নোটবন্দির প্রভাব- মেয়ের বিয়ের জন্য টাকা তুলতে গিয়ে ব্যাঙ্কের লাইনে মৃত বাবা

নোটবন্দির প্রভাব- মেয়ের বিয়ের জন্য টাকা তুলতে গিয়ে ব্যাঙ্কের লাইনে মৃত বাবা

নোটবন্দির প্রভাব- মেয়ের বিয়ের জন্য টাকা তুলতে গিয়ে ব্যাঙ্কের লাইনে মৃত বাবা

  • Share this:

 #কলকাতা: নোটবাতিল ভাল না খারাপ ? প্রিয়জনের মৃত্যু আর অভাব ভুলিয়েছে সব হিসাব। এখন দু'বেলা খেতে পেলেই বেঁচে যান কল্পনা বাগ। ৩০ ডিসেম্বর হাওড়ার উলুবেড়িয়ার সনৎ বাগ মেয়ের বিয়ের টাকা তুলতে ব্যাঙ্কের সামনে লম্বা লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন। ধকল সহ্য করতে না পেরে পড়ে মারা যান তিনি। দুই প্রতিবন্ধী ছেলে ও অবিবাহিত মেয়ে নিয়ে এখনও অথৈ জলে পড়ে আছেন স্ত্রী কল্পনা।

দিনটা ছিল তিরিশে ডিসেম্বর। ততদিনে পুরনো নোট বাতিল। সামনেই মেয়ের বিয়ে। নতুন নোটের টাকা তুলতে সমস্ত কষ্ট হাসিমুখে সহ্য করেছিলেন বাবা। তবে পারেননি। উলুবেড়িয়ায় ব্যাঙ্কের সামনে ভোর চারটে থেকে লম্বা লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন। একসময় সেখানেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ে মারা যান সনৎ বাগ।

বুধবার নোট বাতিলের এক বছর। সংসারের একমাত্র রোজগেরে মানুষের মৃত্যুতে পরিবারের চোখে সেদিন এক ঝটকায় নেমে এসেছিল অন্ধকার। মাটির ঘর আর প্লাস্টিকের ছাউনির ফাঁক দিয়ে আসা আলো আজও সেই অন্ধকার ঘোচাতে পারেনি। রাজ্য সরকারের সাহায্যের দু'লক্ষ টাকায় মেয়ের বিয়ে হয়েছিল। এখন দুই প্রতিবন্ধী ছেলে আর এক অবিবাহিত মেয়ে নিয়ে নুন ভাতও জোটে না তাঁদের।

পঞ্চায়েত থেকে একটি স্কুলে ঝাঁট দেওয়ার কাজ দেওয়া হয় কল্পনা দেবীকে। কিন্তু প্রতিশ্রুতিমতো চাকরি মেলেনি।

নোট বাতিলে কার কী লাভ এত বোঝে না অভাবী পরিবার। স্মৃতিতে শুধু ফিরে ফিরে আসে প্রিয়জনের মুখ। একসময় তাকে ছাপিয়ে যায় না খেতে পাওয়ার যন্ত্রণা। একবছর পর সনৎবাবুর স্ত্রী আর পরিবার চায় বাকি জীবনটা অন্তত ভালভাবে কাটুক। প্রশাসনের কাছে সেই আর্জিই তাঁদের।

First published: 12:07:20 PM Nov 08, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर