দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

কেন্দ্রের তিন কৃষি আইন: দ্বিপাক্ষিক চিন্তা আর সমন্বয়ের অভাবেই দুর্ভোগ

কেন্দ্রের তিন কৃষি আইন: দ্বিপাক্ষিক চিন্তা আর সমন্বয়ের অভাবেই দুর্ভোগ
Photo Courtesy: PTI

দ্বিপাক্ষিক রাজনৈতিক চিন্তাধারার অনুপস্থিতির ফলে বহু সংস্কার এদেশে আটকে রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। অনেকে মজা করে বলেন ভারতে সংস্কার প্রক্রিয়াটি বন্ধ ঘড়ির মত। ব্যাটারি দিলে চলবে, কিন্তু দেবে কে?

  • Share this:

Gaurav Choudhury

#নয়াদিল্লি: দেশের গণ্ডি পেরিয়ে ইউরোপ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের খবরের শিরোনাম দখল করে নিয়েছে ভারতের কৃষি আন্দোলন। কৃষকদের প্রতিবাদ স্ফুলিঙ্গ থেকে আগুন হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে সারা বিশ্বে। সমাজের বিভিন্ন শ্রেণীর লোক পাশে দাঁড়িয়েছেন কৃষকদের। অভিনেতা থেকে গায়ক, খেলোয়াড় থেকে প্রাক্তন মন্ত্রী, আমলা, তালিকাটা দীর্ঘ। বেশিরভাগেরই অভিযোগ কেন্দ্র যেভাবে এই তিনটি আইন পাশ করিয়েছে তা সংবিধানের যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় সরাসরি আঘাত করা। সকলেরই বক্তব্য একটা নতুন আইন আনতে গিয়ে কেন্দ্র সাংবিধানিক রীতিনীতি লঙ্ঘন করেছে। কেন্দ্রের দিকে অভিযোগ, সংখ্যার জোরে এবং কর্পোরেটদের খুশি করতেই এই পথ বেছে নিয়েছে তারা। বিরোধীদের পাত্তা দেয়নি তারা।

পাশাপাশি এটাও ঠিক দ্বিপাক্ষিক রাজনৈতিক চিন্তাধারার অনুপস্থিতির ফলে বহু সংস্কার এদেশে আটকে রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। অনেকে মজা করে বলেন ভারতে সংস্কার প্রক্রিয়াটি বন্ধ ঘড়ির মত। ব্যাটারি দিলে চলবে, কিন্তু দেবে কে? এই গতি দেশের অগ্রগতির ক্ষেত্রে হতাশার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। শুধু কৃষি আইন নয়, বিভিন্ন ক্ষেত্রে। অনেকের মতে এই সংস্কারবাদী পদক্ষেপ গ্রহণ করে কেন্দ্র ভোট ব্যাঙ্কের রাজনীতি করছে।

কিন্তু এদেশে এটাই তো চিরকালীন সত্য। যে যায় লঙ্কায় ক্ষমতা থাকে তারই দখলে। কিন্তু আর্থিক অনটন থেকে অনিশ্চিত ভবিষ্যত আসল ক্ষতিটা হচ্ছে গরীব কৃষকদের। সরকার যুক্তিযুক্ত ভাবে জানিয়েছে নতুন আইন কৃষকদের পক্ষে, এমনকি অতীতে তারা যে নিশ্চয়তা পেতেন না, এই আইন তাদের সেই নিশ্চয়তা প্রদান করবে। ফসলের সর্বনিম্ন মূল্য সুরক্ষিত রাখা হবে। তাতেও থামানো যাচ্ছে না আন্দোলন। কিন্তু কৃষিক্ষেত্রে বর্তমান সরকার যে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে অতীতে ক্ষমতায় থাকা অন্য সরকার যে সেই পদক্ষেপ নেওয়ার চেষ্টা করেনি তা নয়। মন্টেক সিং আলুওয়ালিয়া থেকে শুরু করে মনমোহন সিং পর্যন্ত কৃষিক্ষেত্রে সংস্কারের ব্যাপারটি অত্যন্ত জরুরি বলে মন্তব্য করেছিলেন। শারদ পাওয়ার একই কথা বলেছিলেন। কেন্দ্রের কৃষকদের বোঝানোর ক্ষেত্রে ব্লু প্রিন্ট কি হবে তার উত্তর দেবে সময়। কিন্তু মাওবাদী ইন্ধন, পাকিস্তানের মদত এই সব অভিযোগ বন্ধ করে ইতিহাসে নজর দিলে ভাল করবে তারা। যুক্তিসংগত ব্যাখ্যা দিলে তাদেরই লাভ।

Written by Rohan Roy Chowdhury

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: December 13, 2020, 12:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर