডিন্যান্সগুলির জন্য কৃষকরা খুশি, কিন্তু আসলে আমরা ভয়ে রয়েছি, এখন যাও বা একটু নূন্যতম সহায়ক মূল্য পাই, অর্ডিন্যান্স পাশ হয়ে গেলে তাও জুটবে না৷ কৃষি ব্যবস্থাটাই কর্পোরেটদের হাতে চলে যাবে৷'

তিনি জানাচ্ছেন, কন্ট্র্যাক্ট ফার্মিংয়ের মডেলে ইতিমধ্যেই আখ চাষে শুরু করার চেষ্টা করেছে কেন্দ্র৷ কিছু রাজ্যের আখচাষি এই পদ্ধতি মেনে নিয়ে বিপদে পড়েছেন৷ কোটি কোটি টাকা দিয়ে বসে আছে৷ কেউ তাদের বকেয়া মেটানোর বিষয়ে চিন্তাই করছে না৷ চরম বিপদে রয়েছে তারা৷

অর্ডিন্যান্সের সমালোচনা করছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরাও৷ ICRIER-এর অধ্যাপক ও প্রাক্তন কেন্দ্রীয় কৃষি সচিব সিরাজ হুসেন বলছেন, গুজরাতে PepsiCo কৃষকদের সঙ্গে কী করেছে, তা এই অর্ডিন্যান্সগুলির বিপদের সবচেয়ে বড় প্রমাণ৷ তাঁর কথায়, 'বড় কর্পোরেট সংস্থাগুলি কৃষকদের সঙ্গে চুক্তি করে৷ তারপর কৃষকদের বকেয়া মেটানো নিয়ে আর মাথা ঘামায় না৷ চাষিদেরও বড় কর্পোরেট সংস্থার সঙ্গে আইনি লড়াইয়ের ক্ষমতা নেই৷'

SUHAS MUNSHI

Published by: Arindam Gupta
First published: September 12, 2020, 7:20 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर