corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘‌‌ভিক্ষুককে পয়সা দেবেন না, তাঁরা করোনা ছড়াতে পারে’‌, পরামর্শ দিল চণ্ডীগড় প্রশাসন

‘‌‌ভিক্ষুককে পয়সা দেবেন না, তাঁরা করোনা ছড়াতে পারে’‌, পরামর্শ দিল চণ্ডীগড় প্রশাসন
Image for representation

প্রশাসন তাই যেভাবেই হোক রাশ টানতে চাইছে সংক্রমণে। একের পর এক নতুন নতুন নির্দেশিকা জারি করা হচ্ছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

  • Share this:

#‌চণ্ডীগড়:‌ দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিনই বেড়ে চলেছে লাফিয়ে লাফিয়ে। লকডাউন করেও সেই আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ন্ত্রণে আনা যায়নি। কোনও কোনও রাজ্য স্বীকার করে নিয়েছে যে সেখানে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়েছে। যদিও কেন্দ্রীয় স্তরে তা স্বীকার করা হয়নি। সব মিলিয়ে পরিস্থিতি ক্রমে আরও ভয়ানক হচ্ছে। প্রশাসন তাই যেভাবেই হোক রাশ টানতে চাইছে সংক্রমণে। একের পর এক নতুন নতুন নির্দেশিকা জারি করা হচ্ছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

যেমন সম্প্রতি চণ্ডীগড় প্রশাসনের পক্ষ থেকে রবিবার একটি নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে, সেখানে বলা হয়েছে, ভিক্ষুকদের সরাসরি অর্থ না দিতে। তাঁদের মাধ্যমে দ্রুত করোনা ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে লিখিত ভাবে এই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। শুধু চণ্ডীগড় নয়, দেশের সর্বত্রই ট্রাফিক সিগন্যালে ভিক্ষাপোজীবী মানুষকে দেখা যায়, যাঁরা সিগন্যালে দাঁড়িয়ে পড়া গাড়ি থেকে অর্থ সংগ্রহ করে কোনওমতে দিন কাটান। তাঁদের জন্য এমন নির্দেশিকা বিতর্ক তৈরি করতে পারে জেনেও কেন এটি জারি করা হল?‌ সেই বিষয়েও স্পষ্ট যুক্তি দিয়েছে চণ্ডীগড় প্রশাসন।

সেখানে বলা হয়েছে, ‘‌চণ্ডীগড়ের বাসিন্দাদের কাছে আবেদন, বিভিন্ন ট্রাফিক পয়েন্টে যে ভিক্ষুকরা আপনাদের কাছে অর্থ চাইতে আসে, তাঁদেরকে অর্থ সাহায্য করবেন না। কারণ, তাঁরা হয়ত করোনা ছড়িয়ে দিচ্ছে। আমরা ভিক্ষুকদের ধরতে পারি না, কারণ ভিক্ষাপোজীবী যাঁরা, তাঁরা কোনও অপরাধী নন। কিন্তু তাঁদের যখন কোনও শেল্টার বা আশ্রয়ে রাখা হয়, তখন তাঁরা সেখান থেকে পালিয়ে এসে ফের ভিক্ষাবৃত্তি শুরু করেন। তাই তাঁদেরকে অর্থ সাহায্য করবে না। সরাসরি না বলুন। চণ্ডীগড় প্রশাসনের পরামর্শদাতা মনোজ পারিদা এই বিষয়ে ট্যুইট করে সাধারণ মানু্ষের কাছে এই আবেদন করেছেন। সম্প্রতি চণ্ডীগড়ে করোনা সংক্রমণের পরিমাণ অত্যাধিক বৃদ্ধি পেয়েছে। এখনও পর্যন্ত ৮৮৭ জন করোনা আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে যার মধ্যে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে এই অংশে।

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: July 28, 2020, 8:59 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर