• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • ELEVEN MONTH OLD BOY ARRIVES FROM DUBAI AFTER HE LOST HIS MOTHER DUE TO CORONAVIRUS DMG

দুবাইতে করোনায় মৃত মা, অস্থি নিয়ে দেশে ফিরল ১১ মাসের ছেলে

ত্রিচি বিমানবন্দরে বাবার সঙ্গে ১১ মাসের ছোট্ট দেবেশ৷

গত মার্চ মাসে ৯ মাসের ছোট ছেলে দেবেশকে নিয়ে দুবাইতে (Dubai) কাজ করতে চলে যান ভারতী৷ গত ২৯ মে সেখানেই করোনায় (Coronavirus) আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় তাঁর৷

  • Share this:
    #ত্রিচি: ভিন দেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে মায়ের৷ মায়ের অস্থি নিয়ে দেশে ফিরল এগারো মাসের সন্তান৷ মর্মান্তিক এই দৃশ্যের সাক্ষী থাকল তামিলনাড়ুর ত্রিচি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর৷ বিমানবন্দরে এসে শিশুটিকে নিয়ে যান তার বাবা৷

    কল্লাকুরিচি জেলার বাসিন্দা ভেলাভান এবং তাঁর স্ত্রী ৩৮ বছরের ভারতীর তিন সন্তানকে নিয়ে সুখের সংসার ছিল৷ কিন্তু বিনা মেঘে বজ্রপাতের মতো হঠাৎই কিডনির অসুখে আক্রান্ত হয় ভেলাভান এবং ভারতীর বড় ছেলে৷ একদিকে সন্তানকে হারানোর শোক, অন্যদিকে তার ব্যয়বহুল চিকিৎসার খরচ জোগাতে গিয়ে বিপুল ঋণের বোঝা চাপে ওই দম্পতির ঘাড়ে৷ এই ঋণ শোধ করতেই গত মার্চ মাসে ৯ মাসের ছোট ছেলে দেবেশকে নিয়ে দুবাইতে কাজ করতে চলে যান ভারতী৷ গত ২৯ মে সেখানেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় তাঁর৷ সেখানেই সমাহিত করা হয় তাঁকে৷ বিদেশে সম্পূর্ণ একা হয়ে পড়ে ১১ মাসের দেবেশ৷

    তবে একটাই ভাল বিষয়, ভারতীর বন্ধুরাই ছোট্ট শিশুটির দেখাশোনার ভার নেন৷ দুবাইতে বসবাসকারী তামিলনাড়ুর ক্ষমতাসীন দল ডিএমকে এক সংগঠক মহম্মদ মিরানকে এর পর শিশুটির বিষয়ে জানানো হয়৷ তিনিই বিষয়টি তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এম কে স্ট্যালিনের নজরে আনেন৷ এর পরই তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে শিশুটিকে যত দ্রুত সম্ভব দেশে ফেরানোর ব্যবস্থা করা হয়৷

    সতীশ কুমার নামে এক দুবাই থেকে ত্রিচিগামী ইন্ডিগো-র বিমানের এক যাত্রীর সঙ্গেই ১১ মাসের ওই শিশুটিকে ভারতে আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷ শিশুটির সঙ্গেই তার মায়ের অস্থিও পাঠানো হয়৷ সতীশ কুমার নামে ওই যাত্রী শিশুটিকে ত্রিচিতে নিয়ে এসে বিমানবন্দরে তার বাবা ভেলাভানের হাতে তুলে দেন৷ ভেলাভান জানিয়েছেন, কাল্লাকুরিচির সাংসদ তাঁর সন্তানের পড়াশোনার ভার নেবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন৷ পাশাপাশি আর্থিক সহযোগিতা করারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: