মোবাইল ফোন না পাওয়ায় ঠাকুমার মাথা কেটে ডাইনিং টেবিলে সাজাল যুবক

২৪ বছরের ক্রিস্টোফার ডিয়াস অনেকদিন ধরেই মাদকের নেশায় মত্ত ছিল। সম্প্রতি তাকে স্থানীয় একটি রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টারে ভর্তি করানো হয়।

২৪ বছরের ক্রিস্টোফার ডিয়াস অনেকদিন ধরেই মাদকের নেশায় মত্ত ছিল। সম্প্রতি তাকে স্থানীয় একটি রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টারে ভর্তি করানো হয়।

  • Share this:

    #‌মুম্বই:‌ মানুষের মধ্যে অজানা হিংসা কতদূর তাকে তাড়িত করতে পারে, এই ঘটনা যেন বিষয়ের উদাহরণ। কতটা হিংস্ত্র হলে একজনকে খুন করে তার কাটা মাথা ডাইনিং টেবিলে সাজিয়ে রাখা যায়?‌ অবাক লাগলেও এই ঘটনাটি সত্যিই ঘটেছে মুম্বইয়ের বান্দ্রা এলাকায়। ঘটনার সূত্রপাত মোবাইল কেনাকে কেন্দ্র করে। নিজের ঠাকুমার কাছে একটি মোবাইল কেনার আব্দার করেছিল নাতি। ঠাকুমা সেটি দেননি। তাই রেগে গিয়ে ঘুমের মধ্যে ঠাকুমাকে খুন করল ওই যুবক। তারপর মাথা কেটে সাজিয়ে রাখল টেবিলে।

    ২৪ বছরের ক্রিস্টোফার ডিয়াস অনেকদিন ধরেই মাদকের নেশায় মত্ত ছিল। সম্প্রতি তাকে স্থানীয় একটি রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টারে ভর্তি করানো হয়। সেখান থেকেই সোমবার বাড়িতে এসেছিল ওই যুবক। কারণ, রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টারে রেখে চিকিৎসা চালানোর মতো খরচ জোগাতে পারছিল না পরিবার। দো’‌তলা বাড়িতে এই পরিবারের বাস। সেই বাড়ির একতলায় থাকতেন যুবকের ঠাকুমা। সোমবার ঠাকুমার কাছে রাতের খাবার খেতে গিয়েছিল অভিযুক্ত। সেখানেই সে একটি নতুন মোবাইল ফোন কিনে দেওয়ার কথা বলে ঠাকুমাকে। কিন্তু ঠাকুমা সেই আব্দার পুরণ করতে চাননি। তারপরেই শুরু হয় রাগারাগি। রাতে ঠাকুমাকে মেরে, গলা গেটে ডাইনিং টেবিলে সাজিয়ে রাখে ওই যুবক। তারপর অভিযুক্ত যুবকের তুতো ভাইয়েরা যখন একতলায় আসেন, তখন তাঁরা দেখেন, চারিদিকে রক্ত পড়ে আছে। তারপর তাঁরা ভয়ানক দৃশ্য দেখতে পান। আতঙ্কে পুলিশে খবর দেন তাঁরা। পুলিশ প্রাথমিক তদন্তের পর অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে। আদালতে পেশ করা হলে আদালত আগামী ১৭ অক্টোবর পর্যন্ত অভিযুক্তকে পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেয়।

    Published by:Uddalak Bhattacharya
    First published: