তামিলনাড়ুতে সিনেমা হলে ১০০ শতাংশ আসনে দর্শক অনুমতির বিরোধিতা, খোলা চিঠি চিকিৎসকের

তামিলনাড়ুতে সিনেমা হলে ১০০ শতাংশ আসনে দর্শক অনুমতির বিরোধিতা, খোলা চিঠি চিকিৎসকের

হলের ভিতর শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে মোট আসনের ৫০ শতাংশ দর্শক নিয়েই সিনেমা হল খোলা যাবে বলে জানিয়েছিল কেন্দ্র, কিন্তু সেই সিদ্ধান্ত না মেনে তিন দিন আগে তামিলনাড়ু সরকার সিনেমা হলে ১০০ শতাংশ দর্শক আসন ক্ষমতার অনুমতি দেয়

হলের ভিতর শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে মোট আসনের ৫০ শতাংশ দর্শক নিয়েই সিনেমা হল খোলা যাবে বলে জানিয়েছিল কেন্দ্র, কিন্তু সেই সিদ্ধান্ত না মেনে তিন দিন আগে তামিলনাড়ু সরকার সিনেমা হলে ১০০ শতাংশ দর্শক আসন ক্ষমতার অনুমতি দেয়

  • Share this:

#তামিলনাড়ু: আনলকের পঞ্চম পর্বে সিনেমা হল, থিয়েটার খুলে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু তাতে জারি করা হয়েছিল একাধিক নির্দেশিকা। হলের ভিতর শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে মোট আসনের ৫০ শতাংশ দর্শক নিয়েই সিনেমা হল খোলা যাবে বলে জানিয়ে দিয়েছিল তারা। কিন্তু কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত না মেনে তিন দিন আগে তামিলনাড়ু সরকার সিনেমা হলে ১০০ শতাংশ দর্শক আসন ক্ষমতার অনুমতি দেয়। তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এডাপ্পাডি কে পালানিস্বামীর (Edappadi K Palaniswami) এই সিদ্ধান্তকে ঘিরে বিতর্কের ঝড় উঠে নানা মহলে। এবার এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা জানিয়ে খোলা চিঠি লিখলেন এক চিকিৎসক। জানালেন, "আমরা ক্লান্ত। এই সিদ্ধান্তের ফলে টাকার জন্য বহু মানুষের প্রাণ যেতে পারে।"

তামিলনাড়ু সরকারের এই সিদ্ধান্তের পর সিনেপ্রেমীরা খুশি হলেও খুশি নন সাধারণ মানুষ। সে রাজ্যেরই একাংশ সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছে। জনস্বাস্থ্য আধিকারিকরা জানাচ্ছেন, পোঙ্গলের আগে এই সিদ্ধান্ত করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা মারাত্মক হারে বাড়াতে পারে। পরিস্থিতির কথা আঁচ করতে পেরেই খোলা চিঠিটি লিখেছেন চিকিৎসক অরবিন্ত শ্রীনিবাস।

জানা গিয়েছে, অরবিন্ত জওহরলাল নেহরু ইনস্টিটিউট অফ পোস্ট গ্র্যাজুয়েটের জুনিয়র ডাক্তার। চিঠিতে তিনি জানিয়েছেন, চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ-সহ করোনা পরিস্থিতিতে সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে লড়া প্রত্যেকে এই পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে করতে ক্লান্ত। প্যানডেমিকের সময় তাঁরা একদম জিরো লেভেলে গিয়ে কাজ করেছেন যাতে প্যানডেমিকের হাত থেকে মানুষজনকে বাঁচানো যায়। তাই তিনি মনে করেন, তাঁদেরও খুলে নিশ্বাস নেওয়ার সময় দেওয়া উচিৎ। কারও স্বার্থপরতার জন্য এটা যেন নষ্ট না হয়।

তামিলনাড়ু সরকারের এই সিদ্ধান্তের পিছনে অনেকেই দুই তামিল অভিনেতাকে দায়ী করছেন। বেশ কিছু মানুষ বলছেন, তামিল সুপারস্টার বিজয় (Vijay) ও অভিনেতা সিলামবারাসনের (Silambarasan) সঙ্গে বৈঠক করার পরই এই সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। কারণ, তাঁদের দু'জনেরই দু'টো বিগ বাজেটের সিনেমার মুক্তি সামনে। এই পরিস্থিতিতে সিনেমার লাভের জন্যই নাকি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আর তাই এই চিকিৎসকও এই দুই অভিনেতা ও সরকারের উদ্দেশ্যে চিঠিটি লেখেন।

চিঠিতে তিনি জানান, সিনেমা হলে ১০০ শতাংশ দর্শক ঢুকতে দেওয়া আত্মহত্যার মতোই yd?ehej। উল্লেখ করেন, করোনা (Coronavirus) এখনও চলে যায়নি। করোনায় এখনও বহু মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। তাই এই সিদ্ধান্তকে হোমিসাইড আখ্যা দেন তিনি। তিনি লেখেন, যাঁরা সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন, অর্থাৎ রাজনীতিকরা বা অভিনেতারা, তাঁরা কখনও এই পরিস্থিতিতে ভিড়ের মাঝে মানুষের সঙ্গে গিয়ে সিনেমা হলে সিনেমা দেখবেন না। তাই টাকার জন্য মানুষের জীবন নিয়ে ব্যবসা করা হচ্ছে। চিঠির শেষে তিনি উল্লেখ করেন, ইয়োর্স টায়ার্ডলি, আ রেসিডেন্ট ডক্টর!

চিঠিটির স্ক্রিন শট সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টের সঙ্গে সঙ্গেই তা ভাইরাল হয় নেট দুনিয়ায়। যাঁরা করোনা নিয়ে সচেতন তাঁরা স্ক্রিন শটটি শেয়ার করতে শুরু করেন। অনেকেই লেখেন, তামিলনাড়ুর জন্য প্রার্থনা করছি। অনেক সিনেমাপ্রেমীও বিষয়টির বিরোধিতা করেন এবং চিকিৎসকের এই পোস্টটি শেয়ার করে, সিদ্ধান্ত বদলের কথা জানান।

https://twitter.com/firfirfirdauss/status/1346510964871495680

এ দিকে, করোনার নতুন স্ট্রেইন ইতিমধ্যেই প্রবেশ করেছে এই রাজ্যে। চারজনের শরীরে নতুন স্ট্রেইনের খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। তাই এমন পরিস্থিতিতে ১০০ শতাংশ আসনে দর্শকের অনুমতি দেওয়া যাবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র।

Published by:Rukmini Mazumder
First published:

লেটেস্ট খবর