corona virus btn
corona virus btn
Loading

হুহু করে কমেছে রেলের আয়, খরচে রাশ টানতে বিস্তর চিন্তাভাবনা রেলের

হুহু করে কমেছে রেলের আয়, খরচে রাশ টানতে বিস্তর চিন্তাভাবনা রেলের

ইতিমধ্যেই ভারতীয় রেলের ফিনান্সিয়াল কমিশনারের তরফ থেকে চিঠি পাঠানো হয়েছে রেলের সমস্ত জেনারেল ম্যানেজারদের। একই সঙ্গে রেলের যে সমস্ত পি এস ইউ আছে তাদের খরচে রাশ টানার জন্যে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

  • Share this:

#কলকাতা: খরচ কমানোর জন্য পরিকল্পনা গ্রহণ করা ভাল। যদিও সেই পরিকল্পনা বাস্তবতা কতটা তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন রেলের প্রাক্তন আধিকারিকরা। ফিনান্সিয়াল কমিশনারের চিঠির প্রেক্ষিতে রেল বিশেষজ্ঞদের ধারণা প্রকল্পের অবস্থা আরও একবার দেখা উচিত। প্রয়োজনে নিরাপত্তা সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয় চালু রেখে বাকি কাজ স্থগিতের কথা বলছেন তারা। অন্যদিকে রেলের সহযোগী সংস্থা আই আর সি টি সি-জানাচ্ছে যাদের অবসরের পরে পুনঃবহাল করা হয়েছিল তাদের আপাতত আর কাজ করানো হবে না।

ইতিমধ্যেই ভারতীয় রেলের ফিনান্সিয়াল কমিশনারের তরফ থেকে চিঠি পাঠানো হয়েছে রেলের সমস্ত জেনারেল ম্যানেজারদের। একই সঙ্গে রেলের যে সমস্ত পি এস ইউ আছে তাদের খরচে রাশ টানার জন্যে চিঠি পাঠানো হয়েছে। এখন ভারতীয় রেলের অপারেটিং রেশিও যে হারে কমেছে তাতে এই সমস্ত উপায় অবলম্বন করেই এগোতে বলা হচ্ছে রেল আধিকারিকদের।

রেল বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, ভারতীয় রেলের খরচের ৪১% কর্মীদের জন্যে বরাদ্দ হয়ে যায়। পেনশন প্রাপকদের জন্যে বরাদ্দ হয় ২১%। জ্বালানি বাবদ খরচ হয় ১৭%। সব মিলিয়ে ৭৯% খরচ হয়ে যায় এই সব ক্ষেত্রে। বাকি ২১% এর মধ্যে ১০% রক্ষণাবেক্ষণের জন্য খরচ হয়। বাকি ১১% দিয়ে রেলের মতো এত বড় সংস্থার লাভ হবে না বলেই মত রেল আধিকারিকদের। প্রাক্তন রেল আধিকারিক সুভাষ রঞ্জন ঠাকুর জানাচ্ছেন, যা যা চাহিদার কথা ভাবা হয়েছিল এখন ভাবার সময় সেটা আদৌ করা প্রয়োজন এখনই। নাকি আপাতত সেটা স্থগিত রাখা যাবে। তবে সেফটি সংক্রান্ত যা যা বিষয় রয়েছে সেগুলির কাজ নিয়মানুযায়ী চালিয়ে যেতেই হবে।

রেল আধিকারিকদের বক্তব্য, কোভিড ১৯ এর কারণে আয় যে ভাবে হু হু করে কমেছে তাতে চেষ্টা এ ভাবেই চালিয়ে যেতে হবে। রেলের সহযোগী সংস্থা আই আর সি টি সি জানাচ্ছে, ইতিমধ্যেই আয় কমতে শুরু করায় তারা তাদের খরচে রাশ টেনেছে। গত বছর যে সমস্ত অবসর প্রাপ্ত কর্মীদের পুনর্বহাল করা হয়েছিল তাদের ফের কাজে আসা থেকে বিরত করা হয়েছে। আপাতত তাদের আর প্রয়োজন নেই বলে জানানো হয়েছে। ব্যবসা আবার ভাল হল নতুন নিয়োগ করা হবে বলে জানানো হচ্ছে।

আই আর সি টি সি'র গ্রুপ জেনারেল ম্যানেজার দেবাশীষ চন্দ্র জানিয়েছেন, ব্যবসার হাল এখন খারাপ। নতুন করে নিয়োগ তখনই হবে যখন ফের বিনিয়োগ আসবে। এই অবস্থায় রেলের খাবারে অবশ্য বদল আসতে পারে। যদিও আই আর সি টি সি জানাচ্ছে, খাবারের দাম বাড়ানো নিয়ে রেল এখনও কিছু জানায়নি। তবে রেডি টু ইট মিলের চাহিদা বাড়ছে। তাদের  ক্যাটারিং ব্যবসা যে ভাবে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে তাতে ঘুরে দাঁড়ানো মুশকিল বলেই মত আধিকারিকদের।

Published by: Pooja Basu
First published: June 24, 2020, 11:18 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर