মাসুদ নিয়ে প্রস্তাব খারিজ, চিনের ওপর পাল্টা চাপ বাড়ানোর পথে ভারতও

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Mar 14, 2019 05:14 PM IST
মাসুদ নিয়ে প্রস্তাব খারিজ, চিনের ওপর পাল্টা চাপ বাড়ানোর পথে ভারতও
File Photo
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Mar 14, 2019 05:14 PM IST

#নয়াদিল্লি: মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা নিয়ে কী ভারতের সঙ্গে দরাদরি চালাতে চায় চিন ? জিনপিং প্রশাসন চাইছে টা কী? মাসুদ নিয়ে প্রস্তাব খারিজের পর এবার তাই চিনের ওপর পাল্টা চাপ বাড়ানোর পথে হাঁটছে ভারত, আমেরিকা, ফ্রান্স ও ব্রিটেনের মতো দেশ।

এই নিয়ে চারবার। জইশ-এ-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা আপাতত বিশ বাঁও জলে। কারণ নিরাপত্তা পরিষদের চিনের আপত্তিতে খারিজ হয়ে গিয়েছে সেই প্রস্তাব।এরপরেই রীতিমতো যুদ্ধ পরিস্থিতি। মাসুদ পর্বের পর চিনকে কোনঠাসা করতে উদ্যোগী নিরাপত্তা পরিষদের বাকি চার সদস্য দেশ। এমনকী, বিকল্প ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি মার্কিন প্রশাসনের।

রাষ্ট্রসংঘের নিষিদ্ধ জঙ্গি তালিকায় আছে জইশ-এ-মহম্মদ। বারবার একই ঘটনা ঘটলে আমাদের বিকল্প ব্যবস্থা নিতে হবে। চিন ও মার্কিন প্রশাসন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই চালাচ্ছে। এই ঘটনায় তাও ধাক্কা খাবে ৷

পুলওয়ামা হামলায় জইশ যোগ নিয়ে চিনকে তথ্যপ্রমাণ দিয়েছিল নয়াদিল্লি। দুদেশের আলোচনার পর চিন এবার অবস্থান পাল্টাবে বলেও মনে করা হয়েছিল। জিংপিং প্রশাসনের ধাক্কার পর তাই সুর চড়ায় কেন্দ্র। চিনের সঙ্গে নিশানা করা হয় পাক প্রশাসনকেও।

প্রস্তাব খারিজের পর অবশ্য ঘুরপথে চিনের বার্তাও এসেছে। তাই তাতেই কূটনৈতিক মহলের ধারণা, মাসুদ ইস্যুকে ব্যবহার করতে চাইছে কমিউনিস্ট রাষ্ট্রটি। চাইছে ভারতের সঙ্গে দর-কষাকষি করতে। চিনা বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র লু কাং জানান, মাসুদ আজহারের বিরুদ্ধে আরও তথ্যপ্রমাণ ও তদন্ত প্রয়োজন। চিন তাই এই প্রস্তাব বিবেচনাধীন রাখার কথা বলেছে ৷

Loading...

অর্থাৎ ভবিষ্যতে যে অবস্থান বদলাতেও পারে, তারই ইঙ্গিত স্পষ্ট। কিন্তু কিসের বিনিময়ে ? ডোকালাম, সিকিমের মতো সীমান্ত বিরোধ নাকি এশিয়ার বৃহত্তম সড়ক পরিকল্পে ভারতকে সামিল করতে চাপ দেওয়া? আপাতত তারই উত্তর খুঁজছেন কূটনীতিকরা ?

First published: 05:11:39 PM Mar 14, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर