corona virus btn
corona virus btn
Loading

দুই পাইলটের ভুলেই কোঝিকোড়ে দুর্ঘটনা, ইঙ্গিত ডিজিসিএ প্রধানের

দুই পাইলটের ভুলেই কোঝিকোড়ে দুর্ঘটনা, ইঙ্গিত ডিজিসিএ প্রধানের
দুর্ঘটনার পর ভেঙে দু' টুকরো হয়ে যায় বিমানটি৷ PHOTO- ANI

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভি মুরলিধরণ অবশ্য ঘটনাস্থলে গিয়ে এ দিন দাবি করেছেন, পাইলট সময়মতো বিমানটির ইঞ্জিন বন্ধ করে দেওয়াতেই আরও প্রাণহানি এড়ানো সম্ভব হয়েছে৷

  • Share this:

#কোঝিকোড়: পাইলট এবং কো- পাইলটের সিদ্ধান্তের ভুলই কোঝিকড়ে বিমান দুর্ঘটনার জন্য দায়ী৷ এমনই ইঙ্গিত দিলেন ডিজিসিএ চেয়ারম্যান অরুণ কুমার৷ তাঁর দাবি, নিরাপদে বিমান অবতরণের জন্য কালিকট বিমানবন্দরের রানওয়ের যথেষ্ট দীর্ঘ৷

কালিকট বিমানবন্দরে দুর্ঘটনার জন্য টেবল টপ রানওয়েকে দায়ী করা হচ্ছে৷ পাহাড় বা মালভূমির উপরে তৈরি এই ধরনের রানওয়েতে বিমান অবতরণ তুলনামূলক ভাবে ঝুঁকিপূর্ণ৷ তার উপর প্রবল বৃষ্টির মধ্যে শুক্রবার রাতে এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের বিমানটি অবতরণ করতে গিয়ে সমস্যায় পড়েন দুই পাইলট৷ দ্বিতীয় দফার চেষ্টায় বিমান অবতরণের পরই তা রানওয়ে থেকে ছিটকে গিয়ে খাদে পড়ে৷ যার জেরে ২০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে৷ মৃতদের মধ্যে দুই পাইলটও রয়েছেন৷

ডিজিসিএ প্রধান অরুণ কুমার অবশ্য বলেন, 'কালিকট বিমানবন্দর দেশের সবথেকে ব্যস্ত বিমানবন্দরগুলির মধ্যে এগারো নম্বরে পড়ে৷ অবতরণের সময় পাইলটরাই সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে ভুল করেছিলেন৷ নিরাপদে বিমান অবতরণের জন্য এখানকার রানওয়ে যথেষ্ট দীর্ঘ৷' শুধু তাই নয়, বিমানটি অবতরণের আগে ফ্রিকশন টেস্ট হয়নি বলে যে অভিযোগ উঠছে, তাও খারিজ করে দিয়েছেন ডিজিসিএ প্রধান৷

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভি মুরলিধরণ অবশ্য ঘটনাস্থলে গিয়ে এ দিন দাবি করেছেন, পাইলট সময়মতো বিমানটির ইঞ্জিন বন্ধ করে দেওয়াতেই আরও প্রাণহানি এড়ানো সম্ভব হয়েছে৷ কারণ ইঞ্জিন বন্ধ থাকায় দুর্ঘটনার পরেও বিমানের ফুয়েল ট্যাঙ্কে কোনও বিস্ফোরণ হয়নি যে কারণে বিমানে আগুন ধরেনি৷ একবার বিমানে আগুন ধরলে আরও অনেক বেশি প্রাণহানির আশঙ্কা ছিল৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: August 8, 2020, 9:05 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर